১০ টি ভিটামিন ই সমৃদ্ধ পুষ্টিকর খাবার তালিকা

আমাদের শরীরের জন্য ভিন্ন ধরণের ভিটামিনের ভিন্ন ধরণের স্বাস্থ্যবিধি সুবিধা রয়েছে। ভিটামিন আমাদের দেহের অঙ্গগুলির বিকাশে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে পাশাপাশি আমাদের শরীরের অনেক রোগ প্রতিরোধ করে। তার মধ্যে ভিটামিন ই আমাদের শরীরের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। এই ভিটামিন শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় এবং শরীরকে অ্যালার্জির হাত থেকে রক্ষা করে।

ভিটামিন-ই

Source

ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবার (vitamin e food) নিয়মিত আমাদের খাদ্য তালিকায় রাখলে আমাদের কম বয়সে ত্বকে বয়সের ছাপ ধীরে ধীরে কমে যায়। এছাড়াও এটি আমাদের চুল গজাতে সহায়তা করে। সুস্থ এবং নিজের ত্বককে সুন্দর রাখতে আমাদের খাবারে নিয়মিত ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবার যুক্ত করতে হবে। তবে তার আগে জেনে নিন ভিটামিন ই জাতীয় খাবার কি কি।

ভিটামিন ই

Source

শাক সবজি, মাছ, বাদাম ছাড়াও আরও কিছু খাবার রয়েছে যাতে ভিটামিন উচ্চ পরিমাণে রয়েছে। তাই আজকের নিবন্ধে আমরা আপনাদের সঙ্গে ভিটামিন ই যুক্ত খাবার এর তালিকা শেয়ার করে নেব। আসুন তাহলে দেখে নেওয়া যাক ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবারের তালিকা।

ভিটামিন-ই কি

Source

Table of Contents

ভিটামিন-ই কি (What is Vitamin E) 

ভিটামিন ই সংশ্লেষগুলির একটি গ্রুপ যা টোকোফেরল এবং টোকোট্রিয়েনল উভয়ই অন্তর্ভুক্ত। ভিটামিন ই একটি চর্বিযুক্ত দ্রবণীয় ভিটামিন এবং এতে শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে যা ত্বককে ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করে। এই ভিটামিনে একধরণের অ্যান্টি অক্সিডেন্ট রয়েছে যা শরীরের বিভিন্ন গুরুত্বর রোগ থেকে আমাদের রক্ষা করার ক্ষমতা রাখে।

আরও পড়ুন | ৭ টি প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার যা আপনার ডায়েটে থাকা উচিত

ভিটামিন-ই এর উৎস

Source

ভিটামিন ই এর উৎস কি কি (Source of Vitamin-E) 

ভিটামিন ই চর্বিযুক্ত দ্রবণীয় যৌগিক পরিবার থেকে আসে।  প্রচুর খাবারে ভিটামিন ই রয়েছে। বিভিন্ন খাবার যেমন চিনাবাদাম, আখরোট, বাদাম, উদ্ভিজ্জ তেল, কুসুম, গম, সয়াবিন এবং সূর্যমুখী ইত্যাদি ভিটামিন ই এর প্রাকৃতিক উৎস। এর সাথে সূর্যমুখী বীজ এবং শাকের মতো সবুজ শাকসব্জিতেও ভিটামিন ই পাওয়া যায়।

ভিটামিন-ই গ্রহণে কি কি উপকার পাওয়া যায়

Source

ভিটামিন-ই গ্রহণে কি কি উপকার পাওয়া যায় (What are the benefits of taking Vitamin-E)

ভিটামিন ই আমাদের দেহের কোষগুলিকে সুস্থ রাখতে কাজ করে। এটি মানুষের ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করে।ক্যান্সার , হৃদরোগ এবং অ্যামনেসিয়া জাতীয় অনেক ধরণের স্বাস্থ্য সমস্যা হ্রাস করতে সহায়তা করে। এছাড়াও ভিটামিন ই এর ত্বক এবং চুলের পক্ষে উপকারিতা রয়েছে। ভিটামিন ই এর সুবিধার কারণে আমরা ছানি পড়ার মতো সমস্যা এড়াতে পারি।

ভিটামিন-ই এর উৎস

Source

ভিটামিন-ই রোজ কতটা পরিমাণ গ্রহণ করা উচিত (How much vitamin-E should be taken daily) 

০-৬ মাস পর্যন্ত ৪ মিলিগ্রাম ভিটামিন ই, ৭-১২ মাস পর্যন্ত ৫ মিলিগ্রাম, ১-৩ বছর পর্যন্ত ৬ মিলিগ্রাম, ৪-৮ বছর বয়সে ৭ মিলিগ্রাম ভিটামিন ই পাওয়া যায় এবং ৯-১৩ বছর পর্যন্ত ১১ মিলিগ্রাম ভিটামিন ই প্রয়োজন।

ভিটামিন ই আরইডি অনুসারে, ১৪ বছরের  বেশি বয়সীদের জন্য প্রতিদিন ১৫ মিলিগ্রাম ভিটামিন ই নেওয়া উচিত। তবে যারা বুকের দুধের খাওয়ান সেই সমস্ত মহিলাদের ১৯ মিলিগ্রাম নেওয়া উচিত।

Source

ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবারের তালিকা । vitamin e foods list in bengali

  1. সূর্যমুখীর বীজ ভিটামিন ই খাবার
  2. সবুজ শাক সবজি ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবার
  3. অ্যাভোকাডো ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবার
  4. মাছ ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবার
  5. পালং শাক ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবার
  6. কাঠ বাদাম ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবার
  7. চীনা বাদাম ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবার
  8. সয়াবিন তেল ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবার
  9. ব্রোকলি ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবার
  10. কিউই ফল ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবার
  • সূর্যমুখীর বীজ ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবারঃ

সূর্যমুখীর বীজ ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবারঃ

Source

সূর্যমুখীর বীজ ভিটামিন ই এর ভালো উৎস। এতে একধরণের উপাদান মজুত রয়েছে যা আমাদের শরীরকে অস্টিওআর্থ্রাইটিস এবং ক্যান্সারের হাত থেকে দূরে রাখতে সহায়তা করে। এছাড়াও এটি আমাদের শরীরের অ্যান্টি অক্সিডেন্টের কাজ করে পাশাপাশি আমাদের শরীরের অতিরিক্ত ফ্যাট ঝরিয়ে আমাদের বডি ফিট রাখে।

Key Point:  100 গ্রাম সূর্যমুখী বীজে 35 মিলিগ্রাম ভিটামিন সমৃদ্ধ খাবার রয়েছে।

আরও পড়ুন | ওজন বাড়ানোর খাবার তালিকা জেনে রাখুন

  • সবুজ শাক সবজি ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবারঃ

সবুজ শাক সবজি ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবারঃ

Source

আমরা জানি আমাদের শরীরের বিকাশের জন্য সবুজ শাক সবজি খাওয়া দরকার। নিয়মিত খাবার তালিকায়  সবুজ শাক সবজি রাখতে হবে না হলে দেহের রোগ প্রতিরোধ করা সম্ভব নয়। কারণ শাক সবজিতে প্রোটিন, খনিজ এবং ভিটামিন ই সমৃদ্ধ থাকে যা আমাদের সুস্থও থাকতে প্রয়োজন। এই জন্যই ডাক্তার আমাদের ডায়েট চার্টে নিয়মিত সবুজ শাক সবজি রাখার পরামর্শ দেয়।

Key Point: আমাদের শরীরে আয়রনের কারণে অ্যানিমিয়া রোগ হয়। সবুজ শাক সবজিতে প্রচুর পরিমাণে আয়রন রয়েছে যা অ্যানিমিয়া থেকে কোন ব্যক্তিকে রক্ষা করতে পারে।

আরও পড়ুন | জেনে নিন, শিশুদের জন্য স্বাস্থ্যকর খাবার এ কী কী রাখা জরুরী

  • অ্যাভোকাডো ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবারঃ

অ্যাভোকাডো ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবারঃSource

অ্যাভোকাডো ফলের উপকারিতা আমারা আগেও আপনাদের জানিয়েছিলাম। অ্যাভোকাডো (vitamin e fruits) পটাসিয়ামের পাশাপাশি উচ্চ ভিটামিন ই সমৃদ্ধ রয়েছে। যা আমাদের হার্ট অ্যাটাক এবং স্ট্রোকের সম্ভবনা অনেকাংশ হ্রাস করে। এতে উপস্থিত ভিটামিন ই আমাদের শরীরের খারাপ কোলেস্টেরল সরিয়ে দেহে রক্ত সঞ্চালন স্বাভাবিক রাখে।

Key Point: 100 গ্রাম অ্যাভোকাডোয় প্রায় 2.1 মিলিগ্রাম ভিটামিন রয়েছে যা আমাদের নিয়মিত ভিটামিনের অভাব পূরণ করে।

আরও পড়ুন | ৮ টি লিভার ভালো রাখার খাবার তালিকা

  • মাছ ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবারঃ

মাছ ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবারঃ

ডিম, মাছ, মাংস আমাদের খাদ্য তালিকায় তো রাখতে হয়। তবে কেন জানের তাদের পুষ্টিগুণের জন্য। যেমন মাছ ভিটামিন ই এর ভালো উৎস। মাছ উপস্থিত ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিড আমরা বয়স বাড়ার সাথে সাথে খেলে হৃদরোগের ঝুঁকি ৩০ শতাংশ কম হয়। এছাড়াও আমাদের রোগ প্রতিরোধের করতে হলে নিয়মিত খাবার তালিকায় মাছ রাখা জরুরী।

Key Point:  100 গ্রাম রেইনবো ট্রাউট মাছে 2.8 মিলিগ্রাম ভিটামিন ই সমৃদ্ধ রয়েছে।

  • পালং শাক ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবারঃ

পালং শাক ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবারঃSource

স্বাস্থ্যকর সবজিগুলির মধ্যে পালং শাক একটি পুষ্টিকর সবজি। কারণ এই সবজিটি ভিন্ন ধরণের ভিটামিন এবং খনিজে ভরপুর। বিশেষ করে ভিটামিন ই। আপনি সালাদের মাধ্যমে এই সবজিটি গ্রহণ করতে পারেন অথবা রান্না করে খেতে পারেন। তবে ভিটামিন ই শরীরে প্রবেশ করানোর জন্য এই সবজিটি অবশ্যই আপনার ডায়েটে যোগ করুন।

Key Point: 100 গ্রাম পালং শাকে 2.3 মিলিগ্রাম ভিটামিন ই রয়েছে।

আরও পড়ুন | দৌড়ানোর পর খাবারঃ দৌড়ানোর পর খাদ্য তালিকা কি কি রাখা উচিত?

  • কাঠ বাদাম ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবারঃ

কাঠ বাদাম ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবারঃSource

কাঠ বাদাম এনার্জির চাবিকাঠি। নিয়মিত একমুঠো বাদাম আমাদের হার্ট ভালো রাখবে এবং কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে দূরে রাখবে। এতে ক্যালরি উচ্চ হলে ভিটামিন ই ভালো উৎস।

Key Point: প্রতি 100 গ্রাম কাঠ বাদাম খাওয়ার মাধ্যমে 26 মিলিগ্রাম ভিটামিন ই আমাদের শরীরে প্রবেশ করে।

  • চীনা বাদাম ভিটামিন সমৃদ্ধ খাবারঃ

চীনা বাদাম ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবারঃ

চীনা বাদাম ভিন্ন রকমের স্বাস্থ্যের সমস্যা জন্য উপকারী। এতে ক্যালরির পরিমাণ কম থাকে যার জন্য ওজন অতিরিক্ত বাড়ে না। পাশাপাশি এতে উচ্চ ফাইবার, ম্যাগনেসিয়াম এবং ভিটামিন ই উৎস। এটি আমাদের হাড়ের শক্তিশালী করার জন্য খুব উপকারী খাদ্য। তাই ভিটামিন ই অভাব পূরণ করতে এই সবজিটি আপনার নিয়মিত ডায়েটে যোগ করুন।

Key Point: 100 গ্রাম চীনা বাদাম খাওয়ার মাধ্যমে 8.3 মিলিগ্রাম ভিটামিন ই পাওয়া যায়।

আরও পড়ুনঃ আদর্শ খাবারের তালিকা ও তার শ্রেণীবিভাগ

  • সয়াবিন তেল ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবারঃ

সয়াবিন তেল ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবারঃ

Source

সয়াবিন তেল ভিটামিন ই এর ভালো উৎস। সয়াবিন তেলে ভিটামিন ই ভালো পরিমাণে রয়েছে। এটি অনেক বাড়িতেই রান্নার জন্য ব্যবহার করা হয়।

Key Point: 100 গ্রাম সয়াবিন তেলে সম্ভবত 8.8 মিলিগ্রাম ভিটামিন ই রয়েছে।

  • ব্রোকলি ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবারঃ

ব্রোকলি ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবারঃ

Source

ওজন কমাতে এটি খুব উপকারী, এটি রান্না করে খাওয়া যায়। এটি সিদ্ধ করে খাওয়াও যায়। এটি ভিটামিন ই এর ভালো উৎস যা সহজেই আপনি বাজারে পেয়ে যাবেন। এটি হাড় এবং ত্বককে স্বাস্থ্যকর রাখতে সহায়তা করে।

Key Point: 91 গ্রাম ব্রোকলি খাওয়ার মাধ্যমে প্রতিদিন প্রয়োজনের ৪ শতাংশ ভিটামিন ই পাওয়া যায়।

  • কিউই ফল ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবারঃ

কিউই ফল ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবারঃ

Source

পুষ্টি সমৃদ্ধ কিউই বিভিন্ন স্বাস্থ্য সমস্যার জন্য উপকার রয়েছে। এটি ভিটামিন যুক্ত খাবার যা প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। কিউই ফলের মধ্যে সেরোটোনিন থাকে,এটি অনিদ্রা নিরাময়ে সহায়তা করে। আপনি এটি দইয়ের সাথে মিশিয়ে এটি খেতে পারেন।

Key Point: 177 গ্রাম কিউই ফল প্রতিদিনের প্রয়োজনের 13 শতাংশ সরবরাহ করে।

এই ১০ টি খাবার ছাড়াও আরও কিছু ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবার রয়েছে। তবে এই খাবারগুলি নিয়মিত খাদ্য তালিকায় রাখলে শরীরে ভিটামিন ই এর অভাব পূরণ হবে।

ভিটামিন-ই এর সাইড এফেক্ট (Side effects of Vitamin-E)

ভিটামিন আমাদের দেহের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তবে এটি অতিরিক্ত মাত্রায় গ্রহণ করলে কিছু সাইড এফেক্ট দেখা যায়। অতিরিক্ত মাত্রায় খেলে এটি শরীরে জমা হতে পারে কারন এটি ফ্যাট দ্রবণীয়।

সচরাচর জিজ্ঞাস্য প্রশ্ন উত্তরঃ

Q. কোন খাবারে সবচেয়ে বেশি ভিটামিন ই রয়েছে?

A. সূর্যমুখী বীজ, সয়াবিন তেল, কাঠ বাদামে সবচেয়ে বেশি ভিটামিন ই রয়েছে।

Q. কোন তেলে ভিটামিন ই উচ্চ পরিমাণে রয়েছে?

A. অলিভ অয়েল, সূর্যমুখী তেল এবং বাদাম তেলে ভিটামিন ই উচ্চ পরিমাণে রয়েছে।

Q. কোন ফলে ভিটামিন ই উচ্চ পরিমাণে রয়েছে?

A. আভোকাডো, কিউই ফল, আমে ভিটামিন ভালো পরিমাণে রয়েছে।

Q. ডিমে কি ভিটামিন ই রয়েছে?

A. হ্যাঁ, ডিমে অল্প পরিমাণে ভিটামিন ই রয়েছে।

Q. ভিটামিন ই কি ব্রণের জন্য উপকারি?

A. ব্রণের দাগ দূর করতে ভিটামিন ই উপকারি।

Q. কাঠ বাদামে ভিটামিন ই কি থাকে?

A. কাঠ বাদামে উচ্চ পরিমাণে ভিটামিন ই থাকে।

Q. ভিটামিন ই গ্রহণে সাইড এফেক্ট কি?

A. ভিটামিন ই আমাদের শরীরের জন্য খুব উপকারি। তবে অতিরিক্ত পরিমাণে গ্রহণের পরে এটি শরীরে জমা হতে শুরু করে। কারণ এটি ফ্যাট দ্রবণীয়। তাই অনেক রকমের সমস্যা দেখা দিতে পারে যেমন-ক্লান্তি, গ্যাস, ডায়রিয়া, মাথা ব্যথা ইত্যাদি সমস্যা হতে পারে।

Q. ভিটামিন ই নিলে চুল কি দ্রুত গজায়?

A. ভিটামিন ই চুল গজাতে সহায়তা করে।

Q. ভিটামিন ই কি ত্বকের জন্য ভালো?

A. ভিটামিন ই ত্বকের জন্য অত্যন্ত কার্যকর।

2 Comments

Leave A Reply

Please enter your comment!
Please enter your name here