হেপাটাইটিস বি এর চিকিৎসা ও লক্ষণ

হেপাটাইটিস বি এর চিকিৎসা

হেপাটাইটিস বি এর চিকিৎসা

সূত্র :- ssl.adam . com

হেপাটাইটিস বি একটি ভাইরাস সংক্রামিত রোগ। হেপাটাইটিস সাধারণত লিভার প্রদাহকে বলা হয়। কারণ হেপা কথার অর্থ লিভার এবং টাইটিস কথার অর্থ প্রদাহকে বলা হয়। হেপাটাইটিস বি একটি জীবাণু বা ভাইরাস। এটি মারাত্মক রোগ বলা হয়। এই রোগ দিনের পর দিন হাজার হাজার মানুষকে ফেলে দিচ্ছে মৃত্যুর মুখে। এর জন্য হেপাটাইটিস বি এর চিকিৎসা করানো প্রয়োজন সঠিক সময়ে। তবে আপনাকে চিকিৎসা করানোর আগে সঠিক সময়ে এর লক্ষণ বুঝে উঠতে হবে।

হেপাটাইটিস বি আক্রান্ত হলে রোগীর সময় মতো চিকিৎসা প্রয়োজন। চিকিৎসার পাশাপাশি কয়েকটি ঘরোয়া চিকিৎসা রয়েছে যার মাধ্যমে হেপাটাইটিস বি উন্নতি সাধন করা যায়। আজকের নিবন্ধে আমরা হেপাটাইটিস বি এর চিকিৎসা এবং তার লক্ষণ আপনাদের জানাব। ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে এই ঘরোয়া চিকিৎসাগুলি চালানো যেতে পারে।

আরও পড়ুনঃ দাঁতের যত্নঃ কীভাবে নেবেন দাঁতের যত্ন জেনে নিন

হেপাটাইটিস বি এর লক্ষণঃ

হেপাটাইটিস বি এর লক্ষণঃ

সূত্র :- 420evaluationsonline . com

হেপাটাইটিস বি এর লক্ষণগুলি হল –

  • হলুদ বর্ণের ইউরিন।
  • পেটে ব্যথা।
  • জয়েন্টে ব্যথা।
  • জ্বর।
  • দুর্বল।
  • বমি বমি ভাব।
  • স্কিন রঙ হলুদ।

যদি এই আপনি লক্ষণগুলি বুঝতে পারেন, তাহলে অবিলম্বে ডাক্তারের সঙ্গে ডাক্তারের পরামর্শ করুন।

আরও পড়ুনঃ আর্থ্রাইটিস কি, রোগের লক্ষণ এবং ব্যথা কমানোর চিকিৎসা

হেপাটাইটিস বি এর চিকিৎসা ঘরোয়া টোটকাঃ

হেপাটাইটিস বি হলে চিকিৎসা অবশ্যই প্রয়োজন। চিকিৎসা ছাড়া এই রোগে সুস্থ হওয়া সম্ভব নয়। তবে চিকিৎসার পাশাপাশি এই ঘরোয়া উপাদানগুলি হেপাটাইটিস বি চিকিৎসায় অনেকটা সহায়তা করব।

  1. মূলার রস এবং পাতাঃ

মূলার রস এবং পাতাঃ

মূলার সবুজ পাতা হেপাটাইটিস বি এর চিকিৎসার জন্য উপকারী। শুধু এটিই নয়, মূলার রসেও এত শক্তি রয়েছে যে এটি রক্ত ​​এবং লিভার থেকে অতিরিক্ত বিলিরুবিনকে দূর করতে সহায়তা করে। হেপাটাইটিসে রোগীকে দিনে ২ থেকে ৩ গ্লাস মূলার রস পান করতে হবে। অথবা, এর পাতাগুলি পিষে তাদের রস বের করে ছেঁকে নিয়ে পান করুন।

  1. আখের রসঃ

আখের রস ভিন্ন ধরনের ফ্ল্যাভোনয়েড সমৃদ্ধ উৎস। যা লিভারের খারাপ হওয়া থেকে রক্ষা করে। এটি হেপাটাইটিস বি সম্পর্কিত লিভারের ক্ষতি হ্রাস করতে সহায়তা করে। হেপাটাইটিস বি রোগীদের নিয়মিত এক গ্লাস করে আখের রস খাওয়া উচিত।

আরও পড়ুনঃ জেনে নিন ঘরোয়া পদ্ধতিতে ক্যাভিটি দূর করার উপায়

  1. অর্জুন গাছের ছালঃ

অর্জুন গাছের ছালঃ

অর্জুন গাছের ছাল হৃদয় আর মূত্রপ্রণালী ভালো রাখতে পরিচিত। এটি কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে ক্ষমতা রাখে এবং এটির গুন এতোই যে হেপাটাইটিস বি এর চিকিৎসার জন্য একটি ঔষধ হিসাবে কাজ করে।

  1. নিমঃ

নিমঃ

নিমের মধ্যে অনেকগুলি অ্যান্টি-ভাইরাল উপাদান রয়েছে, যার কারণে এটি হেপাটাইটিসের চিকিৎসায় কার্যকর। এটি লিভারে উৎপাদিত টক্সিনগুলি ধ্বংস করতেও সহায়ক। নিয়মিত ভোরবেলায় নিমপাতার রসে মধু মিশিয়ে পান করুন।

আরও পড়ুনঃ টিউমার চিকিৎসা: ব্রেইন টিউমার কি, লক্ষণ এবং চিকিৎসা

  1. টমেটোর রসঃ

টমেটোর রসঃ

হেপাটাইটিস বি এর চিকিৎসায় টমেটোর রস খুব উপকারী। এতে ভিটামিন সি পাওয়া যায়, যার কারণে এটি লাইকোপিনের উচ্চ উৎস। এর রসে সামান্য নুন এবং গোলমরিচ মিশিয়ে পান করুন।

আরও পড়ুনঃ কিডনি রোগের প্রতিকার: কিডনি রোগের লক্ষণ এবং প্রতিকার

  1. লেবু বা আনারসের রসঃ

লেবু বা আনারসের রসঃ

পানিতে লেবুর রস খেলে পেট পরিষ্কার হয়। সকালে খালি পেটে প্রতিদিন এটি পান করা জন্ডিস বা হেপাটাইটিস বি এর জন্য উপযুক্ত। এছারাও আনারসও উপকারী। আনারস ভেতর থেকে পাকস্থলীর ব্যবস্থা পরিষ্কার রাখে।

  1. হলুদঃ

হলুদঃ

হলুদ কারকিউমিন উপাদান রয়েছে যা হেপাটাইটিস বি প্রতিরোধ করে তাই হেপাটাইটিস বি এর জটিলতা দূর করতে নিয়মিত হলুদ গ্রহণ করতে পারেন।

  1. মধুঃ

মধুঃ

মধুতে অ্যান্টি-ভাইরাল বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা হেপাটাইটিস বি ম্যানেজ সহায়তা করে। নিয়মিত এক থেকে দুই চামচ মধু সেবন করলে উপকৃত হবেন।

আরও পড়ুনঃ জন্ডিস কেন হয়, জন্ডিসের লক্ষণ এবং চিকিৎসা

তাহলে এই রোগের আক্রান্ত হলে অবশ্যই চিকিৎসা করান পাশাপাশি ঘরোয়া পদ্ধতিতে এই টোটকাগুলি রোগীকে দ্রুত সারিয়ে তুলতে সহায়তা করবে।

সারকথাঃ

হেপাটাইটিস বি একটি লিভার সম্পর্কিত ভাইরাস রোগ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here