৭ টি ঘরোয়া পদ্ধতিতে মেছতা দূর করার উপায়

মেছতা কি

স্কিনে মেছতা ক্ষতিকারক সমস্যা না হলেও এটি রীতিমতো বিব্রতকর। যা ত্বকের সৌন্দর্য নষ্ট করে দেয়। অনেকেই এই সমস্যায় পড়েন। মেছতা সাধারণত সূর্যের আলোর সংস্পর্শে আসার কারণে হয়। তবে এই দাগ সহজে স্কিন থেকে সরতে চায় না। যারা এই সমস্যায় ভুগছেন তারা নীচের এই ৭ টি ঘরোয়া টোটকা ( মেছতা দূর করার উপায় ) ট্রাই করে দেখতে পারেন। আশাকরি, উপকৃত হবেন।

Read more: মুখের কালো দাগ দূর করার উপায়

মেছতা কি (What is Freckles)

মেছতা কি

মেলাজমা অথবা কোলাজমাকে মেছতা বলা হয়। এটি ত্বকের একটি সমস্যা যা, ছোট ছোট হালকা বাদামি রঙের প্যাচ। এটি মুখে, কপালে অথবা অন্য জায়গায় হতে পারে। অধিকাংশ ক্ষেত্রে, মেছতা স্কিনের জন্য ক্ষতিকারক হয়। এগুলি মেলানিনের অত্যধিক উৎপাদনের ফলে তৈরি হয়, যা ত্বক এবং চুলের রঙের জন্য দায়ী

Read more: ব্রণের দাগ দূর করার উপায়

মেছতা কেন হয় (Cause of Freckles)

মেছতা কেন হয়

মেছতা বিভিন্ন কারণের জন্য হতে পারে। যেমনঃ

  1. জিনগত কারণ। যেমন ধরুন কারো বাবা-মা-ভাই-বোনের রয়েছে  তাহলে পরবর্তী বংশধরদের মধ্যে মেছতা হওয়ার আশঙ্কা বেশি।
  2. আরেকটি অন্যতম কারণ হল, সূর্যের আলোর সংস্পর্শে আসা। এই কারণে অনেকের মেছতা বেশি দেখা যায়।
  3. গর্ভাবস্থায় মেছতা হতে পারে।

Read more: হাই প্রেসার কমানোর উপায়

মেছতার লক্ষণ (Symptoms of Freckles)

মেছতার লক্ষণ

  • ত্বকের রঙ এবং আকৃতির পরিবর্তন।
  • ত্বকে হালকা বাদামি বা কালো রঙের ছোপ।

Read more: দাতের ব্যথায় করনীয়

ঘরোয়া উপাদানে মেছতা দূর করার উপায় (Ways To Get Rid Of Freckles In Home Remedies) 

১। লেবু (Lemon)

লেবু

লেবু ভিটামিন সি সমৃদ্ধ যার আশ্চর্যজনক অ্যান্টি-পিগমেন্টেশন এবং ফটোপ্রোটেক্টিভ বৈশিষ্ট্য রয়েছে। এটি শুধুমাত্র ক্ষতিকারক সূর্যের বিরুদ্ধে ত্বককে রক্ষা করে না এটি মেলানিন উৎপাদন হ্রাস করে ত্বকের পিগমেন্টেশন হ্রাস করে। এই প্রাকৃতিক ব্লিচ দ্রুত মেছতা দূর করতে সহায়তা করে।

  • লেবুর রসে স্কিনে মেছতার অংশে লাগিয়ে রাখুন।
  • ১৫-২০ মিনিটের জন্য রস রেখে দিন।
  • পরিষ্কার জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।
  • এটি সপ্তাহে ২-৩ বার ব্যবহার করুন।

Notes: যাদের সেন্সেটিভ স্কিন তাদের ব্যবহার করা উচিত নয় কারণ লেবুতে থাকা সাইট্রিক অ্যাসিড সেন্সেটিভ স্কিনে জ্বালাভাব তৈরি করতে পারে।

২। অ্যালভেরা (Aloe Vera)

অ্যালভেরা

স্কিনের সমস্ত সমস্যা সমাধানের নাম অ্যালোভেরা। ত্বককে নরম এবং ময়শ্চারাইজ করার পাশাপাশি, অ্যালোভেরা জেল ত্বকে মেটালোথিওনিন উৎপাদন শুরু করে, যা UV-প্ররোচিত ক্ষতি প্রতিরোধ করে। এটি টাইরোসিনেজ কার্যকলাপকেও বাধা দিতে পারে। এইভাবে, এটি ত্বকে মেলানিন জমা কমাতে পারে, যার ফলে মেছতা দূর হতে পারে।

  • অ্যালোভেরা জেল নিয়ে ত্বকে লাগিয়ে নিন।
  • কয়েক মিনিট মাসাজ করুন।
  • জেলটি সারারাত লাগিয়ে রাখুন।
  • সকালে ঘুম থেকে উঠে ধুয়ে ফেলবেন।
  • প্রতিদিন এটি করলে মেছতা দাগ দূর করতে সাহায্য করবে

৩। হলুদ ও লেবুর রস (Turmeric and Lemon Juice)

হলুদ ও লেবুর রস

এক গবেষণায় দেখা গেছে, হলুদে প্রাথমিক উপাদান কারকিউমিন, যা মেলানোজেনেসিসকে বাধা দেয়। অর্থাৎ এটি ত্বকে মেলানিনের অত্যধিক জমা কমাতে পারে যা মেছতা সৃষ্টি করে।

  • লেবুর রস এবং হলুদের গুঁড়ো সমপরিমাণ মিশিয়ে একটি পেস্ট তৈরি করুন।
  • পেস্টটি মেছতা অংশে লাগিয়ে রাখুন।
  • শুকিয়ে গেলে নরমাল জল দিয়ে ধুয়ে নিন।
  • সপ্তাহে ১ দিন অন্তত ব্যবহার করলে ভালো উপকার পাবেন।

Read more: নিম পাতার উপকারিতা

৪। আপেল সিডার ভিনিগার (Apple Cider Vinegar)

আপেল সিডার ভিনিগার

ACV-এর ম্যালিক অ্যাসিড কালো ত্বকের কোষগুলিকে এক্সফোলিয়েট করে। মেছতা দূর করতে সাহায্য করে।

  • এক টেবিল চামচ আপেল সিডার ভিনিগার এবং এক টেবিল চামচ মধু মিশিয়ে একটি প্যাক তৈরি করুন।
  • প্যাকটি মেছতা অংশে লাগিয়ে রাখুন ১০-১৫ মিনিট।
  • হালকা গরম জলে পরিষ্কার করে নিন।

৫। শিয়া বাটার (Shea Butter)

শিয়া বাটার

শিয়া বাটার মেলানোজেনেসিস নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। যা মেছতা কমাতে সাহায্য করে।

  • ১/২ চামচ শিয়া বাটার নিয়ে হালকা গরম করে নিন।
  • রাতে শোয়ার আগে মেছতা অংশে এই বাটার লাগিয়ে আলতো করে মাসাজ করুন।
  • সারারাত রেখে দিন এবং সকালে ধুয়ে ফেলুন।
  • সপ্তাহে ৩/৪ বার প্রতি রাতে ব্যবহার করুন।

৬। মধু (Honey)

মধু

মধুতে ফেনোলিক এবং ফ্ল্যাভোনয়েড যৌগ রয়েছে যা টাইরোসিনেজ কার্যকলাপকে বাধা দিতে সাহায্য করতে পারে। এটি আপনার ত্বকে মেলানিনের অতিরিক্ত উৎপাদন নিয়ন্ত্রণ করে, যা মেছতা কমাতে পারে।

  • এক টেবিল চামচ লেবুর রস এবং মধু মিশিয়ে প্যাক বানিয়ে নিন।
  • প্যাকটি মেছতার জায়গায় লাগিয়ে নিন।
  • ১৫-২০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন।
  • সপ্তাহে ২ বার ব্যবহার করুন।

Read more: ত্বকের যত্নে লেবু

৭। কলার খোসা (Banana peels)

কলার খোসা

একটি পাকা কলা খোসা স্কিনের মেছতা অংশে ঘষুন এবং ২০ মিনিটের জন্য ছেড়ে দিন। ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে নিন এবং ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে রাখুন।

Frequently Asked Questions

Q. কি কারণে মেছতা হয়? 

A. মেলানিনের বর্ধিত উৎপাদনের কারণে মেছতা হয়।

Q. মেছতা কি স্কিনের জন্য খারাপ? 

A. মেছতা ক্ষতিকারক নয় বা স্বাস্থ্য সমস্যার লক্ষণ নয়। এগুলি কেবল রঙ্গক কোষ যা ত্বকের মধ্যে ছোট প্যাচ থাকে। যা সৌন্দর্য নষ্ট করে দেয়।

Q. কমে যাওয়ার পর কি আবার মেছতা হতে পারে? 

A. হ্যাঁ, দীর্ঘায়িত এবং অনিয়ন্ত্রিত সূর্যের এক্সপোজারের পরে মেছতা আবার দেখা দিতে পারে। যেহেতু তারা সাধারণত ত্বকের একটি বৃহৎ এলাকা ঢেকে রাখে, তাই গ্রীষ্মের ঋতুতে তারা ফিরে আসতে পারে।

Q. মেছতা দূর হতে কতদিন সময় লাগে? 

A. যদি মেছতা কমাতে চিকিৎসক অথবা থেরাপির বেছে নেন, তাহলে ২/৩ দিনের মধ্যে কমে যাবে। তবে যদি আপনি প্রাকৃতিক উপাদানে কমান তাহলে কয়েক সপ্তাহ সময় লাগতে পারে।

Leave A Reply

Please enter your comment!
Please enter your name here