ধনতেরাস কি, সোনা কেনার কারণ, পূজাবিধি

ধনতেরাস

ধনতেরাস

আর তো মাত্র কয়েকদিন। তারপরে কড়া নাড়বে দীপাবলি। একই সাথে ধনতেরাস চলবে। যদিও অবাঙালিদের মধ্যে এই উৎসবটি ব্যাপকভাবে প্রচলিত থাকলেও , উৎসবটি এখন বাঙালির মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে। ধনতেরাসে উৎসবটি সোনাকে কেন্দ্র করে পালিত হয়।

কথিত আছে এই দিনে নতুন সোনা কিনলে মা লক্ষ্মী নিজে আসেন প্রত্যেক গৃহে এবং গৃহে, ব্যবসায় ধনসম্পদ বৃদ্ধি পায়। এই রেওয়াজ অনুযায়ী ধনতেরাসের দিন সোনা ঘরে নিয়ে আসেন অধিকাংশ মানুষ। বিশেষ করে ব্যবসায়ীদের কাছে এই দিনটি খুব গুরুত্বপূর্ণ।

ধনতেরাস আসলে কি?

ধনতেরাস আসলে কি

ধন্বন্তরী-ত্রয়োদশী বা ধনত্রয়োদশীকে ধনতেরাস বলা হয়। ধনতেরাস পালন করা হয় বিশেষত কার্তিক মাসের শুক্লপক্ষের ত্রয়োদশী তিথিতে। এই দিনে কিছু নতুন জিনিস কেনার রেওয়াজ রয়েছে। বিশেষ করে রুপা এবং সোনা কেনার প্রচলন রয়েছে। কারণ বিশ্বাস করা হয় এই দিনে নতুন নতুন জিনিস কিনলে ধন সম্পদ বৃদ্ধি পায়।

ধনতেরাসের দিন লক্ষ্মী ঠাকুর পূজা করা হয়। ধন্বন্তরী এই দিনে অবতার হয়েছিলেন এই কারনে এটিকে ধনতেরাস বলা হয়। সমুদ্র মন্থনের সময় সমস্ত দেবতা এবং অসুরদের দ্বারা যৌথভাবে প্রাপ্ত সম্পাদিত চৌদ্দ রত্নগুলির মধ্যে ধন্বন্তরী এবং মাতা লক্ষ্মী অন্যতম। তাই এই তারিখটি ধনত্রয়োদশী নামেও পরিচিত।

এই দিনে লক্ষ্মীর সাথে ধন্বন্তরী পূজা করা হয়। দীপাবলি ভারতের অন্যতম একটি উৎসব। দীপাবলি শুরু করা হয় ধনতেরাসের মাধ্যমে। দীপাবলির এক বা দুই দিন আগে ধনতেরাস পালিত হয়। এই দিনে লক্ষ্মী- গণেশ ও কুবের পূজা করা হয়। ধনতেরাসের দিন সোনা কেনা শুভ বলে বিবেচিত করা হয়। এই দিনে ধাতু কেনাও অত্যন্ত শুভ বলে মনে করা হয়।

আরও পড়ুনঃ ঘুড়ি: বিভিন্ন ধরণের ঘুড়ির তালিকা জেনে নিন

ধনতেরাসের দিন সোনা কেনা হয় কেন?

ধনতেরাসের দিন সোনা কেনা হয় কেন

ধনতেরাসের দিন অনেকে নতুন গহনা কিনে থাকেন। তবে ধনতেরাসের দিন কেন মানুষ সোনা কেনেন জানেন কি? এই দিনে সোনার কেনার পিছনে অনেকে ভিন্ন ধরণের কারণ বলে থাকে। তবে এই দিনে সোনা কেনার মূল কারণ হল প্রাচীন কালের রাজা হিমের ছেলের ভাগ্য লেখা ছিল বিয়ের চতুর্থ দিনে তার সাপের কামড়ে মৃত্যু হবে। তাই সে যখন বিয়ে করেন তার বিবাহিত স্ত্রী নিজের স্বামীকে বাঁচানোর জন্য তার সমস্ত অলংকার ঘরের দরজার সামনে স্তূপ করে রেখে দেন এবং দরজার সামনে প্রদীপ জ্বালিয়ে রেখে দেন। যম যখন ঘরে প্রবেশ করে তখন সোনার ছটায় এবং প্রদীপের আলোর ছটায় চোখ ধাঁধিয়ে যায়। এই প্রথা অনুযায়ী ধনতেরাসের দিন নতুন সোনা কেনায় হয় এবং ঘরে প্রদীপ জ্বালিয়ে রাখা হয়।

কথায় আছে এই দিন নতুন গহনা কিনলে মা লক্ষ্মী নিজে বাড়িতে প্রবেশ করেন এবং ধনসম্পদ বৃদ্ধি হয়। এর জন্যই সবাই ধনতেরাসের দিন নতুন সোনা কিনে থাকেন।

আরও পড়ুনঃ শুভ বিজয়া দশমী শুভেচ্ছা, এসএমএস , ম্যাসেজ, স্ট্যাটাস

ধনতেরাসে কেন পাত্র কেনা হয়?

ধনতেরাসে কেন পাত্র কেনা হয়

ধন্বন্তরী- কার্তিক কৃষ্ণপক্ষের ত্রয়োদশীর দিন সমুদ্র মন্থনের মধ্য দিয়ে উপস্থিত হয়েছিল। ধন্বন্তরী যখন উপস্থিত হলেন, তখন তাঁর হাতে অমৃত পূর্ণ কলস ছিল। ভগবান ধন্বন্তরী এই কলস নিয়ে হাজির হয়েছিলেন, তাই এই দিনটিতে পাত্রগুলি কেনার হয়। বিশেষত পিতল এবং সিলভার কেনা উচিত,। কারণ পিতল হ’ল মহর্ষি ধন্বন্তরীর ধাতু। এটি বাড়িতে স্বাস্থ্য, সৌভাগ্য এবং স্বাস্থ্য সুবিধা নিয়ে আসে।

আরও পড়ুনঃ বিশ্বকর্মা পূজা ২০১৯ বিস্তারিত আলোচনা

ধনতেরাসের দিন দক্ষিণ দিকে প্রদীপ জ্বালানো হয় কেন?

ধনতেরাসের দিন দক্ষিণ দিকে প্রদীপ জ্বালানো হয় কেন

ধনতেরাসের দিন বাড়ির দক্ষিণ দিকে প্রদীপ জ্বালানো হয়। এর পিছনে একটি ইতিহাস রয়েছে। একদিন দূত যমরাজকে প্রশ্ন করেন হিমের ছেলের অকাল মৃত্যুর এড়ানোর কোনও উপায় আছে কিনা? এই প্রশ্নের উত্তরে যমদেব বলেন ধনতেরাসের সন্ধ্যায় যমের নামে দক্ষিণ দিকে প্রদীপ জ্বালিয়ে রাখলে অকাল মৃত্যু হয় না। এই বিশ্বাস অনুসারেই ধনতেরাসের দিন সন্ধ্যাবেলায় বাড়ি দক্ষিণ দিকে যমের নামে প্রদীপ জ্বালান। যাতে তার পরিবার যমের হাত থেকে সুরক্ষা পান।

আরও পড়ুনঃ দূর্গা পূজার শুভেচ্ছা বার্তা, এসএমএস , ম্যাসেজ, স্ট্যাটাস

ধনতেরাস কীভাবে পালন করা হয়?

ধনতেরাস কীভাবে পালন করা হয়

ধনতেরাসের দিন সোনার দোকান এবং বাড়িতে লক্ষ্মীর আরাধনা করা হয়। পাশাপাশি গণেশ এবং কুবের পূজা করা হয়। সন্ধ্যাবেলা বাড়ির চারপাশে প্রদীপ জ্বালানো হয় এবং রঙ্গোলী দেওয়া হয়।

সন্ধ্যে থেকেই মানুষ সোনার দোকানে গিয়ে নতুন সোনা কেনেন এবং ধাতুর জিনিস ক্রয় করেন। সোনার দোকানে এই দিনে ধূমধাম করে পালিত হয়। কারণ এই দিনটি তাদের শ্রীবৃদ্ধির দিন। সোনার উপর চলে ছাড়। এইভাবেই চলে ধনতেরাস উদযাপন।

আরও পড়ুনঃ দোল পূর্ণিমা : দোল পূর্ণিমা বাংলার বসন্ত উৎসব

ধনতেরাসের পূজা বিধিঃ

ধনতেরাসের পূজা বিধিঃ

মূলত ধনতেরাস পূজা করা হয় সন্ধ্যেবেলা। পূজা স্থলে, উত্তর দিকে ভগবান কুবের এবং ধন্বন্তরী প্রতিমার পূজা করা উচিত। এর সাথে সাথে দেবী লক্ষ্মী এবং ভগবান শ্রীগনেশের পূজা করা হয়। এটা বিশ্বাস করা হয় যে ভগবান কুবেরের সাদা মিষ্টি দেওয়া উচিত, ধন্বন্তরীর হলুদ মিষ্টি দেওয়া উচিত। কারণ ধন্বন্তরী হলুদ জিনিস পছন্দ করেন।

আরও পড়ুনঃ হোলির শুভেচ্ছা : হোলি শুভেচ্ছার ম্যাসেজ

এছাড়া পূজার স্থলে ফল, ফুল, চাল, চন্দন, দ্বীপ এবং প্রদীপ সাজিয়ে পূজা করা হয়। যমের নামে প্রদীপ জ্বালিয়ে তাকে প্রনাম করে বাড়ির মঙ্গল কামনা করা হয়।

সারকথাঃ

ধনতেরাসের মূল আকর্ষণ হল নতুন সোনার জিনিস ঘরে তোলা।

সচরাচর জিজ্ঞাস্য প্রশ্ন উত্তরঃ

প্রঃ ধনতেরাসের পূজা কখন করা শুভ?

উঃ ধনতেরাসের পূজা সন্ধ্যাবেলা করা শুভ।

প্রঃ ধনতেরাসের দিন সোনা কিনলে কি হয়?

উঃ ধনতেরাসের দিন সোনা কেনা শুভ। বাড়ির অর্থ সম্পদ বৃদ্ধি ঘটে।

প্রঃ ধনতেরাসে কেমন পাত্র কিনতে হয়?

উঃ ধনতেরাসের দিন ধাতু কেনা শুভ। সিলভার বা পিতলের পাত্র কিনতে হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here