শেয়ার ব্যবসা সম্পর্কিত বিভিন্ন তথ্য জেনে রাখুন

শেয়ার ব্যবসা

আমরা আমাদের পেজে এর আগে শেয়ার বাজার সম্পর্কিত বিভিন্ন তথ্য আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করেছিলাম। আজ আবার আপনাদের শেয়ার ব্যবসা সম্পর্কিত কিছু তথ্য আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করব। আজকের এই আলোচনায় আমি আপনাদের শেয়ার ব্যবসা সম্পর্কে কিছু সাধারণ তথ্য জানাব।

শেয়ার ব্যবসা

Source

আজকের দিনে টাকা উপার্জন করতে সবাই চায়। কারণ টাকা থাকলে মানুষ তার স্বপ্ন পূরণ করতে পারে। পৃথিবীতে হয়তো এমন মানুষ বিরল যারা টাকা উপার্জন করতে চায় না। কারণ একটা মানুষের জীবিত থাকার জন্য অর্থ উপার্জন করাটা অত্যন্ত জরুরী।

মানুষ বিভিন্ন উপায়ে অর্থ উপার্জন করে থাকে। কেউ চাকরি করে আবার কেউ ব্যবসা করে অথবা কেউ কোন খাতে টাকা খাতিয়ে। সে যেভাবেই উপার্জন করুক না কেন যেকোনো পেশা বেছে নেওয়া জন্য তার সম্পর্কিত কিছু ধারণা থাকা দরকার।

শেয়ার মার্কেট

অনেকে আবার নিজের পেশা হিসাবে শেয়ার মার্কেটকে বেছে নেয়। শেয়ার মার্কেটে টাকা খাটিয়ে প্রচুর টাকা উপার্জন করে। তবে তার আগে শেয়ার মার্কেটে টাকা বিনিয়োগের জন্য শেয়ার ব্যবসা সম্পর্কে সমস্ত ধারণা জানা দরকার। তাই আজকে এই নিবন্ধে আমি আপনাদের শেয়ার ব্যবসা সম্পর্কে সাধারণ তথ্য আপনাদের জানাব।

শেয়ার ব্যবসা বা শেয়ার বাজারে ব্যবসা বলতে কি বোঝায়?

Source 

শেয়ার ব্যবসা কি (What is Share business) 

শেয়ার ব্যবসা অথবা শেয়ার বাজার বলতে এমন এক মার্কেট বোঝায় যেখানে অনেক কোম্পানির শেয়ার কেনা বা বেচা হয়ে থাকে। এই ব্যবসা এমন একধরণের ব্যবসা যেখান থেকে মানুষ, হয় প্রচুর উপার্জন করে বা নিজের সমস্ত অর্থ বিনিয়োগ করে হারিয়ে ফেলে।

কোন কোম্পানির শেয়ার কেনার মানে সেই কোম্পানির মালিকনা হয়ে যাওয়া। অর্থাৎ আপনি যেই কোম্পানির শেয়ার কিনবেন অথবা বিনিয়োগ করবেন সেই হিসাব অনুযায়ী আপনি সেই কোম্পানির ওই অংশের মালিকনার দায়িত্ব আপনার হবে। কোম্পানি যদি লাভ করে তাহলে আপনার বিনিয়োগের টাকা থেকে দ্বিগুণ টাকা আপনি উপার্জন করতে পারবেন কিন্তু যদি কোম্পানি লস খায় তাহলে আপনি একটাকাও পাবেন না অর্থাৎ আপনার ক্ষতি হবে।

Notes: শেয়ার ব্যবসায় টাকা উপার্জন করাটা যেমন সহজ ঠিক তেমনি টাকা লস খাওয়াটাও সহজ। কারণ স্টক মার্কেটে উত্থান এবং পতন লেগে থাকে।

আরও পড়ুন । ইন্ডিয়ান শেয়ার মার্কেটঃকীভাবে কাজ করে ভারতের শেয়ার মার্কেট

শেয়ার ব্যবসার সুবিধা

Source

শেয়ার ব্যবসার সুবিধা (Advantage of Share business) 

শেয়ার বাজারে ব্যবসা করা যেমন লাভ তেমন সুবিধাও রয়েছে-

  1.  শেয়ার ব্যবসার প্রধান সুবিধা হল উল্লেখযোগ্য হারগুলি প্রদান করার সহজাত ক্ষমতা।
  2. স্টক ব্যবসায়ীরা বাজারগুলিতে তরলতা সরবরাহ করে এবং কৌশলগুলি সংজ্ঞায়িত করার জন্য বিভিন্ন পদ্ধতি এবং শৈলী ব্যবহার করে।
  3. অর্থ দীর্ঘমেয়াদের জন্য শেয়ার বাজারে রাখা একটি ভাল বিনিয়োগ।
  4. শেয়ার বাজার ঝুঁকিপূর্ণ হলেও অল্প সময়ে ভালো আয় করা যায়।
  5. বিনিয়োগকারীদের নিজেদের ভোটের অধিকার থাকে।
  6. অনলাইনে বাড়িতে বসে ব্যবসা করা যায়।

আরও পড়ুন । প্রাইমারী শেয়ার বাজারঃ প্রাইমারী বাজার সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা

শেয়ার ব্যবসার অসুবিধা

Source

শেয়ার ব্যবসার অসুবিধা (Disadvantages of Share business

শেয়ার বাজারে ব্যবসা করার কিছু অসুবিধাও রয়েছে যেমন-

  1. বাজারটি অস্থির হওয়ায় বিএসইতে বিনিয়োগ অনেক ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। শেয়ার এতবার ওঠানামা করে যে বিনিয়োগকারীদের মাঝে মধ্যে মারাত্মক ক্ষতির মুখোমুখি হতে হয়।
  2. শেয়ার  বাজারে ব্যবসা করা সময়সাপেক্ষ।
  3. প্রতিবার যখন কোনও বিনিয়োগকারী তার শেয়ার কিনে বা বিক্রি করেন তখন তাকে ব্রোকারেজ কমিশন হিসাবে কিছু পরিমাণ দালালকে দিতে হয়।
  4. শেয়ার মার্কেটে ব্যবসা করার জন্য প্রচুর জ্ঞান প্রয়োজন। তাই আপনি যখন ব্যবসা শুরু করবেন অনেক জ্ঞান নিয়ে নামতে হবে।
  5. বাজারগুলি সর্বদা পঠন সহজ নয় এবং এমনকি সবচেয়ে অভিজ্ঞ ব্যবসায়ীরাও এটি মারাত্মকভাবে ভুল হতে পারে।


আরও পড়ুন । জেনে নিন শেয়ার ও স্টকের মধ্যে পার্থক্য কি

স্টক মার্কেটে শেয়ার কখন কিনতে হয়?

Source

শেয়ার কখন কিনতে হয় (When to buy shares) 

শেয়ার মার্কেটে শেয়ার বিনিয়োগ করার আগে আপনাকে জানতে হবে শেয়ার কীভাবে বিনিয়োগ করতে হয় এবং কেমন কোম্পানিতে শেয়ার বিনিয়োগ করলে আপনার মুনফা হতে পারে। এই সব জ্ঞান অর্জন করার পরই আপনার শেয়ার ব্যবসা প্রবেশ করা ভালো হবে।

কোন কোম্পানির শেয়ার উত্থান অথবা পড়ে গেছে সেটা প্রথমে আপনাকে খবর নিতে হবে তার জন্য আপনি সংবাদপত্র বা শেয়ার মার্কেট সঙ্গে জড়িত লোকজনের থেকে অথবা সোশ্যাল মিডিয়া নজর রাখতে পারেন। সেখান থেকে আপনার কিছুটা সহায়তা পাবেন।

স্টক মার্কেটে শেয়ার

Source 

শেয়ার ব্যবসা যেহেতু ঝুঁকি রয়েছে তাই এই ব্যবসায় তখনি প্রবেশ করা শ্রেষ্ঠ হবে যখন আপনার আর্থিক পরিস্থিতি ভালো থাকবে। কারণ তাহলে লস হলে আপনি সেটা কাটিয়ে উঠতে পারবেন। অথবা আপনি ব্যবসা শুরু করার সময় অল্প পরিমাণ বিনিয়োগ করুন যাতে লস হলে আপনার তেমন ক্ষতি না হয়।

আরও পড়ুন । ব্যবসার নিয়ম কানুনঃ ব্যবসা পরিচালনা করার জন্য নিয়ম কানুন

আস্তে আস্তে আপনার যখন এই ব্যবসা সম্পর্কে পুরোপুরি ধারণা চলে আসবে তখন আপনি ধীরে ধীরে বিনিয়োগের পরিমাণ বাড়াতে পারেন।

যাইহোক শেয়ার ব্যবসা শুরু করার আগে আপনি এই ব্যবসা সম্পর্কিত সমস্ত তথ্য জেনে নেবেন। কারণ এখানে প্রতারণা হয়ে থাকে। এমনি অনেক কোম্পানি যেখানে বিনিয়োগ করলে সমস্ত টাকা নিয়ে তারা প্রতারণা করে থাকে। যার ফলে আপনি বিনিয়োগের সমস্ত টাকা হারিয়ে ফেলতে পারেন। তাই কোন কোম্পানির শেয়ার কেনার আগে সেই সমস্ত তথ্য জেনে নেওয়া উচিত।

আরও পড়ুন । মনোপলি বাজার কি এবং এর বৈশিষ্ট্য

স্টক মার্কেটে শেয়ার কীভাবে কিনতে হয়?

Source

শেয়ার কীভাবে কিনতে হয় (How to buy shares) 

শেয়ার মার্কেটে শেয়ার কেনার জন্য আপনাকে একটি ডিম্যাট একাউন্ট খুলতে হবে। আপনি ব্যাংকে একটি ডিম্যাট একাউন্ট খুলতে পারেন অথবা আপনি ব্রোকারের কাছে গিয়ে একটি ডিম্যাট একাউন্ট খুলতে পারেন।

শেয়ার মার্কেটে শেয়ার কেনার জন্য ডিম্যাট একাউন্ট থাকা দরকার। কারণ ডিম্যাট একাউন্টে আমাদের শেয়ারের টাকা রাখা হয়। এছাড়াও কোম্পানি মুনফা হলে আপনার মুনফার টাকা ডিম্যাট একাউন্টে যাবে।

আপনার ডিম্যাট একাউন্ট আপনার সেভিং একাউন্টে সঙ্গে লিংক করানো থাকে যার ফলে আপনি আপনার ডিম্যাট একাউন্টের টাকা পরে ব্যাংক একাউন্টে ট্রান্সফার করে দিতে পারবেন।

ডিম্যাট একাউন্টে

Source

ডিম্যাট একাউন্টের খোলার জন্য আপনার সেভিং একাউন্ট থাকা দরকার এবং প্যান কার্ডের জেরক্স কপি দরকার।

ভারতে মুলত দুটি বোম্বে স্টক এক্সচেঞ্জ এবং ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জ, এখানেই শেয়ার কেনা এবং বেচা হয়ে থাকে। এখানে ব্রোকাররা স্টক এক্সচেঞ্জের সদস্য হয় এবং আমরা একমাত্র তাদের মাধ্যমেই স্টক এক্সচেঞ্জে শেয়ার ক্রয় এবং বিক্রয় করতে পারি। আমরা স্টক মার্কেটে গিয়ে সরাসরি শেয়ার ব্যবসা করতে পারি না।

আরও পড়ুন । ব্যাংক অ্যাকাউন্ট কত প্রকার এবং অ্যাকাউন্ট খোলার নিয়ম

তাই আপনি যদি শেয়ার ব্যবসা করতে চান তাহলে অবশ্যই শেয়ার মার্কেট সম্পর্কিত সমস্ত তথ্য যাচাই করুন। না হলে ব্যবসায় বড়সড় ক্ষতি হয়ে যেতে পারে। তাই তাড়াহুড়ো না করে ধীরে ধীরে শেয়ার মার্কেটে প্রবেশ করার চেষ্টা করুন।

Key Point: ব্রোকারের কাছে গিয়ে ডিম্যাট একাউন্ট খোলা সবচেয়ে উত্তম। কারণ সে শেয়ার ব্যবসার জন্য ভালো কোম্পানির উপদেশ দিতে পারবে।

সচরাচর জিজ্ঞাস্য প্রশ্ন উত্তরঃ

Q. আমি শেয়ার ব্যবসা শুরু করতে চাই। তবে সেই সম্পর্কে সমস্ত তথ্য কোথা থেকে জানব?

A. আপনি বিভিন্ন ওয়েবসাইট থেকে এই তথ্য পেতে পারেন অথবা নিউজ থেকে। এছাড়াও শেয়ার ব্যবসার সঙ্গে জড়িত লোকজনের কাছ থেকে জানতে পারেন।

Q. শেয়ার মার্কেট লেনদেন করার জন্য ডিম্যাট একাউন্ট কি লাগবেই?

A. হ্যাঁ, ডিম্যাট একাউন্ট ছাড়া আপনি শেয়ার মার্কেটে ব্যবসা করতে পারবেন না।

Q. শেয়ার ব্যবসার মুনফা কীভাবে পাব?

A. কোম্পানি মুনফা অর্জন করলে আপনার মুনফা সরাসরি ডিম্যাট একাউন্টে চলে যাবে।

Q. ব্রোকার কোথা থেকে পাওয়া যাবে?

A. ব্রোকার শেয়ার মার্কেটের তালিকা থেকে আপনি নির্বাচন করতে পারেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here