কমলালেবু খাওয়ার উপকারিতাঃ কমলালেবুর নানাবিধ উপকারিতা

কমলালেবুর পুষ্টিগুণঃ

কমলালেবু শীতকালে খেতে বেশ মজার। এমন একটি ফল যা মানুষ না খেয়ে থাকতে পারে না। শীতের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত এই মৌসুমি ফলটি পাওয়া যায় অহরহ। মানুষের শরীরে ভিটামিন “সি” সবসময় প্রয়োজন। আর আমরা সবাই জানি তা কমলালেবুতেই রয়েছে। কমলালেবু ভেতরের অংশই আর বাইরের খোসা সবই পুষ্টিগুনে ভরপুর। কমলালেবু খাওয়ার উপকারিতা নানাবিধ।

কমলালেবুতে ভিটামিন “সি” ছাড়াও রয়েছে ক্যালসিয়াম, কার্বোহাইড্রেট, ফ্ল্যাভনয়েড, ফাইবার, পটাশিয়াম, আয়রন। তাহলে বুঝতেই পারছেন কোন কিছুর অভাব নেই এই সুস্বাদু ফলটিতে। এটি এমন একধরণের ফল যা বিশ্বের জনপ্রিয়তার শিখরে। শুধু এটি ফল হিসাবে খাওয়ার জন্যই এটি জনপ্রিয় নয়, যে কোন রান্নার ডিশে অথবা সকাল বিকালের জুসে কমলালেবুর কদর রয়েছে । শিশুদের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে এটা কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা বলে বর্ণনা করা যাবে না। যাইহোক, কমলালেবু ত্বকের জন্য যে উপকার তা আমরা আগেই জেনেছি। তাই আজ জানাব স্বাস্থ্যের জন্য কমলালেবু খাওয়ার উপকারিতা। তাই আজকের এই নিবন্ধনে আপনাদের জন্য রইল কমলালেবুর নানাবিধ উপকারিতা।

কমলালেবুর পুষ্টিগুণঃ

সূত্র :- elhstalon . net

কমলালেবুর পুষ্টিগুণঃ

কমলালেবু সাইট্রাস জাতীয় ফল। রুটেসে পরিবারের অন্তর্গত। বিশ্বের সমস্ত জায়গায় এই ফলটি পাওয়া সম্ভব। পুষ্টিগুণে ভরপুর কমলালেবু সমৃদ্ধ। কমলালেবুতে রয়েছে-

• কার্বোহাইড্রেট – ১০০ গ্রাম কমলালেবুতে রয়েছে কার্বোহাইড্রেট ১১.৭৫ শতাংশ।
• পটাশিয়াম – ১০০ গ্রাম কমলালেবুতে পটাশিয়াম রয়েছে ১৬৯ মেগাগ্রাম।
• ক্যালরি – ১০০ গ্রাম কমলালেবুতে রয়েছে ৪৭ ক্যালরি ।
• ফাইবার – ১০০ গ্রাম কমলালেবুতে রয়েছে ২.৪০ গ্রাম ফাইবার।
• ক্যালসিয়াম – ১০০ গ্রাম কমলালেবুতে রয়েছে ৪ শতাংশ আরডিআই।
• আয়রন – ১০০ গ্রাম কমলালেবুতে রয়েছে ১ শতাংশ আরডিআই
• ভিটামিন “সি”- প্রতি ১০০ গ্রাম কমলালেবুতে রয়েছে ৯০ শতাংশ।
• ভিটামিন “এ” – প্রতি ১০০ গ্রাম কমলালেবুতে রয়েছে ৭.৫ শতাংশ।

কমলালেবু খাওয়ার উপকারিতা নানাবিধঃ

শীতকালে নিয়মিত কমলালেবু স্বাস্থ্য ভালো রাখতে কার্যকর। কমলালেবু শরীরে সমস্ত রকমের পুষ্টি অভাব পূরণ করতে সহায়তা করে। এখানে নিয়মিত কমলালেবু খওয়ার উপকারিতা রইল।

1. রক্তচাপ নিয়ন্ত্রনে রাখে কমলালেবুঃ

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রনে রাখে কমলালেবুঃ

সূত্র :- epmgsenior.media.clients.ellingtoncms . com

কমলালেবুতে বিদ্যমান ফাইবার রক্তে শর্করা পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ রাখতে সহায়তা করে। তাই ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য কমলালেবু একটি ভালো খাবার। তাছাড়া কমলালেবু উপস্থিত ম্যাগনেসিয়াম উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রেখে কিডনির ফাংশন ভালো রাখে।

নোটসঃ
কমলালেবুতে অল্প পরিমাণে খাবেন। অতিরিক্ত পরিমাণ কমলালেবু ইনসুলিনের মাত্রা বৃদ্ধি করতে পারে এবং ওজন বাড়িয়ে দিতে পারে।

2. চামড়ার ক্ষতি প্রতিরোধ করে কমলালেবুঃ

কমলালেবুতে রয়েছে অ্যান্টি- অক্সিডেন্টস বৈশিষ্ট্য , যা চামড়ার ক্ষতি হওয়ার হাত থেকে রক্ষা করে। এছাড়াও এতে রয়েছে ভিটামিন “সি” যা ত্বক ভালো রাখতে অসাধারণ। ভিটামিন “সি” ত্বকের পুষ্টি এবং ত্বকের জেল্লা ধরে রাখতে সক্ষম। আপনি যদি স্ক্রিন ভালো রাখতে চান, তাহলে তো ত্বকে কমলালেবু ব্যবহারের পাশাপাশি নিয়মিত স্বল্প পরিমাণ কমলালেবু খেতেও হবে।

3. ইমিউনিটি সিস্টেম প্রতিরক্ষা করেঃ

ইমিউনিটি সিস্টেম প্রতিরক্ষা করেঃ

সূত্র :- images.agoramedia . com

ভিটামিন “সি” ও “এ” ইমিউনিটি সিস্টেম ফাংশন সুস্থ রাখে। আর এই দুটি উপাদানই বিদ্যমান রয়েছে কমলালেবুর মধ্যে। এর জন্য ইমিউনিটি সিস্টেম প্রতিরক্ষার জন্য কমলালেবু খাওয়া উপকার।

4. ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায় কমলালেবুঃ

কমলালেবুতে একধরনের উপাদান রয়েছে, ডি- লিমোনেন। যা ফুসফুস, স্তন, স্ক্রিন ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে পারে। কমলাতে উপস্থিত ভিটামিন সি এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্টসমূহ শরীরের রোগ প্রতিরোধের জন্য উভয়ই গুরুত্বপূর্ণ, যা ক্যান্সারের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সহায়তা করে।

সারকথাঃ
ডিএনএ (DNA) পরিবর্তনের কারণে বেশিরভাগ ক্যান্সার দায়ী, যা ভিটামিন “সি” দ্বারা প্রতিরোধ করা সম্ভব।

5. দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখেঃ

দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখেঃ

সূত্র :- i.ndtvimg . com

ভিটামিন “সি” যুক্ত খাবার চোখের দৃষ্টিশক্তির জন্য খুব উপকার। কমলালেবু ভিটামিন “সি” ভালো উৎস। যা অন্যান্য বায়োফ্লাভোনয়েড যৌগসমূহের পাশাপাশি দৃষ্টিশক্তি নষ্ট হয়ে যাওয়ার অন্ধত্ব থেকে চোখ রক্ষা করতে সহায়তা করে।

সারকথাঃ
কমলাগুলি ক্যারোটিনয়েড একটি সমৃদ্ধ উৎস ।

6. দাঁত ভালো রাখেঃ

মুখের যত্নের কথা বলতে হলে আমাদের প্রথমে দাঁত এবং মাড়ি সুরক্ষার কথা প্রথমে ভাবা উচিত। দাঁতে জমে থাকা ব্যাকটেরিয়া করতে পারে মাড়ির ক্ষতি। মাড়ির যত্নে কমলালেবু খুব উপকার। এই সাইট্রাস ফলগুলি রক্ত বাহিকা এবং টিস্যুগুলি মজবুত করে পাশাপাশি মাড়ি সুস্থ রাখে। নিয়মিত একটি কমলালেবু দাঁতের ব্যাকটেরিয়া দূর করে দাঁতের ক্ষয় প্রতিরোধ করে এবং মুখের দুর্গন্ধ দূর করে ।

7. রক্ত পরিষ্কার রাখতে সহায়তা করে কমলালেবুঃ

রক্ত পরিষ্কার রাখতে সহায়তা করে কমলালেবুঃ

সূত্র :- offthegridnews . com

কমলালেবু তে রয়েছে ফ্ল্যাভোনেড যা শরীরের ক্ষতিকারক পদার্থ বের করে শরীরে রক্ত পরিষ্কার করতে সাহায্য করে।

8. রোগ প্রতিরোধ কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি করেঃ

কমলালেবুতে রয়েছে ভিটামিন “সি” এবং অ্যান্টি- অক্সিডেন্ট, যা রোগ প্রতিরোধের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি করে ছোট খাটো রোগ ব্যাধি থেকে রক্ষা করে।
নিয়মিত মাত্রাতিরিক্ত কমলালেবু খাবেন না। প্রতিদিন ১ টা করে কমলালেবু খাবেন।

আশাকরি, কমলালেবু খাওয়ার উপকারিতা নিবন্ধনটি আপনাদের ভালো লাগবে।

সারকথাঃ
কমলালেবু প্রথমে ভারতের উত্তর-পূর্ব অংশ, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া এবং চীনের দক্ষিণে উৎপন্ন হয়েছিল ।

সচরাচর জিজ্ঞাস্য প্রশ্ন উত্তরঃ

  • নিয়মিত কটা করে কমলালেবু খাওয়া উচিত?
  • নিয়মিত ১ টা করে কমলালেবু খাবেন।
  • মাত্রা অতিরিক্ত কমলালেবু খেলে কি হবে?
  • ডায়াবেটিস রোগীদের স্বাস্থ্যের জন্য খারাপ। রক্তে চিনির মাত্রা বেড়ে যেতে পারে।
  • কমলালেবুর জুস স্বাস্থ্যের জন্য কি উপকার?
  • অবশ্যই, কমলালেবুর জুস খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য ভালো।
  • কমলালেবু বাচ্চাদের জন্য কি খাওয়া ভালো হবে?
  • বাচ্চাদের জন্য কমলালেবুর জুস খাওয়ানো ভালো।
  • কমলালেবু খেলে কি ওজন বেড়ে যেতে পারে?
  • অল্প পরিমাণে খেলে ক্ষতি নেই, তবে বেশি খেলে ওজন বেড়ে যেতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here