ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য পুষ্টিকর খাবারের তালিকা

Nutritious food list

বর্তমানে ডায়াবেটিস একটি মারাত্মক রোগ। বয়স্কদের পাশাপাশি কমবয়সী ছেলেমেয়েদেরও এই রোগ হতে পারে। শরীরে ইনসুলিন নামক হরমোনের অভাব দেখা গেলে অথবা রক্তে গ্লুকোজের পরিমাণ বেড়ে গেলে ডায়াবেটিস দেখা যায়। ডায়াবেটিস সম্পূর্ণভাবে নির্মূল হয় না। কিন্তু নিয়ম মেনে চললে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়। ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ রাখতে খাবারের তালিকায় পুষ্টিকর খাবার রাখা অত্যন্ত জরুরী।

ডায়াবেটিস থাকলে সঠিক পুষ্টিকর খাবারগুলি খুঁজে বের করা কঠিন হতে পারে। তাই এখানে রইল ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য পুষ্টিকর খাবারের তালিকা –

Nutritious food list

সূত্র :- medicalnewstoday . com

পুষ্টিকর খাবারের তালিকা

  1. ফ্যাটি মাছঃ

ফ্যাটি মাছ একটি পুষ্টিকর খাবার। সালমন, সার্ডিন, হেরিং এ রয়েছে ওমেগা ৩। যা ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ রাখার পাশাপাশি হার্টের পক্ষে গুরুত্বপূর্ণ।

সারকথাঃ

ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিড হার্টের রোগ ও স্ট্রোকের ঝুঁকি হ্রাস করে।

সবজিঃ

সূত্র :- healthline . com

  1. সবজিঃ

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রনের জন্য পুষ্টিকর খাবারের তালিকা সবজি রাখাটা জরুরী। সবুজ শাক সবজি (যেমন সর্ষে শাক, মুলা শাক, পালং শাক ইত্যাদি) রক্তে সুগারের মাত্রা কমাতে উপকারি।

রাতে রুটির সাথে হালকা সবজি খেতে পারেন।

ডিমঃ

সূত্র :-  simplyhappyfoodie . com

  1. ডিমঃ

পুষ্টিকর খাবারের তালিকা য় ডিম স্বাস্থ্যকর খাবার। অনেকের ভুল ধারণা, ডিম খেলে কোলেস্টেরলের মাত্রা বেড়ে যায়।

চিকিৎসকরা, ডায়াবেটিস আক্রান্ত রোগীদের খাদ্যতালিকায় ডিম যোগ করেছেন। ডিম প্রোটিনের উৎস। এতে রয়েছে ভিটামিন বি ও এ। যা হৃদরোগের ঝুঁকি কমানোর পাশাপাশি ওজন নিয়ন্ত্রণ রাখে।

সারকথাঃ

ডিমের কুসুমের চেয়েও সাদা অংশটি খুব উপকারি। এতে উচ্চ মানের প্রোটিন আছে।

দুধঃ

সূত্র :- thrillist . com

  1. দুধঃ

দুধ হল ডায়াবেটিস রুগীদের জন্য উপকারি খাবার। দুধে রয়েছে ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন ডি। যেহেতু ডায়াবেটিস রোগীদের চিনি খাওয়া যাবে না। তাই চিনি ছাড়া প্রতিদিন এক গ্লাস করে দুধ পান করবেন।

গুরুত্বপূর্ণ নোটসঃ

বাইরের দুধ মিশ্রিত খাবার এড়িয়ে চলবেন। কারণ তাতে চিনি মিশ্রিত থাকতে পারে।

  1. টক দইঃ

টক দইয়ে আছে প্রচুর পরিমাণ ক্যালসিয়াম, ভিটামিন ও ল্যাকটিক অ্যাসিড। এটি ডায়াবেটিস রুগীদের শরীরে উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে। রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়।

ডায়াবেটিস রোগীদের প্রতিদিন এক কাপ করে টক দই খাওয়া উচিত।

বাদামঃ

সূত্র :- nuts . com

  1. বাদামঃ

বাদাম একটি সুস্বাদু পুষ্টিকর খাবার। গবেষণায় দেখা যায়, চীনা বাদাম ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমায়। প্রতিদিন খাবারের তালিকায় কাজুবাদাম ও আখরোট জাদুর মতো কাজ করে।

 

সারকথাঃ

বাদাম একটি সুস্থ সংযোজন ডায়াবেটিক খাদ্য।

  1. গ্রীন টিঃ

গ্রীন টি ইনসুলিনের মতো কাজ করে। এতে রয়েছে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট যা উচ্চ রক্তচাপ কমিয়ে ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করতে সক্ষম।

সারকথাঃ

গ্রীন টি স্বাস্থ্যের পক্ষে উপকার। এটি ওজন কমাতে সাহায্য করে।

কমলালেবুঃ

সূত্র :- en . wikipedia . org

  1. কমলালেবুঃ

চিকিৎসকদের মতে, ভিটামিন সি এর অভাবে ডায়াবেটিস লক্ষণ দেখা যায়।

কমলালেবুতে রয়েছে ভিটামিন সি যা শরীরে ভিটামিনের অভাব পূরণ করে। কমলালেবু ছাড়াও যেকোনো টক জাতীয় লেবু খাদ্যের তালিকায় রাখতে পারেন।

সম্পর্কিত নিবন্ধ চেক করুন :-

সারকথাঃ

পুষ্টিকর খাদ্য তালিকায় একটি অন্যতম স্বাস্থ্যকর খাবার ফল।

  1. বাঁধাকপিঃ

পুষ্টিকর খাবারের গুনে বাঁধাকপির তুলনা নেই। এটি পটাশিয়াম যুক্ত হওয়ার জন্য ধমনির রক্ত প্রবাহকে সহজ রাখে এবং ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণ রাখে।

ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য বাঁধাকপি সেদ্ধ করে খাওয়া উপকার।

ওটসঃ

সূত্র :- fitfoodiefinds . com

  1. ওটসঃ

ওটসে প্রচুর পরিমাণ ফাইবার রয়েছে। যা উচ্চ রক্তচাপ কমায়। তাই ওটস তৈরি যে কোন ধরনের খাবার ডায়াবেটিস রোগীদের পক্ষে উপকার।

এছাড়াও কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ রাখতে সাহায্য করে। তাই ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য পুষ্টিকর খাবারের তালিকা ওটস রাখবেন।

  1. মাংসঃ

মাছ হোক বা মাংস খাবারের তালিকায় থাকতেই হবে। ডাক্তারদের পরামর্শে অনুযায়ী, ডায়াবেটিসদের পক্ষে কম চর্বিযুক্ত মাংস খাওয়া ভালো।

পুষ্টিকর খাবারের পাশাপাশি প্রতিদিন বেশি করে জল পান করবেন সঙ্গে ডাক্তারের পরামর্শ নেবেন। নিয়মিত ডায়েটে থাকলে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব।

সারকথাঃ

গবেষণায় দেখা যায়, ডায়াবেটিস রোগীদের উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য দিনে তিনবেলা অল্প খাবার ( একবারে অতিরিক্ত খাবার নয় ) ও দুইবেলা স্ন্যাকস খাওয়া জরুরি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here