ব্রণ দূর করার উপায়ঃ চট জলদি ব্রণ দূর করুন

ব্রণ দূর করার উপায়

সুন্দর মুখ কে না চায় বলুন। প্রতিটি মেয়েরাই চায় ফর্সা ও জেল্লাদার মুখ কিন্তু সেই সুন্দর মুখের সব থেকে বড় শত্রু হয়ে দাঁড়ায় ব্রণ। যাকে সাধারণত ইংরেজি ভাষায় বলে থাকি পিম্পেল। জেল্লাদার মুখে একটা ছোট ব্রণ সব সৌন্দর্যতাকে মাটি করে দেয়। সাজ পোশাক, ঘুরতে যাওয়া সব কিছু তেই যেন বিরক্ত প্রকাশ হয়। কোন ক্রিম বা ফাউন্ডেশন দিয়ে এটাকে পুরোপুরি ঢাকা দেওয়া যায় না। আবার খুব সহজে এটা সারতেও চায় না।

ব্রণ দূর করার উপায়

এখানে আপনাদের ব্রণ দূর করার উপায় সম্পর্কে কিছু বলব কিন্তু ব্রণ দূর করার আগে আপনাদের জানতে হবে ব্রণ আসলে কী, কোন বয়স থেকে এটা সাধারণত হয়।

ব্রণ আসলে কী

ব্রণ আসলে কী (What is acne) 

সেবাসিয়াস গ্রন্থি নামে একপ্রকার পদার্থ থাকে যা মুখের ত্বককে মসৃণ রাখে। কোন প্রকারে এই গ্রন্থির মুখ বন্ধ হয়ে গেলে তৈলাক্ত পদার্থ নিঃসরণের বাঁধা দেয় এবং তা ভেতরে ফুলে জমে ওঠে। এটাকেই আসলে ব্রণ বলা হয়ে থাকে। গ্রন্থিটির মুখ বন্ধ থাকায় এটি সাদাটে দেখায়। নালির মুখে জমা কোষগুলির আস্তে আস্তে লালচে হয়ে যায়। এর উপর জীবাণু সংক্রমণে পুঁজ সৃষ্টি হয়। এর ফলে মুখের জীবাণু সংক্রমণ কমে গেলেও মুখের উপর কালো দাগ থেকে যায়।

আরও পড়ুন । শীতকালে শুষ্ক ত্বকের যত্ন এর কিছু সহজ উপায় জেনে নিন

ব্রণ কোন বয়সে হয়

Source

ব্রণ কোন বয়সে হয় (which age acne can affect)

ব্রণ সাধারণত ১৫ থেকে ২০২৫ বছর পর্যন্ত হয়ে থাকে। ঘুম কম হলে, জল কম খেলে, পেটের সমস্যায় ভুগলে। অনেক সময় ত্বক অতিরিক্ত তৈলাক্ত হয়ে গেলে ব্রণ দেখা যেতে পারে

আরও পড়ুন । ত্বকের জন্য বরফঃ ত্বকের যত্নে বরফের ১০ টি উপকারিতা

ব্রণ দূর করার উপায়

ব্রণ দূর করার উপায় (Ways to get rid of acne)

এখানে এমন কিছু ঘরোয়া প্রতিকার বলব যা সঠিভাবে ব্যবহার করলে মুখের ব্রণ দূর হবে।

১. নিমপাতা (Neem leaves) 

ব্রণ দূর করার উপায় এ নিমপাতা অসাধারন কার্যকারী। নিমপাতায় অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি ও অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল বৈশিষ্ট্য  রয়েছে যা ব্রণ দূর করতে সক্ষম। ব্রণ ও ব্রণর দাগ সহজেই রিমুভ হতে চায় না। নিমপাতা ও হলুদের প্যাক বানিয়ে ব্যবহার করলে খুব তাড়াতাড়ি ব্রণ ও ব্রণের দাগ দূর হবে। 

নিমপাতা

Source

উপকরণঃ

  • ১০/১২ নিমপাতা
  • ৩-৪ টে কাঁচা হলুদ

ব্যবহারের প্রণালীঃ

  1. নিমপাতা ও কাঁচা হলুদ বেটে নিন।
  2. পেস্টটি মুখে লাগিয়ে রাখুন ২০ মিনিট।
  3. শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা জলে পরিষ্কার করে নিন।

সময়ঃ

সপ্তাহে ১ দিন।

২. দাঁত মাজার পেস্ট (Toothpaste) 

ব্রণ দূর করতে চটজলদি কাজ দেয় কলগেট। আপনি যদি ব্রণর সমস্যা থাকে তাহলে দাঁত মাজার পেস্ট আপনার এই সমস্যা দূর করতে পারে। 

দাঁত মাজার পেস্ট

Source

উপকরণঃ

দাঁত মাজার পেস্ট

ব্যবহারের প্রণালীঃ

  • দাঁত মাজার পেস্ট ব্রণ উপরে কিছুক্ষণ জন্য লাগিয়ে রাখুন। 
  • ৫ মিনিট পর ঠান্ডা জলে ধুয়ে ফেলবেন।

সময় 

৪-৫ বার ব্যবহার করলেই ফল বুঝতে পারবেন।

আরও পড়ুন । ত্বক ফর্সা করার টিপসঃ ৮ টি উপায়ে ঘরোয়া পদ্ধতিতে ত্বক ফর্সা করার টিপস

৩. হলুদ (Turmeric)

হলুদ শুধু রান্নার কাজেই নয় রূপচর্চার কাজেও হলুদ প্রাচীনকাল থেকে ব্যবহৃত হয়। হলুদে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি বৈশিষ্ট্য রয়েছে। এই উপাদানটি মুখের ব্রণ ও ব্রণের দাগ কমিয়ে মুখ উজ্জ্বল করে তোলে। ব্রণ দূর করার জন্য বাড়িতে হলুদের প্যাক তৈরি করবেন কীভাবে দেখে নিন।

Turmeric

উপকরণঃ

  • ২ টেবিল চামচ হলুদ
  • ৫ ফোঁটা মধু

ব্যবহারের প্রণালীঃ

  • হলুদের সঙ্গে মধু মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন।
  • প্যাকটি মুখে লাগিয়ে নিন বা ব্রণ আক্রান্ত অংশে লাগিয়ে রাখুন।
  • ৩০ মিনিট অপেক্ষা করুন।
  • ঠান্ডা জলে পরিষ্কার করে নিন।

সময় 

সপ্তাহে ২-৩ দিন

৪. লেবুর রস (Lemon juice) 

লেবু রসে থাকা সাইট্রিক অ্যাসিড  ব্রণ এবং ব্রণর দাগ দূর করতে উপকারি।

লেবুর রস

Source

উপকরণঃ

ব্যবহারের প্রণালীঃ

  • হাফ পাতিলেবু নিয়ে কয়েকফোঁটা রস বের করে নিন।
  • পাতিলেবুর রস আক্রান্ত জায়গাগুলো লাগিয়ে রাখুন (যাদের অতিরিক্ত ব্রণ হয়, তারা পাতিলেবুর রস ২ বার ব্যবহার করুন) 
  • ৫-১০ মিনিট অপেক্ষা করুন। 
  • ৫-১০ মিনিট পর ঠাণ্ডা জলে মুখ ধুয়ে ফেলুন। খেয়াল রাখবেন ৫-১০ মিনিটের বেশি রাখবেন না। 

আরও পড়ুন । ত্বক ও চুলের পক্ষে ক্যাস্টর অয়েলের উপকারিতা

৫. পাকা পেঁপের স্ক্রাবিং (Scrubbing of ripe papaya)

ব্রণ হয়ার একমাত্র লক্ষণ হল অপরিষ্কার ত্বক । তাই ত্বককে রাখতে হবে পরিষ্কার। নিয়মিত স্ক্রাবিং করলে আপনার ত্বক পরিষ্কার থাকবে। ব্রণ শুধুমাত্র মুখে হয় তা নয় শরীরে অন্য জায়গায়ও হতে পারে। স্ক্রাবিং আপনি বাড়িতে ও করে নিতে পারেন পাকা পেঁপে সাথে।

পাকা পেঁপের স্ক্রাবিং

Source

উপকরণঃ

  • ২ টেবিল চামচ পাকা পেঁপে (পেস্ট করা) 
  • ২ টেবিল চামচ চালের গুড়ো
  • ১ টেবিল চামচ লেবুর রস

ব্যবহারের প্রণালীঃ

  • পাকা পেঁপে সাথে চালের গুড়ো আর এক চামচ লেবুর রস নিয়ে একটি মিশ্রন তৈরী করুন।
  • মিশ্রনটি পুরো মুখে ও হাতে লাগিয়ে নিন। 
  • ১০-১৫ মিনিট ধরে মাসাজ করে স্নান করে ফেলুন।

সময় 

সপ্তাহে ২ দিন।

৬. বরফ (Ice) 

বরফ (Ice) 

source

মুখে এ ব্রণ দূর করার উপায় বরফের অবদান প্রচুর। দিনে তিন থেকে চার বার কাপড়ে বরফ পেঁচিয়ে ত্বকে লাগান। এতে লালচে ভাব ও ত্বকের জ্বালা ভাব কমবে। কিন্তু কাপড়টা যেন পরিষ্কার হয় সেদিকে লক্ষ রাখবেন।

৭. কমলালেবুর খোসা (Orange peel) 

আমরা জানি ত্বক উজ্জ্বল করতে কমলালেবু ব্যবহার করা হয়। ত্বকের দাগছোপ দূর করে কমলালেবুর খোসা অসাধারন কার্যকর। তবে জানেন কি কমলালেবুর খোসা ব্রণ দূর করতে ভালো কাজ করে।

কমলালেবুর খোসা

source

উপকরণঃ

  • কমলালেবুর খোসা
  • মসুরির ডাল
  • দুধ 

ব্যবহারের প্রণালীঃ

  • কমলালেবুর খোসা, মসুরির ডাল, ভালো করে পিষে নিন।
  • এই পেস্টটি সঙ্গে পরিমাণ মতো দুধ মিশিয়ে নিন। 
  • মিশ্রণটি মুখে ১০-১৫ মিনিট লাগিয়ে রাখুন।
  • শুকিয়ে গেলে ঠাণ্ডা জলে ধুয়ে ফেলুন।

সময় 

সপ্তাহে ২ দিন।

আরও পড়ুন । পুরুষদের জন্য চুলের যত্নের টিপসঃ ১০টি অপরিহার্য টিপস

৮. অ্যালোভেরা (Aloe vera) 

আপনার যদি ব্রণ দাগ থাকে তবে আপনার মুখে অ্যালোভেরা জেল লাগানো উচিত। এটি আপনার ত্বকের দাগ দূর করার পাশাপাশি ব্রণ কমাতে সহায়তা করবে।

অ্যালোভেরা (Aloe vera) 

উপকরণঃ

  • অ্যালোভেরার পাতা

ব্যবহারের প্রণালীঃ

  • অ্যালোভেরার পাতা থেকে জেল বের করে নিন।
  • জেলটি মুখে লাগিয়ে নিন।
  • শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা জলে ধুয়ে নেবেন।

সময় 

রোজ

৯. আপেল সাইডার ভিনিগার (Apple cider vinegar) 

আপেল সাইডার ভিনিগারে অ্যান্টি-মাইক্রোবিয়াল বৈশিষ্ট্যে রয়েছে। এটি স্কিনের ব্রণ দূর করতে কার্যকারী। তবে এটি ত্বক ড্রাই করে দেয় তাই সরাসরি ব্যবহার না করাই ভালো। কিছু উপাদানের সঙ্গে এটি ব্যবহার করা ভালো।

আপেল সাইডার ভিনিগার (Apple cider vinegar)

Source

উপকরণঃ

  • ১ টেবিল চামচা আপেল সাইডার ভিনিগার
  • ২ টেবিল চামচ মধু
  • ১ টেবিল চামচ জল

ব্যবহারের প্রণালীঃ

  • সব উপকরণ একসঙ্গে মিশিয়ে নিন।
  • মিশ্রণটি মুখে লাগিয়ে নিন।
  • হালকাভাবে মাসাজ করুন।
  • ১০ থেকে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করুণ।
  • পরিষ্কার জল দিয়ে মুখ ধুয়ে নেবেন।

১০. নারকেল তেল (Coconut oil) 

নারকেল তেল চুলের পাশাপাশি ত্বকের ব্রণ দূর করতেও কাজ করে। এতে প্রচুর অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট এবং ভিটামিন ই রয়েছে এই দুটিই ত্বকে ভাল টিস্যু তৈরি করতে সহায়তা করে। আপনার যদি মুখে প্রচুর ব্রণ থাকে বা যদি আপনার ব্রণর দাগ থাকে তবে আপনার অবশ্যই নারকেল তেল দিয়ে আপনার মুখে ম্যাসেজ করা উচিত।

নারকেল তেল

উপকরণঃ

  • ১ চামচ নারকেল তেল

ব্যবহারের প্রণালীঃ

  • ব্রণ আক্রান্ত অংশে নারকেল তেল লাগিয়ে মাসাজ করে নিন।
  • ৫-১০ মিনিট পর ঠান্ডা জলে ধুয়ে নিন।

সময়

  • নিয়মিত ব্রণ যতক্ষণ না কমে।

আরও পড়ুন । চুলে ক্যাস্টর অয়েলের ব্যবহারঃ নতুন চুল গজাতে ক্যাস্টর অয়েলের ব্যবহার

ব্রণ দূর করার অতিরিক্ত টিপস (Additional tips to get rid of acne)

  • কখনই ব্রণ নখ দিয়ে খোটা যাবে না। কারন তাতে বেশি বাড়বে আর দাগ হয়ে যাবে।
  • মুখ সব সময় পরিষ্কার রাখুন। চোখে-মুখে বেশি করে জলের ঝাপটা দিন।
  • প্রতিদিন খুব বেশি করে জল খেতে হবে, ঠিকমতো ঘুমাতে হবে।
  • টেনশন কম করুন, আঁশ যুক্ত খাবার বেশি করে খান।

সচরাচর জিজ্ঞাস্য প্রশ্ন উত্তরঃ

Q. ব্রণ কেন হয়?  

A. সেবাসিয়াস গ্রন্থি নামে একপ্রকার পদার্থ থাকে যা মুখের ত্বককে মসৃণ রাখে। কোন প্রকারে এই গ্রন্থির মুখ বন্ধ হয়ে গেলে তৈলাক্ত পদার্থ নিঃসরণের বাঁধা দেয় এবং তা ভেতরে ফুলে জমে ওঠে। যার ফলে ব্রণ হয়।

Q. ব্রণ দূর করতে নিমপাতা কীভাবে ব্যবহার করব? 

A. ব্রণ দূর করতে নিমপাতা ও কাঁচা হলুদ বেটে মুখে লাগতে হবে।

Q. লেবু রসে কি ব্রণ কমবে? 

A. লেবু রসে থাকা সাইট্রিক অ্যাসিড রয়েছে যা ব্রণ কমাতে সম্ভব।

Q. দাঁত মাজার পেস্টে কি সত্যিই ব্রণ কমবে? 

A. দাঁত মাজার পেস্ট ব্রণ আক্রান্ত অংশে লাগালে ব্রণ কমে যাবে ঠিকই তবে ব্রণ দাগ থেকে যায়। ব্রণর দাগ কমাতে হলুদ আর মধু ব্যবহার করতে পারেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here