রূপচর্চায় মধুর উপকারিতা ও ব্যবহার

মধু কি

মধু কি

সূত্র :- bluleadz . com

আমরা জানি প্রাচীনকাল থেকে মধু রূপচর্চার কাজে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। মধু বিভিন্ন কাজে ব্যবহার করা হয়। রান্না থেকে শুরু করে ওজন কমাতে লেবুর রসের সাথে মধুর উপকারিতা রয়েছে। বিভিন্ন রূপচর্চার পণ্যতে এটি ব্যবহার হয়। এছাড়াও রুপচ্রচায় মধু অত্যন্ত কার্যকর। এখানে রূপচর্চার জন্য মধু ব্যবহার কিছু টিপস আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করা হল, যা ব্যবহার করলে ত্বকের বিভিন্ন সমস্যার হাত থেকে মুক্তি পেটে পারেন।

আরও পড়ুনঃ পেস্তা বাদাম খাওয়ার ১০ টি উপকারিতা

মধু কি ?

মধু হল একটি তরল আঠালো মিষ্টি পদার্থ, যা মৌমাছি ফুল থেকে সংগ্রহ করে। এবং মৌচাকে জমা করে। পরে এই পুষ্পরসটি মৌমাছি বিশেষ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে মধুতে রূপান্তরিত করে।

আরও পড়ুনঃ হেয়ার স্পা এর উপকারিতাঃহেয়ার স্পা কি সত্যিই উপকার?

রূপচর্চায় মধুর উপকারিতা ও ব্যবহার

নিয়মিত মুখে মধু ব্যবহার করলে অসাধারণ উপকার লাভ করা যায়। মধুর তৈরি মাস্ক মুখের ব্রণ এবং কালো দাগ কমাতে জুরি মেলা ভার। এটি শুষ্ক ত্বকের জন্য চমৎকার।

1. মুখের দাগ কমায়ঃ
মুখের , চামড়ার এবং ঠোঁটের দাগ কমাতে মধুর উপকারিতা অপরিসীম। এতে উপস্থিত অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টিইনফ্লেমেটরি উপাদান মুখের দাগছোপ কমাতে সহায়তা করে।

  • ব্যবহারের টিপস-  ১ টেবিল চামচ নারকেল তেল বা অলিভ ওয়েলের সঙ্গে ১ টেবিল চামচ মধু মিশিয়ে ত্বকে লাগিয়ে রাখুন। ২-৩ মিনিট পর ঠাণ্ডা জলে ধুয়ে ফেলুন। এইভাবে নিয়মিত পদ্ধতিতে অনুসরণ করলে ত্বকের দাগ সরে যাবে।

ত্বকের ময়শ্চারাইজারঃ

2. ত্বকের ময়শ্চারাইজারঃ

মধু খুব ভালো ময়শ্চায়রাইজিং এর কাজ করে এবং ত্বক হাইড্রেট রাখে।

ব্যবহারের টিপস-  প্রথমে ভালো করে মুখ পরিষ্কার করে নিন। এবার অর্ধেক কলা ও পরিমাণ মতো মধু ভালো করে পেস্ট করে নিন। মিশ্রণটি মুখে ও গলায় লাগিয়ে মিনিট দশেক পর হালকা গরম জলে মুখ ধুয়ে ফেলবেন। এটি ত্বককে ময়শ্চারাইজ করে রাখে।

3. ব্রণ চিকিৎসাঃ

ব্রণ সাধারণত ত্বকে ব্যাকটেরিয়ার কারণে হয়ে থাকে। অ্যান্টিফাঙ্গাল এবং অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস করতে সক্ষম। আর এই দুটি উপাদানই মধুতে রয়েছে।

আরও পড়ুনঃ ছোট চুলের যত্নঃ দেখে নিন কীভাবে নেবেন ছোট চুলের যত্ন

ব্যবহারের টিপস-  ১ চামচ মধু নিয়ে কয়েক ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে ভালোভাবে প্যাক তৈরি করে মুখে লাগিয়ে ১৫-২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। লেবু ব্রণের দাগ দ্রুত কমিয়ে দেয়।
ব্রণ আক্রান্ত অংশে মধু লাগিয়ে ১০-১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। ২-৩ বার ব্যবহার করলেই ফল পাবেন।

ত্বকের ছিদ্র দূর করতেঃ

সূত্র :- medicalnewstoday . com

4. ত্বকের ছিদ্র দূর করতে:
কাঁচা মধু অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল এবং এনজাইম রয়েছে। ব্যাকটেরিয়ার ধ্বংস করে ত্বকের ছিদ্র বন্ধ করে।

আরও পড়ুনঃ গোল্ড ফেসিয়ালের উপকারিতা জানলে অবাক হবেন

ব্যবহারের টিপস-  ১ টেবিল চামচ মধুর সঙ্গে ২ টেবিল চামচ নারকেল তেল অথবা জোজবা তেল মিশিয়ে নিন। এবার এটি ড্রাই স্ক্রিনে বা মুখে লাগিয়ে হালকা ভাবে মাসাজ করুন এবং ঠাণ্ডা জলে ধুয়ে নিন।

সতর্কতাঃ-
চোখের নিচে প্রয়োগ করবেন না। তাতে ক্ষতি হতে পারে। পরিবর্তে শসা গোল করে কেটে চোখে ঢাকনার উপরে রাখতে পারেন।

ত্বক পরিষ্কার করতেঃ

5. ত্বক পরিষ্কার করতেঃ
মধু ত্বকের ময়লা এবং জীবাণু মুক্ত করে। ত্বকের অতিরিক্ত তৈলাক্ত পদার্থ দূর করে ত্বক পরিষ্কার করে তোলে।

ব্যবহারের টিপস-  হাফ চামচ মধু হাতের তালুতে নিয়ে ভালো করে ঘষে নিন অথবা আপনি এর মধ্যে জল মিশাতে পারেন। এবার এটি মুখে লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে এলে হালকা উষ্ণ গরম জলে ধুয়ে নিন। ভালো ফল পেতে টোনার লাগিয়ে নিন।

আরও পড়ুনঃ শসার উপকারিতাঃ নিয়মিত শসা খান এবং সুস্থ থাকুন

আশা করি, মধুর উপকারিতার এই টিপসগুলি আপনাদের সহায়তা করবে। সঠিক পদ্ধতিতে অনুসরণ করুন ভালো ফল পাবেন।

সচরাচর জিজ্ঞাস্য প্রশ্ন উত্তরঃ 

প্রঃ মধু কোথা থেকে তৈরি হয়?

উঃ মৌমাছি ফুল থেকে একটি পুস্পরস সংগ্রহ করে যা পড়ে মৌচাকে জমা করে। এবং সেই পুষ্পরসটি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে মধুতে পরিণত হয়।

প্রঃ ব্রণ কমাতে মধু দিনে কতবার ব্যবহার করব?

উঃ খুব দ্রুত যদি ব্রণের দাগ কমাতে দিনে ২ থেকে ৩ বার ব্যবহার করুন। ভালো ফল পাবেন।

প্রঃ মধু কি ত্বক ময়শ্চারাইজ করে থাকে?

উঃ হ্যাঁ, মধু খুব ভালোভাবে মুখ পরিষ্কার রাখতে সহায়তা করে এবং ত্বক হাইড্রেট করে রাখে।

প্রঃ মধু সরাসরি মুখে প্রয়োগ করা কি ভালো?

উঃ না সরাসরি প্রয়োগ করলে না করাই ভালো। আপনি মধুর সঙ্গে অন্য উপাদান মিশিয়ে প্রয়োগ করলে ভালো ফল পাবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here