বিশ্বকর্মা পূজা ২০১৯ বিস্তারিত আলোচনা

viswakarma

সূত্রঃ- cloud . millenniumpost . in

বিশ্বকর্মা পূজা তো চলেই এলো। প্রত্যেক বছরের মতো এবারও বিশ্বকর্মা পূজা ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর মাসে উদযাপিত হবে। গোটা বিশ্ব রচনা হয়েছিল বিশ্বকর্মার হাত ধরে। কথিত আছে যে ভগবান ব্রহ্মা তাঁর কাঁধে বিশ্বজগতের সৃষ্টির দায়িত্ব অর্পণ করেছিলেন। ১৭ ই সেপ্টেম্বর গোটা ভারতে এই দিনটি উদযাপিত হয়।

এই দিনে কারখানা, অফিস এবং বাড়িতে যাদের গাড়ি অথবা মেশিন রয়েছে এবং অন্যান্য নির্মাণ স্থানে বিশ্বকর্মা পূজা করা হয়। কথায় আছে যে প্রাচীন কালে গোটা বিশ্বে অস্ত্র,  ও প্রাসাদগুলি বিশ্বকর্মা তৈরি করেছিলেন।  এ কারণে ভগবান বিশ্বকর্মাও সৃষ্টি ও সৃষ্টির দেবতা হিসাবে বিবেচিত হন।

আরও পড়ুনঃ ঘুড়ি: বিভিন্ন ধরণের ঘুড়ির তালিকা জেনে নিন

কারবারে শ্রীবৃদ্ধির জন্য ভগবান বিশ্বকর্মাকে এই দিনে পূজিত হন। বিশাল জাঁকজমকভাবে এই পূজা পালন করা হয় বিভিন্ন স্থানে পাশাপাশি চলে এই দিনের প্রাচীন রেওয়াজ ঘুড়ি লড়াই। আট থেকে আশি সবাই এই ঘুড়ির লড়াইয়ে মেতে ওঠে। বিভিন্ন মাঠে-ঘাটে, রাস্তায়, ছাদে ঘুড়ি খেলতে দেখা যায়। আকাশ যেন এক অপরূপ রুপ ধারন করে এই দিনে। কারণ দিনভর আকাশে রঙিন ঘুড়ির মেলা

আজকের এই নিবন্ধে বিশ্বকর্মা পূজা নিয়ে আপনাদের সঙ্গে কিছু বিশেষ জিনিস শেয়ার করে নেব। আপনারা আজকের এই নিবন্ধে থেকে বিশ্বকর্মা উৎসবের গুরুত্ব এবং বিধি জানতে পারবেন এবং পাশাপাশি জেনে নিতে পারবেন কেন এই ১৭ ই সেপ্টেম্বরই বিশ্বকর্মা পূজা পালন হয়।

আরও পড়ুনঃ দোল পূর্ণিমা : দোল পূর্ণিমা বাংলার বসন্ত উৎসব

বিশ্বকর্মা পূজা উৎসবঃ

viswakarma puja

সূত্রঃ- images.inkhabar.com

বিশ্বকর্মা পূজা বিভিন্ন জায়গায় পালন করা হয়। তবে এটি সাধারণত যান্ত্রিক সম্পর্কিত প্রতিষ্ঠানে উদযাপিত হয়। যেমন কলকারখানা। এই দিনে অফিস বা কারখানায় তাদের কর্মচারীরা কারখানা এবং অফিস পরিষ্কার করে এবং বিশ্বকর্মা পূজা করার জন্য সাজিয়ে থাকেন।  এমনকি বাড়িতে, লোকেরা তাদের বৈদ্যুতিন ডিভাইস, ঘর এবং যানবাহন পূজা করে।

এই দিনে লোহার জিনিস থেকে শুরু করে মেশিন, কম্পিউটার, যন্ত্রপাতি, যানবাহন পূজা করা হয়। উত্তর ভারতেও খুব জাঁকজমক ভাবে পালন করা হয় এই পূজা। কলকাতাতেও এখন বিশাল আড়ম্বরের সঙ্গে এই পূজা পালন করা হয়।

আরও পড়ুনঃ বিবাহ বার্ষিকী ম্যাসেজ , শুভেচ্ছা, এসএমএস

 সমস্ত কারিগররা এই পুজোর জন্য অপেক্ষা করেন। এই দিনে দোকান বা কারখানায় কোনও কাজ নেই। এই দিনে কেবল পূজা হয়। এই পুজোর পরের দিন “ভগবান বিশ্বকর্মা” এর প্রতিমা স্থাপন করা হয়।

সকলেই সকালে স্নান করে উপাসনা স্থলে ভগবান বিশ্বকর্মার একটি ছবি রাখেন অথবা মূর্তি রাখেন। তারা এতে ফুলের মালা দেয়। ধূপ, প্রদীপ, ধূপের কাঠি জ্বালিয়ে সরঞ্জামগুলি উপাসনা করা হয়। তারপরে প্রভু বিশ্বকর্মে ধ্যান করে তাঁর হাতে অক্ষর ও অক্ষরে ফুল অর্পণ করেন। পূজার সমাপ্তি হলে প্রসাদ দেওয়া হয়।

বিশ্বকর্মা পূজার সবচেয়ে শ্রেষ্ঠ আকর্ষণ হল ঘুড়ি। সকাল থেকে ছোট থেকে বড়োরা সবাই ঘুড়ির লড়াইয়ে মেতে ওঠে। আকাশ ভরে নানা রঙের ঘুড়ি উড়তে দেখা যায়। যেন মেঘের আড়ালে ঘুড়ি ভাসচ্ছে। বাড়ির ছাদে ছাদে, রাস্তা এবং অলিতে গলিতে ভোকাট্টার সুর ভেসে আসে। প্রাচীনকাল থেকে বিশ্বকর্মা পূজার দিন ঘুড়ি ওড়ানোর রেওয়াজ চলে আসছে।

বিশ্বকর্মা পুজোর গুরুত্বঃ

viswakarma 2

সূত্রঃ- www . hlimg . com

ভগবান বিশ্বকর্মার জন্মদিন বিশ্বকর্মা পূজা, বিশ্বকর্মা দিবস বা বিশ্বকর্মা জয়ন্তী নামে পরিচিত। হিন্দু ধর্মে এই উৎসবটি তাৎপর্য রয়েছে। বিশ্বাস করা হয় যে ভগবান বিশ্বকর্মা সত্যযুগের শ্রী যুগের লঙ্কা এবং কলিযুগের হস্তিনাপুর সৃষ্টি করেছিলেন।

ভগবান বিশ্বকর্মা দেবতাদের স্থপতি, স্থাপত্যের দেবতা, প্রথম প্রকৌশলী, দেবতাদের প্রকৌশলী এবং যন্ত্রের দেবতা নামে অভিহিত হন।সুতরাং যারা শিল্পী, কারিগর এবং ব্যবসায়ী তাদের জন্য এই উপাসনাটি আরও গুরুত্বপূর্ণ। বিশ্বাস করা হয় যে বিশ্বকর্মা দেবীর উপাসনা করলে কারবারে শ্রীবৃদ্ধি হয়। আরও বলা হয়ে থাকে এই পূজা করলে যন্ত্রপাতি খারাপ হয় না এবং দিনরাত ব্যবসায় চতুর্থাংশ বৃদ্ধি ঘটে।

আরও পড়ুনঃ এক তরফা ভালোবাসার গল্প এর কাহিনী

বিশ্বকর্মা পূজা বিধিঃ

viswakarma 3

সূত্রঃ- images1 . livehindustan . com

প্রথমত, সকালে আপনার দোকানের গাড়ি মোটর বা মেশিনগুলি ধুয়ে পরিষ্কার করুন, ঘর পরিষ্কার করুন এবং পূজার সমস্ত উপকরণ একদিন আগেই প্রস্তুত রাখুন। পাশাপাশি যন্ত্রপাতিগুলি পূজার স্থানে রাখতে হয়। এরপর স্নান করে পূজার জায়গায় বসুন এবং হাতে ফুল এবং চাল নিয়ে পূজার মন্ত্র পড়ে ফুল ছিটিয়ে দিন। পূজার ফুল, ফল, ধুপ আগে থেকে জোগাড় করে রাখতে হয়।

আরও পড়ুনঃ শুভ রাত্রি শুভেচ্ছা বার্তা, ম্যাসেজ, এসএমএস

প্রত্যেক বছর ১৭ ই সেপ্টেম্বর একই দিনে বিশ্বকর্মা পূজা পালনের কারণঃ

viswa

সূত্রঃ-  www . templepurohit . com

প্রত্যেক বছর প্রায় সব পুজাই তিথি নক্ষত্র অনুযায়ী আলাদা আলাদা তারিখে পালন করা হয়। কিন্তু বিশ্বকর্মা পূজা তার ব্যতিক্রম। প্রত্যেক বছর বিশ্বকর্মা পূজা ১৭ ই সেপ্টেম্বর পালিত হয়।

আরও পড়ুনঃ শুভ বিজয়া দশমী শুভেচ্ছা, এসএমএস , ম্যাসেজ, স্ট্যাটাস

অন্যান্য দেবদেবীদের পূজা নির্ভর করে চাঁদের গতিপ্রকৃতির উপর। তবে বিশ্বকর্মা পূজা নির্ভর হয় সূর্যের গতিপ্রকৃতির উপর। ভাদ্র মাসের শেষ তারিখে এই পূজার দিনটি নির্ধারিত করা হয়েছে।  এই মাসের আগে পঞ্জিকায় পাঁচটি মাস রয়েছে। এই মাসগুলি দিন সংখ্যা একই থাকে। সেই হিসাব অনুযায়ী বাংলা পঞ্জিকায় এই পূজা যে তারিখে পড়ে তা ইংরেজি ক্যালেন্ডারে ১৭ ই সেপ্টেম্বর ই পড়ে। তাই এই পূজার দিনটি প্রায় প্রত্যেক বছর ১৭ ই সেপ্টেম্বরই ক্যালেন্ডারে পড়ে।

সারকথাঃ

আমাদের প্রতেকের জীবনে শিল্প অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাই মানবজীবনে বিশ্বকর্মা পূজার সর্বদা গুরুত্ব রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here