ইউরিক অ্যাসিড কমানোর ঘরোয়া উপায়

ইউরিক অ্যাসিড কমানোর ঘরোয়া উপায়

দেহে পিউরিনের ভাঙ্গন ইউরিক অ্যাসিড তৈরি হয়। পিউরিন খাবারে পাওয়া যায় এবং শরীরের দ্বারা প্রাকৃতিকভাবে উৎপাদিত হয়। এটি রক্ত ​​প্রবাহের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত কিডনিতে পৌঁছে যায় যদিও ইউরিক অ্যাসিড ইউরিনের মাধ্যমে শরীর থেকে বেরিয়ে যায়। তবে কখনো কখনো এটি শরীরে থেকে যায় এবং এর পরিমাণ বাড়তে শুরু করে। যার ফলে শরীরের সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে।

ইউরিক অ্যাসিড

বেশি পরিমাণে ইউরিক অ্যাসিড স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক। এটি আর্থ্রাইটিসের মতো সমস্যা তৈরি করতে পারে। সুতরাং ইউরিক অ্যাসিডের পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ করা আমাদের প্রয়োজন। কিছু প্রাকৃতিক উপাদানের দ্বারা আমরা ইউরিক অ্যাসিড নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করতে পারি। চলুন না তাহলে আজ জেনে নিই কোন কোন প্রাকৃতিক উপাদান আমাদের ইউরিক অ্যাসিড নিয়ন্ত্রণ করে এবং এই অ্যাসিডের পরিমাণ বেড়ে গেলে কোন কোন জিনিসের থেকে দূরে থাকা উচিত।

আরও পড়ুন :  টাইফয়েড কি, টাইফয়েডের লক্ষণ, ঘরোয়া প্রতিকার

শরীরে ইউরিক অ্যাসিড বেরে যাওয়ার লক্ষণঃ

শরীরে ইউরিক অ্যাসিড বেরে যাওয়ার লক্ষণঃ

  • পায়ে ব্যথা অনুভূত হওয়ার পাশাপাশি জোড়ায় ব্যথা।
  • গোড়ালিতে ব্যথা অনুভূত হওয়ার সাথে সাথে ফোলাভাব। ব্যথা অনেক সময় অতিরিক্ত এবং অসহনীয় হতে পারে।
  • চিনির স্তর বৃদ্ধি ইউরিক অ্যাসিড অন্যতম লক্ষণ।

প্রাকৃতিক উপায়ে ইউরিক অ্যাসিড কম করার উপায়ঃ

  1. বেকিং সোডা (Baking soda) 

বেকিং সোডাঃ

বেকিং সোডা ইউরিক অ্যাসিডের মাত্রা হ্রাস করতে সহায়তা করে। বেকিং সোডার এই মিশ্রণটি ইউরিক অ্যাসিড স্ফটিকগুলিকে দ্রবীভূত করতে এবং ইউরিক অ্যাসিড দ্রবণীয়তা বাড়াতে সহায়তা করে। তবে এটি রক্তচাপকে বাড়িয়ে তুলতে পারে। তাই রক্তচাপ রোগীদের এটি ব্যবহার করার আগে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া উচিত।

ইউরিক অ্যাসিড কমানোর জন্য এক গ্লাস জলে আধা চা চামচ বেকিং সোডা মিশিয়ে নিন। এটি ভালভাবে মিশ্রিত করুন এবং এটির আট গ্লাস নিয়মিত পান করুন। তবে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে।

আরও পড়ুন : হাড় ভাঙ্গার চিকিৎসা করার পাশাপাশি দ্রুত সুস্থ হওয়ার উপায় 

  1. আপেল সাইডার ভিনিগার (Apple cider vinegar) 

আপেল সাইডার ভিনিগারঃ

আপেল সাইডার ভিনিগারে ম্যালিক অ্যাসিড রয়েছে যা দেহ থেকে ইউরিক অ্যাসিডকে ভেঙে ফেলা এবং তা নিয়ন্ত্রণ করতে সহায়তা করে। এছাড়াও আপেল সাইডার ভিনিগারে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি বৈশিষ্ট্য যা শরীর থেকে ইউরিক অ্যাসিড হ্রাসে সহায়ক। এক গ্লাস জলে এক চা চামচ জলে আপেল সাইডার ভিনেগার মিশিয়ে প্রতিদিন পান করুন।

  1. প্রচুর পরিমাণে জল পান করুন (Drink plenty of water) 

প্রচুর পরিমাণে জল পান করুনঃ

আপনি শরীরকে হাইড্রেটেড রেখে ইউরিক অ্যাসিডের স্তর হ্রাস করতে পারেন। দেহে পর্যাপ্ত পরিমাণে জল উপস্থিতে ইউরিক অ্যাসিড প্রস্রাবের মাধ্যমে বেরিয়ে যায়। তাই অতিরিক্ত পরিমাণে জল খাওয়া প্রয়োজন।

আরও পড়ুন :  হেপাটাইটিস বি এর চিকিৎসা ও লক্ষণ 

  1. খাবারে অলিভ অয়েল যোগ করুন (Add olive oil to food) 

খাবারে অলিভ অয়েল যোগ করুনঃ

অলিভ অয়েল আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য খুব উপকারি। আপনি আপনার খাবারে অলিভ অয়েল ব্যবহার করার মাধ্যমে ইউরিক অ্যাসিড নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন। ভিটামিন ই প্রচুর পরিমাণে অলিভ অয়েলে পাওয়া যায় যা ইউরিক অ্যাসিডের মাত্রা হ্রাসে সহায়ক।

  1. জোয়ান (ajwain) 

খাবারে অলিভ অয়েল যোগ করুনঃ

জোয়ান ইউরিক অ্যাসিড হ্রাস করার জন্য একটি কার্যকর পদ্ধতি কারণ এটি প্রাকৃতিক মূত্রবর্ধক। এটি রক্তে ক্ষারীয় স্তর নিয়ন্ত্রণ করে প্রদাহ হ্রাস করতে সহায়তা করে।

আরও পড়ুন : নিপা ভাইরাস কি, লক্ষণ এবং প্রতিরোধের উপায় 

ইউরিক অ্যাসিড করার জন্য যেসমস্ত খাবার এড়িয়ে চলতে হবেঃ

  • ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিডযুক্ত খাবার এড়িয়ে চলুনঃ

ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিডযুক্ত খাবার এড়িয়ে চলুনঃ

টুনা, সালমন ইত্যাদি জাতীয় মাছ ওমেগা -3 ফ্যাটি অ্যাসিড সমৃদ্ধ। সুতরাং, ইউরিক অ্যাসিড বৃদ্ধি পেলে এই মাছগুলি খাওয়া এড়ানো উচিত। এছাড়াও মাছগুলিতে পিউরিন বেশি পরিমাণে পাওয়া যায়। পিউরিন শরীরে আরও বেশি ইউরিক অ্যাসিড তৈরি করে।

  • পিউরিন সমৃদ্ধ খাবার এড়িয়ে চলুনঃ

পিউরিন সমৃদ্ধ খাবার এড়িয়ে চলুনঃ

শরীরে ইউরিক অ্যাসিডের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে পিউরিন সমৃদ্ধ খাবার এড়ানো উচিত। কিডনির সমস্যায় পিউরিন সমৃদ্ধ খাবারগুলি শরীরের বিভিন্ন স্থানে অতিরিক্ত ইউরিক অ্যাসিড সংরক্ষণ করে। পিউরিন সমৃদ্ধ খাবার যেমন রেড মিট, আরগান মিট, সামুদ্রিক খাবার ইত্যাদি।

আরও পড়ুন : চর্মরোগ: একজিমা কি, লক্ষণ এবং ঘরোয়া চিকিৎসা 

  • অতিরিক্ত অ্যালকোহল বন্ধ করুনঃ

অতিরিক্ত অ্যালকোহল বন্ধ করুনঃ

অ্যালকোহল আপনার শরীরকে হাইড্র্রেট করে তাই পিউরিন সমৃদ্ধ খাবারগুলি থেকে প্রচুর পরিমাণে অ্যালকোহল গ্রহণ করা এড়ানো উচিত। বিয়ার এড়িয়ে যাওয়া উচিত।

আরও পড়ুন : মেডিটেশন কি এবং কীভাবে করবেন

তাহলে আপনার যদি ইউরিক অ্যাসিডের মাত্রা শরীরে বেশি পরিমাণে থাকে তাহলে এই সমস্ত প্রাকৃতিক উপাদান গ্রহণ করতে পারেন।

Key point 

শরীরে বেশি থাকলে অ্যালকোহল গ্রহণ থেকে দূরে থাকা উচিত।

সচরাচর জিজ্ঞাস্য প্রশ্ন উত্তরঃ

Q. ইউরিক অ্যাসিড কীভাবে তৈরি হয়?

A. দেহে পিউরিনের ভাঙ্গন ইউরিক অ্যাসিড তৈরি হয়।

Q. ইউরিক অ্যাসিডে কি কি খাওয়া বারণ? 

A. টমেটো, ওমেগা৩ ফ্যাটি অ্যাসিড, অ্যালকোহল, রেড মিট খাওয়া বারণ।

Q. শরীরে ইউরিক অ্যাসিডের উচ্চ মাত্রার কারণ কী?

A. যদি আপনার ডায়েটে বেশি পরিমাণে পিউরিন গ্রহণ করেন, এটি রক্ত ​​প্রবাহের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত কিডনিতে পৌঁছে যায়। যদিও ইউরিক অ্যাসিড ইউরিনের মাধ্যমে শরীর থেকে বেরিয়ে যায়। তবে কখনো কখনো এটি শরীরে থেকে যায় এবং এর পরিমাণ বাড়তে শুরু করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here