পালং শাকের উপকারিতাঃপালং শাক খেলে কি উপকার পাওয়া যাবে?

পালং শাকের উপকারিতা

পালং শাকের উপকারিতা

পালং শাক আমরা সবাই প্রায় কমবেশি খেয়ে থাকি তবে পালং শাকের উপকারিতা সম্পর্কে আমরা খুব কম জানি। বলা হয় এই শাক হিমোগ্লোবিন বাড়াতে সহায়তা করে তবে জানেন কি এই শাক শুধু হিমোগ্লোবিন নয় বরং এই শাকের স্বাস্থ্য সম্পর্কিত অনেক সুবিধা রয়েছে।

পালং শাকে ক্যালরি, প্রোটিন, কার্বোহাইড্রেট, ফাইবারের গুন রয়েছে। পাশাপাশি রয়েছে বিভিন্ন খনিজ লবণ যেমন ক্যালসিয়াম, আয়রন, ম্যাগনেসিয়াম এবং ভিটামিন কে, এ, বি ইত্যাদির ভালো উৎস। নিয়মিত পালং শাক খেলে আমাদের শরীরে নানা ধরণের সমস্যা থেকে রেহাই পাওয়া সম্ভব।

আজকের এই নিবন্ধে আপনাদের পালং শাকের উপকারিতা কথা আপনাদের জানাব। চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক স্বাস্থ্যের জন্য পালং শাকের উপকারিতা।

স্বাস্থ্যের জন্য পালং শাকের উপকারিতা

হিমোগ্লোবিন দূর করেঃ

হিমোগ্লোবিন দূর করেঃ

পালং শাকে আয়রন ভালো মাত্রায় থাকে। এতে উপস্থিত আয়রন শরীর সহজেই শোষণ করে নেয়। এর জন্য পালং শাক খাওয়ার মাধ্যমে হিমোগ্লোবিন বৃদ্ধি পায়। তাই আপনার শরীরে রক্তের হিমোগ্লোবিন কম থাকলে পালং শাক খাওয়া কম করুন।

রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা বাড়ায়ঃ

পালং শাকে উপস্থিত অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট শরীরের ইমিউন সিস্টেম বাড়ানোর পাশাপাশি এই রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা বাড়ায়। এতে বিটা ক্যারোটিন এবং ভিটামিন সি ক্ষয় রোধ করে। পালং শাকের পাচক সিস্টেম শক্তিশালী করে এবং খুদা বৃদ্ধি করে।

হৃদরোগ উপকারিতাঃ

হৃদরোগ উপকারিতাঃ

আমাদের হার্টের জন্যও পালং শাকের উপকারিতা কম কিছু নয়। আমাদের হৃদয়কে সুস্থও রাখতে এই শাকের অনেক গুন। পালং শাকে লুটেইন নামক পদার্থ রয়েছে যা খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কম করে আমাদের হৃদরোগের ঝুঁকির হাত থেকে রক্ষা করে।

আরথ্রাইটিস জন্য ভালোঃ

আমাদের শরীরে জয়েন্টের রোগগুলি যেমন আরথ্রাইটিসের মতো সমস্যাগুলিতে পালং শাক উপকারি। এছাড়াও বাতের ব্যথা, জয়েন্টের ব্যথার ঝুঁকি কমায়। তাই নিয়মিত আমাদের পালং শাক খাওয়া উচিত।

চোখের জন্য উপকারিঃ

চোখের জন্য উপকারিঃ

আমরা জানি সবুজ সবজি আমাদের চোখের জন্য উপকারি। ঠিক তেমনি আমাদের চোখের জন্যও পালং শাক উপকারি প্রচুর। নিয়মিত পালং শাক খাওয়ার মাধ্যমে আমাদের দৃষ্টিশক্তি বাড়ে। যারা চোখে ঝাপসা দেখেন বা কম দেখেন তাদের জন্য এই শাক কিন্তু অসাধারণ কাজ দেবে। যারা চোখে কম দেখে তাদের জন্য গাজরের রসের সঙ্গে পালং শাকের রস মিলিয়ে খেলে ভালো উপকার দেবে।

ত্বকের সমস্যা দূর করতে সহায়তা করেঃ

রুক্ষ ত্বকের রূপচর্চার কাজে পালং শাক উপকৃত। পালং শাক পেস্ট করে মুখে প্রয়োগ করলে ত্বকের শুষ্কতা দূর হয়। এছাড়াও গাজরের রস, পালং শাকের রস এবং লেবুর রস মিলিয়ে খেলে ত্বক সুন্দর এবং নরম হয়।

চুলের জন্য উপকারিঃ

চুলের জন্য উপকারিঃ

পালং শাক শুধু আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য নয় বরং আমাদের চুলের জন্য অত্যন্ত উপকারি। যারা চুল পড়ার সমস্যা ভুগছেন তাদের পালং শাক নিয়মিত খাবারে যোগ করা অবশ্যই প্রয়োজন। কারণ পালং শাক শরীরে আয়রনের অভাব দূর করে চুল পড়া কম করতে সহায়তা করে।

পচনতন্ত্র জন্য উপকারঃ

আধ গ্লাস কাঁচা পালং এর রস পান করলে নিয়মিত পান করলে কিছুদিনের মধ্যে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা দূর হয়। অন্ত্রের রোগের জন্য পালং শাকের সবজি খেলে উপকারি। তাই আমাদের পচনতন্ত্র ভালো রাখেত নিয়মিত এই শাক খাওয়া জরুরী।

পেশী শক্তিশালী করেঃ

পেশী শক্তিশালী করেঃ

ভিটামিন কে হাড় গঠনের জন্য উপকারি উপাদান। আর পালং শাক ভিটামিন কে এর একটি ভালো উৎস। আমাদের পেশী শক্তিশালী করার জন্য প্রত্যেকের খাবারে পালং শাক যোগ করা প্রয়োজন।

শরীর শক্তিশালী করেঃ

পালং শাকে উপস্থিত ফ্ল্যাভোনয়েড অ্যান্টি অক্সিডেন্টের কাজ করে। ইমিউন সিস্টেম বাড়ানোর পাশাপাশি, এই উপাদান কার্ডিওভাসকুলার রোগের জন্যও সহায়ক। এছাড়াও এতে বিটা ক্যারোটিন এবং ভিটামিন সি রয়েছে যা পাচক সিস্টেম শক্তিশালী করে এবং খিদে বৃদ্ধি করতে সহায়ক।

সারকথাঃ

পালং শাক মানসিক চাপ কমাতে সহায়তা করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here