জেনে নিন, নিয়মিত চিনা বাদাম খাওয়ার উপকারিতা

চিনা বাদাম কি

চিনা বাদাম, জনপ্রিয় বাদামের মধ্যে অন্যতম। ব্যস্তময় জীবনে কাজের ফাঁকে এটি খেতে অসাধারণ লাগে। এটি শুধু খেতেই সুস্বাদু তাই নয়, পুষ্টিগুণেও ভরপুর। চিনা বাদামগুলি বীজের তেল হিসাবে ব্যবহার করার জন্য ভারতে জনপ্রিয়। এগুলি মাটি থেকে প্রাপ্ত ।

চিনা বাদামে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন, সোডিয়াম, আয়রন, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, ফাইবার, ভিটামিন এ, ভিটামিন বি, ভিটামিন সি এবং পটাশিয়াম।
চিনা বাদাম প্রায় সর্বত্রই সব জায়গায় এবং সারা বছরেই পাওয়া যায়। অনেক বাড়িতেই এটি স্ন্যাকস হিসাবে রাখা হয়। স্ন্যাকসের পাশাপাশি চিনা বাদাম খওয়ার অনেক উপকারিতা রয়েছে যা আমদের জানা প্রয়োজন। আসুন দেখে নিই এই বাদাম খাওয়ার উপকারিতাগুলি –

চিনা বাদাম কি

সূত্র :- peckamix . co . uk

চিনা বাদাম কি?

চিনা বাদাম হল মুখরোচক স্ন্যাকস। এই বাদামটি বিভিন্ন ভাষায় ভিন্ন নামে পরিচিত। যেমন- হিন্দিতে ‘ মুঙ্গফালী ‘, তেলেগু ভাষায় ‘ পাললেউ ‘, তামিল ভাষায় ‘ কাদালাই ‘, কানাডায় ‘ কাদালে কৈাই ‘, মালয়ালামে ‘ নিলাক্কাদালা ‘, নামে পরিচিত ।
প্রতি একশো গ্রাম চিনা বাদামে রয়েছে ২০. ৯ গ্রাম প্রোটিন, ৬০ গ্রাম ফ্যাট, ৬৫০ ক্যালোরি আছে। চিনা বাদাম সত্যিই একটি স্বাস্থ্য উপকারিতার প্যাকেজ ।

চিনা বাদাম খাওয়ার উপকারিতাঃ

প্রচুর শক্তির উৎসঃ-

প্রচুর শক্তির উৎসঃ

সূত্র :- images.indianexpress . com

চিনা বাদাম প্রচুর পরিমানে খনিজ, পুষ্টি, অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ও ভিটামিন ধারন করে এবং প্রচুর পরিমাণ শক্তির উৎস এটি ।

খারাপ কোলেস্টেরল মাত্রা কমায়ঃ-

কোলেস্টেরল হওয়ার একমাত্র কারণ হল অপুষ্টিকর খাবার এবং অতিরিক্ত তৈলাক্ত খাদ্য গ্রহণ । নিয়মিত চিনা বাদাম খেলে খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমে পাশাপাশি ভালো কোলেস্টেরলের মাত্রা বৃদ্ধি করে ।

পাকস্থলী ক্যান্সারের সঙ্গে লড়াই করেঃ-

পাকস্থলী ক্যান্সারের সঙ্গে লড়াই করেঃ

সূত্র :- storm . sg

পলি-ফেনোলিক অ্যান্টি-অক্সিডেন্টগুলি চিনা বাদামে উচ্চ মাত্রায় উপস্থিত। যা পাকস্থলীর ক্যান্সারের ঝুঁকি হ্রাস করে ।

দেহের বিকাশঃ-

চিনা বাদাম উচ্চ প্রোটিন সমৃদ্ধ। এর মধ্যে উপস্থিত অ্যামিনো অ্যাসিড শরীরের উন্নয়ন এবং বিকাশের জন্য উপকারি ।

রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা বৃদ্ধি করেঃ-

রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা বৃদ্ধি করেঃ

সূত্র :- thediabetescouncil . com

পুষ্টির অভাব জনিত কারনে রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা কমে যায়। যার দরুন নানা ধরনের রোগের উৎপত্তি হয়। যেমন- সর্দি, কাশি, জ্বর, মাথা ব্যথা, শরীরে দুর্বলতা ইত্যাদি। চিনা বাদামে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা বাড়ায় ।

স্বাস্থ্যকর ত্বকঃ-

বাদামের মধ্যে উপস্থিত ফাইবার দেহের টক্সিন এবং বর্জ্য পদার্থ বর্জন করার জন্য অপরিহার্য । শরীরের ভেতরে থাকা দূষিত পদার্থ আমাদের বাইরের চেহারায় প্রতিফলিত করে। যার ফলে মলিনতা, অতিরিক্ত তেল সৃষ্টি হয়। প্রতিদিন চিনা বাদাম, আপনার শরীরের অতিরিক্ত বিষাক্ত পদার্থ নিঃসারিত করে স্বাস্থ্য লাবণীয় ত্বক দিতে সহায়তা করে ।

ব্যাকটেরিয়ার সঙ্গে লড়াই করেঃ-

ব্যাকটেরিয়ার সঙ্গে লড়াই করেঃ

সূত্র :- fitnesstipss . com

চিনা বাদাম রয়েছে ভিটামিন ই এবং ম্যাগনেসিয়াম যা ব্যাকটেরিয়াকে ধ্বংস করে ত্বক গ্লোয়িং করে তোলে এবং ব্রণ কমাতে সাহায্য করে। নিয়মিত চিনা বাদাম খাওয়ার ফলে ত্বকে ফুসকুড়ি হওয়ার প্রবণতা কম থাকে ।

চুলের পুষ্টি জোগায়ঃ-

চুলের স্বাস্থ্যসম্মত রাখতে যে সমস্ত প্রোটিনের প্রয়োজন তা চিনা বাদামে রয়েছে। এতে উচ্চ মানের ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিড রয়েছে যা মাথার স্ক্যাল্প শক্তিশালী করার পাশাপাশি চুলের বৃদ্ধি করে ।

চুল বৃদ্ধি করেঃ-

চুল বৃদ্ধি করেঃ

সূত্র :- herindependence . com

ভিটামিন ই এর অভাবে চুলের গোঁড়া দুর্বল হয়ে পড়ে। যার দরুন অতিরিক্ত পরিমাণে চুল পড়ে। ভিটামিন ই হল স্ক্যাল্পের পুষ্টি, যা চিনা বাদামে উপস্থিত। তাই নিয়মিত চিনা বাদাম খেলে চুল পুষ্টি পায় পাশাপাশি চুল বৃদ্ধি হয় ।

তাহলে দেখলেন তো চিনা বাদাম খাওয়া কতটা উপকার। তাহলে আজ থেকেই আপনার খাবারের তালিকায় চিনা বাদাম যোগ করুন নিজেকে সুস্থ রাখতে ।

সারকথাঃ
চিনা বাদাম সব ধরনের বাদামের চেয়ে সর্বোচ্চ জনপ্রিয় এবং চাহিদা বেশি ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here