দাঁতের মাড়ির সমস্যাঃ মাড়ির সমস্যা থেকে মুক্তির ঘরোয়া উপায়

দাঁতের মাড়ির সমস্যা থেকে মুক্তির উপায়

দাঁতের মাড়ির সমস্যা থেকে মুক্তির উপায়

সুন্দর ত্বক পেতে আমরা কত কিছুই না করে থাকি। কিন্তু দাঁতের খেয়াল রাখতে আমরা ভুলেই যাই। দাঁতের যত্নে অবহেলা করে থাকি। আলসেমির কারনে অনেকে দিনে দুবার ব্রাশ করে না। যার ফলে মাড়িতে সমস্যা দেখা যায়। কিছু ঘরোয়া পদ্ধিতে দাঁতের মাড়ির সমস্যা থেকে অনেকটাই মুক্তি পাওয়া যায়।

দাঁতের মাড়ির সমস্যা থেকে মুক্তির উপায়

দাঁতের মাড়ির প্রাথমিক লক্ষণ হল মাড়ি দূরে সরে যাওয়া। যার ফলে দাঁতের অনেকটা অংশ দেখা যায়। মাড়িতে ব্য়াকটেরিয়া ঢুকে যাওয়ায় দাঁতের মাড়ির সমস্যা দেখা যায়। মাড়ি ফোলা, রক্ত পড়া, মুখে দূর্গন্ধ ইত্য়াদি।
দাঁতের মাড়ির সমস্যা কোনো সাধারণ সমস্যা নয়। ছোটো খাটো সমস্যা না চিকিৎসা করলে বড়ো হয়ে দাঁড়ায়। তাই সঠিক সময় প্রতিকার করা প্রয়োজন।

নিয়মিত ব্রাশ করাঃ

ঠিকভাবে ব্রাশ না করলে দাঁতে ব্য়াকটেরিয়া জমে। ফলে মুখে দূর্গন্ধ সৃষ্টি হয়। দাঁতের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে দিনে দুবার ব্রাশ করুন।

গুরুত্বপূর্ণ নোটসঃ
খুব জোরে ব্রাশ করা উচিত না। তাতে মাড়ি সরে যেতে পারে। পাথর জমতে পারে। দাঁতে হলকা করে নীচ থেকে উপরে ব্রাশ করবেন।

নিয়মিত ফ্লস করুনঃ

অনিয়মিত ব্রাশ করার ফলে দাঁত ক্ষয় হতে পারে। তাই নিয়মিত ব্রাশ করার পাশাপাশি ফ্লস করুন। মাড়ি শক্ত রাখতে নিয়মিত ফ্লস করাটা জরুরী।

সম্পর্কিত নিবন্ধ চেক করুন :- 

লবণ জল কুলকুচিঃ

মাড়ির সমস্যা অন্য়তম লক্ষণ হল রক্ত পড়া। যার ফলে দাঁতে পাথর জমে এবং দাঁত পড়ে যাওয়ার সমস্যা থাকে। এর থেকে মুক্তি পেতে রোজ লবণ জল হালকা গরম করে কুলকুচি করুন।

সারকথাঃ
দাঁতের মাড়ির সমস্যা অন্য়তম কার্যকারি ঔষধ লবণ জল । মাড়ির রক্ত পড়ার পাশাপাশি মাড়ির ফোলা ভাব কমায়।

বেশি করে ফল ও সব্জি খানঃ

বেশি করে ফল ও সব্জি খানঃ

পুষ্টিকর ফল ও সব্জি খান। যেমন পেয়ারা( দাঁতের পক্ষে উপকার) আপেল, গাজর, শাক, কমলালেবু ইত্য়াদি। এই ধরণের খাবার মাড়িকে শক্তিশালী রাখার পাশাপাশি মাড়ি থেকে রক্ত পড়া কমায়।

লবঙ্গঃ

লবঙ্গে রয়েছে অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি উপাদান। যা দাঁতের ব্য়াকটেরিয়া দূর করে মাড়ি থেকে রক্ত পড়া দ্রুত বন্ধ করে দেয়। মাড়ি সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে ২-৩ টে লবঙ্গ মুখে নিয়ে চেবান।

অ্যালোভেরাঃ

অ্যালোভেরাঃ

অ্যালোভেরা স্বাস্থ্যের পক্ষে কতটা জরুরী নতুন করে বলার আর দরকার পড়ে না। মাড়ির সুরক্ষায় অ্যালোভেরা জেল অনেক কার্যকারি।
অ্যালোভেরা জেলে অ্যান্টি ইনফ্লামেটোরি ও অ্যান্টি ব্য়াকটেরিয়াল উপাদান থাকায় মাড়ির সমস্যা নিরাময়ে সাহায্য় করে।
প্রতিদিন খাওয়ার আগে ও পরে অ্যালোভেরা জেল দিয়ে দাঁত ব্রাশ করলে মাড়ি ও দাঁত ক্ষয় রোধ হবে।

সারকথাঃ
অ্যালোভেরা গাছ ভেষজ ঔষধ বলে পরিচিত।

তিলের তেলের মাউথ ওয়াশঃ

অনেক সময় ব্রাশ করার পরও দাঁতের মধ্যে খাদ্যকণা জমে থাকে। যার ফলে মাড়ির ও দাঁতের ক্ষয় হয়। তিলের তেল মাউথ ওয়াশ হিসাবে ব্যবহার করুন। দাঁত ও মাড়ির ক্ষয় প্রতিরোধ করতে তিলের তেল অল্প গরম করে ব্যবহার করা ভালো।

গ্রিন টিঃ

গ্রিন টিঃ

এতে রয়েছে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট। যা সাস্থ্য়ের সবরকম সমস্য়ার উপশমে কার্যকরী উপাদান। মাড়ির সমস্যা প্রতিকারে গ্রিন টি অসাধারণ কাজ করে। এটি দাঁতের ব্য়াকটেরিয়া ধ্বংস করতে সক্ষম।
এই সমস্ত পদ্ধতিগুলি রপ্ত করলে মাড়ির সমস্যা থেকে চিরতরে মুক্তি পাওয়া সম্ভব হয়।

রইল কিছু অতিরিক্ত টিপস

• দিনে দুবার দাঁত ব্রাশ করবেন।
• খুব জোরে চাপ দিয়ে দাঁত ব্রাশ করবেন না।
• মুখ পরিস্কার রাখতে প্রতিদিন জল পান করুন।
• বৃত্তকারে দাঁত ব্রাশ করবেন।
• ৩ মাস পর পর ব্রাশ পরিবর্তন করা উচিত।
• খাবার পরে নিয়মিত কুলকুচি করবেন।
• বেশি করে টাটকা ফল ও সব্জি খাবেন। পুষ্টিকর খাবারে ভিটামিন সি ও ক্য়ালসিয়াম রয়েছে যা মাড়ি শক্তিশালী করে তোলে।
• নিয়মিত দাঁতের চোয়ালে ব্যায়াম করুন।
• পান, তামাক, সিগারেট মাড়ির পক্ষে ক্ষতিকারক। এগুলি এড়িয়ে চলুন।
• ৬ মাস অন্তর চেক আপ করান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here