গর্ভধারণের লক্ষণঃ গর্ভধারণের লক্ষণগুলি কি কি?

গর্ভধারণের লক্ষণ

গর্ভধারণের লক্ষণ

গর্ভাবস্থা প্রতিটি নারীর জীবনে জন্য বিশেষ আনন্দের মুহূর্ত এবং স্মরণীয়। গর্ভধারণ একটি মেয়ের কাছে পৃথিবীর সবচেয়ে আনন্দের বিষয়। নিজের দেহের ভিতর একটি প্রানের আগমন নিয়ে নারী থেকে শুরু করে তার চারপাশে লোকজন সবাই খুব আহ্লাদে থাকে। একটি ছোট শিশু গর্ভে ধারণ করা যেমন একটি নারীর কাছে আনন্দদায়ক ঠিক তেমনি তাকে শতগুণ কষ্ট ভোগ করতে হয়। সাধারণ গর্ভধারণের লক্ষণ রয়েছে যা দেখে একজন মহিলা বুঝতে পারেন, তিনি গর্ভবতী।

একজন নারীর অবশ্যই গর্ভধারণের লক্ষণগুলি জেনে রাখা উচিত। তবে সব লক্ষণ কিন্তু গর্ভবতী হওয়ার লক্ষণ নয়, তাই মেয়েরা একটু সতর্ক হয়ে ঘরে বসেই বুঝতে পারবে তিনি গর্ভবতী কিনা? অনেক সময় গর্ভধারণের লক্ষণ বুঝে উঠতে দেরি হয়ে যায়। তাই আজকের এই নিবন্ধে গর্ভধারণের লক্ষণগুলি আপনাদের জানাব। যেগুলি লক্ষ্য করলেই আপনি সহজেই বুঝতে পারবেন আপনি মা হতে চলেছেন।

এখানে গর্ভধারণের কয়েকটি বিশেষ লক্ষণ রইল

এখানে গর্ভধারণের কয়েকটি বিশেষ লক্ষণ রইল

নারীদের গর্ভবতী হওয়ার সময় প্রাথমিক কিছু লক্ষণ রয়েছে যেগুলি দেখলে বোঝা যায় সেগুলি গর্ভধারণের লক্ষণ। যেমন –

গর্ভধারণের লক্ষণ – প্রাথমিক লক্ষণঃ

  • পেটে ব্যথা।
  • স্বভাব পরিবর্তন এবং ক্লান্তি ভাব।
  • গর্ভাবস্থার চতুর্থ থেকে অষ্টম সপ্তাহ সকালের দিকে বমি বমি ভাব এবং দুর্বলতা শুরু হয়।
  • মাসিক বন্ধ হয়ে যাওয়া।
  • সকালের দিকে দুর্বল অনুভব করা।

গর্ভধারণের লক্ষণ – কয়েকটি বিশেষ লক্ষণঃ

গর্ভধারণের লক্ষণ – কয়েকটি বিশেষ লক্ষণঃ

  • যদি আপনার স্তনে ভারাক্রান্তি, পিঠে ব্যথা ইত্যাদি থাকে তবে এটি গর্ভাবস্থার লক্ষণ হতে পারে। অনেক সময় মহিলারা তাদের পিরিয়ড বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত বুঝতে পারেন না যে তারা গর্ভবতী। তাই গর্ভাবস্থা নিশ্চিত করতে পরীক্ষা করতে হবে।
  • মাথা ব্যথাও গর্ভাবস্থার অন্যতম প্রাথমিক লক্ষণ। গর্ভাবস্থায় হরমোন পরিবর্তনের কারণে মাথা ব্যথা হয়।
  • অনেক সময় গর্ভবতী হলে শ্বাস নিতে সমস্যা হয়। বিশেষত যখন পেটে ভ্রূণ বৃদ্ধি পাচ্ছে তখন তার অক্সিজেনের প্রয়োজন হয় যার ফলে গর্ভধারণ মহিলার শ্বাস নিতে সমস্যা হয়।
  • গর্ভাবস্থায় মেজাজ বদলে যায় এবং যখন তখন খাবারে অথবা অন্যান্য কারণ বশত বমি পায়। এটি গর্ভাবস্থার একটি বিশেষ লক্ষণ।
  • মাঝে মাঝে গর্ভাবস্থায় কোষ্ঠকাঠিন্যের সম্ভাবনাও দেখা যায়। এই সময়ের মধ্যে, পেট ফাঁপা শুরু হয় এবং শরীর ফুলে যায়। এগুলি ছাড়াও হজমে নেতিবাচক প্রভাব পড়ে।

উপরের এই লক্ষণগুলি গর্ভধারণের লক্ষণ। তবে মাসিক বন্ধ হয়ে যাওয়া, ঘন ঘন বমি এবং ক্লান্তি ভাবকেই গর্ভধারণের লক্ষণ বলা হয়ে থাকে। গর্ভধারণের লক্ষণ শনাক্ত করা এটি ভালো মাধ্যম। তাই এই লক্ষণগুলি বুঝতে পারলে পরীক্ষা করা উচিত।

সারকথাঃ

গর্ভাবস্থায় শরীরে হরমোনের পরিবর্তনের কারণে ক্লান্তি অনুভব হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here