ডাবের জলঃ গরমে নিজেকে সুস্থ রাখতে ডাবের জল

ডাবের জলের পুষ্টিগুণঃ

গ্রীষ্মকাল প্রায় হাজির। তীব্র গরমের দাবদাহে আমাদের অবস্থা হয় নাজেহাল । আর এই গরমে দিনে বাইরে থেকে আসার পর যদি একটু ঠাণ্ডা পানীয় পান করা যায় তাহলে মনটা শান্তি মেলে । আর সেটা যদি হয় ডাবের জল তাহলে তো কথাই নেই । নিয়মিত যদি ডাবের জল খেতে পারেন, তাহলে শরীরের সমস্ত ক্লান্তি দূর তো হবেই পাশাপাশি দেহ ঠাণ্ডা থাকবে । ডাবের জল শুধু কিন্তু স্বাস্থ্যই নয় বরং ত্বক গ্লোয়িং করতে অসাধারণ ।

ডাবের জল অ্যান্টি- অক্সিডেন্ট, মিনারেলস, ম্যাঙ্গানিজ, ভিটামিনস, পটাশিয়াম আরও পুষ্টিগুণে ভরপুর । পানীয়গুলির মধ্যে গরমকালে ডাবের চাহিদা প্রচুর । ডাবের জল আমরা সবাই খেয়েই থাকি কিন্তু এর উপকারিতার কথা অজানা । তাই এই নিবন্ধটি থেকে আজ জেনে নিন ডাবের জল খাওয়ার উপকারিতা ও ত্বকে সুন্দর রাখতে ডাবের জল ব্যবহারের টিপস ।

ডাবের জলের পুষ্টিগুণঃ

সূত্র :- s3-ap-southeast-1.amazonaws . com

ডাবের জলের পুষ্টিগুণঃ

এই ঠাণ্ডা পানীয়টিতে ৯৪ শতাংশ জল এবং খুব কম পরিমাণে ফ্যাট রয়েছে । ডাবের জলে পুষ্টিগুণ রয়েছে-

ফাইবার – এক কাপ ডাবের জলে ফাইবার ৩ গ্রাম ।
প্রোটিন – এক কাপ ডাবের জলে প্রোটিন রয়েছে ২ গ্রাম ।
ক্যালরি – এক কাপ ডাবের জলে ৪৬ ক্যালরি ।
ম্যাগনেসিয়াম – ১৫ শতাংশ ( এক কাপ) ।
পটাশিয়াম – ১৭ শতাংশ ( এক কাপ) ।
ক্যালসিয়াম – ৬ শতাংশ ( এক কাপ) ।
ম্যাঙ্গানিজ – ১৭ শতাংশ ( এক কাপ) ।
সোডিয়াম – ১১ শতাংশ (এক কাপ ) ।
ভিটামিন “সি” – ১০ শতাংশ ( এক কাপ ) ।

স্বাস্থ্যের যত্নে ডাবের জল খওয়ার উপকারিতাঃ

গরমকালে নিয়মিত ডাবের জল শরীর ঠাণ্ডা রাখে পাশাপাশি পেটের সমস্যা দূর করে । এছাড়াও এর অনেক উপকারিতা রয়েছে ।

1. কার্ডিওভাসকুলার স্বাস্থ্যের উন্নতিঃ

কার্ডিওভাসকুলার স্বাস্থ্যের উন্নতিঃ

সূত্র :- chiropractic . ca

আমরা সবাই একটি সুস্থ হৃদয় অধিকারী হওয়ার প্রত্যাশা করি । কিন্তু তার জন্য আমাদের ছোট থেকেই প্রয়োজন পুষ্টিকর খাবার এবং নিয়মিত ব্যায়াম । তবে, আজ থেকে তার সঙ্গে ডাবের জল যুক্ত করতে পারেন । গবেষণায় দেখা গেছে, ডাবের জল হার্ট অ্যাটাক, নিম্ন রক্তচাপ, এবং উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি হ্রাস করতে সক্ষম ।

নোটসঃ

ডাবের জলে কম ক্যালরি থাকলেও একটি ডাবে চিনির পরিমাণ থাকে প্রায় ৫ গ্রাম । এর জন্য এক কাপ অথবা দুই কাপ করে পান করাই ভালো । মাত্রাতিরিক্ত নয় ।

2. কিডনির কার্যক্ষমতা বাড়াতে সহায়তা করেঃ

কিডনির পাথর হওয়া রোধ করতে নিয়মিত ডাবের জল ভালো ঔষধ । ডাবের জলে ম্যাগনেসিয়াম এবং পটাশিয়াম বিদ্যমান । যার ফলে নিয়মিত ডাবের জল পানের মাধ্যমে কিডনির কার্যক্ষমতা বাড়ানো সম্ভব । তাছাড়াও ডাবের জল পান শরীরের টক্সিন ইউরিনের সঙ্গে বেরিয়ে যায় এবং কিডনি ক্ষতি হওয়া থেকে প্রতিরোধ করে ।

3. রক্ত চাপ নিয়ন্ত্রন রাখেঃ

রক্ত চাপ নিয়ন্ত্রন রাখেঃ

সূত্র :- 1.bp.blogspot . com

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রন রাখতে ডাবের জল অসাধারণ । একটি স্টাডিজে প্রমাণিত, যাদের উচ্চ রক্তচাপ রয়েছে, তাদের জন্য নিয়মিত এক কাপ ডাবের জল সিস্টোলিক রক্তচাপ উন্নতি করে । অন্যদিকে, যাদের নিম্ন রক্তচাপ, ডাবের জলে ম্যাগনেসিয়াম, পটাশিয়াম এবং ভিটামিন “সি” থাকার কারনে তাদের রক্তচাপ নিয়ন্ত্রনে আনতে সহায়তা করে ।

সারকথাঃ

পটাশিয়াম রক্তচাপ বাড়তে বাধা দেয়।

4. শরীরকে হাইড্রেট রাখেঃ

আমাদের শরীরে জলের ঘাটতি হলে অথবা শরীর থেকে কোন কারণে অতিরিক্ত জল বেরিয়ে গেলে ডিহাইড্রেশনের মতো সমস্যা দেখা যায় । ডাবের জল আমাদের শরীরে জলের অভাব পূরণ করে পাশাপাশি শরীরে এনার্জি শক্তি বাড়িয়ে তোলে ।

5. ত্বক গ্লোয়িং করে তোলেঃ

ত্বক গ্লোয়িং করে তোলেঃ

সূত্র :- en . fbw . vn

হয়তো এটা এখন আর কারো অজানা নয় যে নিয়মিত ডাবের জল পান করলে ত্বক ধীরে ধীরে গ্লোয়িং হতে শুরু করে । আর এটা সম্ভব ডাবের জলে অ্যান্টি- অক্সিডেন্ট বৈশিষ্ট্য থাকার জন্য । এটি ভেতর থেকে ত্বককে করে তোলে তরতাজা এবং উজ্জ্বল । এছাড়া ত্বকে ডাবের জল ব্যবহার করে গ্লোয়িং ভাব আসে ।

6. শরীর ঠাণ্ডা রাখেঃ

শরীর গরম হয়ে গেলে নানা রকম সমস্যা হতে পারে । পেতে ব্যথা, গ্যাস্ট্রিক ইত্যাদি । ডাবের জল শরীর ভেতর থেকে ঠাণ্ডা রাখে । অনেক সময় বাড়ির বড়োদের মুখে শোনা যায়, শরীর অসুস্থ বোধ করলে ডাবের জল খাওয়ানোর কথা ।

7. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়ঃ

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়ঃ

সূত্র :- procaffenation . com

যে কোন ধরণের রোগ থেকে সুস্থ হতে গেলে মানসিক জোর দরকার রোগ প্রতিরোধ করার জন্য । ডাবের জল রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তুলতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে । তাই নিয়মিত এক কাপ ডাবের জল খান এবং সুস্থ থাকুন ।

ত্বকের যত্নে ডাবের জল ব্যবহার করার টিপসঃ

ত্বকের সৌন্দর্যচর্চায় ডাবের জল অসাধারণ কার্যকর । ডাবের জলের সঙ্গে প্রাকৃতিক কিছু উপাদানে ঘরে বসেই করে নিতে পারবেন রূপচর্চা । নীচে আপনাদের জন্য ঘরোয়া টিপস রইল-

  • ডাবের জল মধু সঙ্গে মিশিয়ে লাগালে ত্বকে গ্লো ফিরে আসে । ১০-১৫ মিনিট বাদে ধুয়ে নেবেন।
  • ডাবের জল সঙ্গে অ্যালোভেরা জেল মিশিয়ে ত্বকে ব্যবহার করলে ত্বক ময়শ্চারাইজ থাকে । ১০ মিনিট পর ঠাণ্ডা জলে পরিষ্কার করে নেবেন।
  • ডাবের জল সঙ্গে দুধ মিশিয়ে ত্বকে লাগিয়ে রাখুন। ১০-১৫ মিনিট বাদে ঠাণ্ডা জলে ধুয়ে ফেলবেন ।

সারকথাঃ

গবেষণায় দেখা গেছে যারা নিয়মিত ডাবের জল খায় তাদের রোগব্যাধি কম হয় তাদের তুলনায়, যারা ডাবের জল নিয়মিত খান না ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here