জেনে নিন, জীবন বীমা পরিকল্পনা সুবিধা কী ও বীমা পলিসির ধরন

জীবন বীমা পরিকল্পনা কি?  

জীবন বীমা এমন এক বীমা যা মানুষের জীবনের ঝুঁকি ও অনিশ্চয়তা হ্রাস করতে করা হয়। জীবন বীমা সাধারণ লাইফ ইনস্যুরেন্স নামে পরিচিত। জীবন বীমা পরিকল্পনা এমন একটি পলিসি যেখানে বীমাকারী বীমাগ্রহীতাকে তার জীবনের ঝুঁকির জন্য অর্থ প্রদান করে থাকে। অনেকেই জীবন বীমা পরিকল্পনা নিয়ে সংশয়ে পরে। তাই আজ এই নিবন্ধে জীবন বীমা পরিকল্পনা নিয়ে আলোচনা করা হল-

জীবন বীমা পরিকল্পনা কি?  

Source 

জীবন বীমা পরিকল্পনা কি?  

সাধারণত মানুষের জীবনের উপর যে বীমা করা হয় তাকে জীবন বীমা এই জীবন বীমা কেবল কোন ব্যক্তির নামেই হতে পারে। অর্থাৎ জীবন বীমা পরিকল্পনা এমন এক ধরনের চুক্তি যেখানে কোন ব্যক্তি নিয়মিতভাবে নির্দিষ্ট পরিমাণ বীমা মাশুল প্রদান করে। এর প্রতিদানে একটি নির্দিষ্ট সময় আস্তে বীমাগ্রহীতাকে অথবা তার মৃত্যু হলে তার উত্তরাধিকারকে বীমাকারী একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ প্রদানের প্রতিশ্রুতি প্রদান করে। তাই এই ধরনের চুক্তিকে নিশ্চয়তার চুক্তি বলা হয়।

আরও পড়ুন । কারবার বা ব্যবসার ক্ষেত্রে বীমার প্রয়োজনীয়তা

আমাদের জীবনে জীবন বীমা কেন প্রয়োজন?  

যদি আপনার প্রিয়জনরা তাদের জীবিকা নির্বাহের জন্য আপনার আর্থিক সহায়তার উপর নির্ভর করে, তবে জীবন বীমা একটি আবশ্যক, কারণ এটি আপনি খন মারা যাবেন তখন আপনার পরিবারকে সাহায্য করবে। আপনাকে গুরুতর স্বাস্থ্যগত সমস্যা যেমন- হৃদ্‌রোগ, ক্যান্সার, মস্তিষ্কের টিউমার ইত্যাদি থেকে  আর্থিক খরচের হাত থেকে রক্ষা করবে

আয়কর আইনে ১৯৬১, 80C ধারায় জীবন বীমা প্রিমিয়ামের জন্য ছাড় পাবে। তাই নিজের এবং নিজের পরিবারের জীবনের ঝুঁকি হ্রাস করতে জীবন বীমা প্রয়োজন।

জীবন বীমা পরিকল্পনা কি কি সুবিধা পাওয়া যায়? 

Source

জীবন বীমা পরিকল্পনা কি কি সুবিধা পাওয়া যায়? 

1. ঝুঁকি কভারেজঃ-

বীমা প্রিমিয়াম অর্থের পরিবর্তে জীবনের আর্থিক ক্ষতিপূরণ হিসাবে বীমাকৃত পরিবারের ঝুঁকি কভারেজ করে।

2. স্বাস্থ্যের খরচ বহন করেঃ

এই পলিসি অসুস্থতার খরচ ও হাসপাতালের চিকিৎসার খরচ বহন করে।

3. বিভিন্ন ধরনের পরিকল্পনাঃ

বীমাগ্রহীতার প্রয়োজনীয় বীমার উপর নির্ভর করে বীমা কোম্পানিগুলি বিভিন্ন ধরনের জীবন বীমা পরিকল্পনা অফার করে থাকে। বেশি প্রিমিয়ামের সঙ্গে সঙ্গে বেশি সুযোগ সুবিধা পাওয়া যায়।

4. সঞ্চয় সৃষ্টিঃ-

বীমা পলিসিগুলি সেভিং প্ল্যান রয়েছে। বীমা কোম্পানিগুলি আপনার অর্থ লাভজনক উদ্যোগে বিনিয়োগ করে।

5. লোনের সুবিধাঃ-

বীমা কোম্পানিগুলি বীমাগ্রহীতাকে একটি বিকল্প প্রদান করে যে তারা নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ ঋন নিতে পারে। এই সুবিধাটি শুধুমাত্র পলিস নির্বাচনেই পাওয়া যায়।

আরও পড়ুন । বীমা কি এবং কত ধরণের বীমা রয়েছে

জীবন বীমা পলিসি কত প্রকার?  

Source

জীবন বীমা পলিসি কত প্রকার?  

  • মেয়াদী বীমা পরিকল্পনা (Term insurance plan)

এই ধরণের পলিসিগুলি নির্দিষ্ট মেয়াদের জন্য কেনা হয়ে থাকে। যেমন ১০ বছর, ২০ বছর বা ৩০ বছর। যেহেতু এই পলিসিগুলি কোন নগদ মূল্য বহন করে না, তাই এই পলিসিগুলি কোন মেয়াদপূর্তির সুবিধা বহন করে না।

অন্যান্য পলিসিগুলি তুলনায় এই ধরণের পলিসিগুলি কম ব্যয়বহুল। একটি মেয়াদী পরিকল্পনা একটি নির্দিষ্ট সময়ের জন্য সাশ্রয়ী মূল্যের প্রিমিয়ামে মৃত্যুর ঝুঁকি কভার সরবরাহ করে।

  • আজীবন বীমা পরিকল্পনা (Whole Life Policy)

এই পলিসিগুলি অন্যান্য পলিসিগুলোর মতো নির্দিষ্ট মেয়াদ জন্য কেনা হয় না। এই পলিসিতে বীমাগ্রহীতাকে পুরো জীবন প্রিমিয়ামের অর্থ পরিশোধ করতে হয়। এই বীমা পরিকল্পনা অন্যান্য পরিকল্পনা থেকে বেশি অধিক। বীমাকৃত ব্যক্তির মৃত্যুর পর, পরিবারের লোক বীমাপত্রের এই আর্থিক সুবিধা ভোগ করতে পারবে।

  • এন্ডোমেন্ট পলিসি (Endowment Life Policy)

মেয়াদি বীমা পরিকল্পনা ও এন্ডোমেন্ট পলিসির মধ্যে পার্থক্য হল, এই পলিসিতে গ্রাহকদের অতিরিক্ত সুবিধা প্রদান করে থাকে। মেয়াদপূর্তির তারিখ পর্যন্ত বেঁচে থাকার জন্য এই পলিসিটি বীমাকৃতদের একক অর্থ প্রদান করে থাকে।

  • অর্থ ফেরত পলিসি (Money Back Life Policy)

এই ধরণের পলিসিগুলি এন্ডোমেন্ট পলিসির মতোই। এটি শুধু মেয়াদ শেষ হওয়ার সাথে সমানভাবে বরাদ্দ করে।

  • রিটারমেণ্ট পলিসি (Retirement Policy)

রিটারমেণ্ট পলিসি পেনশন পলিসি নামে পরিচিত। এই পলিসি বীমাকৃতকে তার অবসরের সময় একটি সংস্থান সংগ্রহ করতে সহয়তা করে।

জীবন বীমা কারা কিনতে পারবে?

Source

জীবন বীমা কারা কিনতে পারবে?

১৮ থেকে ৬৫ বছরের মধ্যে যেকোনো ব্যক্তি পুরুষ ও মহিলা উভয়ই ভারতের জীবন বীমা পলিসি কিনতে পারবেন।

আরও পড়ুন ।  দাঁতের বীমাঃ দাঁতের স্বাস্থ্য বীমার সুবিধা

কোন জীবন বীমা পরিকল্পনা আপনার জন্য উপযুক্ত?   

Source

কোন জীবন বীমা পরিকল্পনা আপনার জন্য উপযুক্ত?   

জীবনের ঝুঁকি হ্রাস করতে আমাদের জীবন বীমা পরিকল্পনা প্রয়োজন। তবে কার জন্য কোন পলিসি প্রয়োজন দেখে নিনি-

  1. আপনি যদি অল্প বয়সী এবং অবিবাহিত হন তাহলে আপনি সঞ্চয় পরিকল্পনা, স্বাস্থ্য বীমা বাছাই করতে পারেন।
  2. আপনি যদি বিবাহিত হন এবং আপনার ছোট বাচ্চা থাকলে তাহলে আপনি মেয়াদী পলিসি, সঞ্চয় বীমা এবং শিশু পলিসি কিনতে পারেন।
  3. আপনি যদি বিবাহিত হন তবে আপনার কোনও সন্তান না থাকে তাহল মেয়াদী পরিকল্পনা, সঞ্চয় পরিকল্পনা, স্বাস্থ্য বীমা করতে পারেন।
  4. পিতামাতার সঙ্গে কিশোর সন্তান থাকলে মেয়াদী বীমা, সঞ্চয় পরিকল্পনা, স্বাস্থ্য বীমা, শিশু পলিসি বাছাই করতে পারেন।
  5. অবসরের কাছাকাছি সময়ে স্বাস্থ্য বীমা, মেয়াদী বীমা, সঞ্চয় পরিকল্পনা কিনতে পারেন।

জীবন বীমা পলিসি কিনতে গেলে কি কি ডকুমেন্ট লাগবে?

জীবন বীমা পলিসি কেনার জন্য আপনার যে ডকুমেন্টগুলি প্রয়োজন তা নিম্নলিখিত:

  • পরিচয় প্রমাণপত্র (Ration Card / Voter ID / PAN Card / Passport / Driving License)
  • পাসপোর্ট সাইজের ফোটো
  • বয়সের প্রমাণ  (PAN Card / Passport / Driving License /   SSC Certificate)
  • আয়ের প্রমানপত্র  (Income Tax Returns/ Pension Pass Book  / Form 16 / Salary Slip)
  • বসবাসের প্রমান (Telephone Bill / Ration Card / Voter ID / Passport / Electricity Bill / Water Bill)

আরও পড়ুন । সাধারন বীমা কি এবং এর শ্রেণীবিভাগ

জীবন বীমা পলিসি কীভাবে কিনবেন? 

Source

জীবন বীমা পলিসি কীভাবে কিনবেন? 

আপনি যদি অফলাইনে জীবন বীমা কেনেন তাহলে আপনাকে LIC কর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে হবে, তারাই আপনাকে বিভিন্ন ধরনের LIC সম্পর্কে জানাবে এবং ফর্মের দ্বারা পলিসি কেনার জন্য সহায়তা করবে। আর আপনি যদি অনলাইনে LIC পত্র কিনতে চান তাহলে যেই বীমা কোম্পানি থেকে করতে ইচ্ছুক সেই কোম্পানির অনলাইনে গিয়ে বীমা ক্রয় করতে হবে।

https://progotirbangla.com/

Source

কীভাবে জীবন বীমা পলিসি প্রিমিয়াম প্রদান করতে হয়?

জীবন বীমা পরিকল্পনা আপনাকে একক অথবা বার্ষিক, আধা-বার্ষিক, ত্রৈমাসিক বা মাসিক পদ্ধতিতে প্রিমিয়াম প্রদান করতে দেয়।

বার্ষিক – আপনাকে বছরে একবার বার্ষিক প্রিমিয়াম প্রদান করতে হবে।

আধা-বার্ষিক – প্রতি ছয় মাসে একবারে বার্ষিক প্রিমিয়ামের অর্ধেক প্রদান করতে হবে।

ত্রৈমাসিক – প্রতি চার মাসে একবার বার্ষিক প্রিমিয়ামের এক তৃতীয়াংশ প্রদান করতে হবে।

মাসিক – প্রতি মাসে প্রিমিয়াম প্রদান করতে হবে।

আরও পড়ুন ।  স্বাস্থ্য বীমা পরিকল্পনাঃ স্বাস্থ্য বীমা কভারেজ

জীবন বীমার জন্য কীভাবে দাবী করবেন?

Source

জীবন বীমার জন্য কীভাবে দাবী করবেন?

আপনি যদি মৃত্যুর জন্য জীবন বীমা দাবী করতে চান তাহলে মনোনীত ব্যক্তিকে মৃত্যুর সুবিধা অর্জনের জন্য একটি মৃত্যু দাবি করতে হবে।

আপনার যদি শারীরিক বীমা পলিসি থাকে তবে আপনি নিজের জীবন বীমা সরবরাহকারীর কাছ থেকে দাবি জানাতে বা একটি বিজ্ঞপ্তি ফর্ম নিতে পারেন।

পলিসিধারকের নাম, মৃত্যুর স্থান, বিমাকৃত ব্যক্তির নাম, দাবিদারের নাম ইত্যাদির মতো প্রমান সহ মৃত্যুর ফর্ম পূরণ করতে হবে। নীত ব্যক্তিকে প্রমাণ হিসাবে পরিপূর্ণ সমস্ত উপযুক্ত নথিপত্র একত্রিত করতে হবে।

এই নথিগুলি কোম্পানীর কাছে সরবরাহ করতে হবে এবং ফর্ম এবং নথি জমা দেওয়ার পরে, সংস্থাটি সবকিছু যাচাই করবে এবং তারপরে দাবি নিষ্পত্তি করা উচিত কিনা তা সিদ্ধান্ত নেবে।

জীবন বীমা পলিসির নমিনি বলতে কি বোঝায়?

Source

জীবন বীমা পলিসির নমিনি বলতে কি বোঝায়?

আপনি যদি জীবন বীমা করেন তাহলে আপনাকে একজন নমিনি রাখতে হবে। নমিনি হল সেই মনোনীত ব্যক্তি যিনি বীমা ধারক ব্যক্তির মৃত্যুর পর বীমা পরিকল্পনার সুবিধার আর্থিক পরিমাণ পাবেন। আপনি পরিবারে বাবা, মা, স্ত্রী, সন্তান যেকোনো কাউকে নমিনি করতে পারেন।

আরও পড়ুন । সুরক্ষা বীমা যোজনা।Suraksha Bima Yojana আবেদন এবং সম্পর্কিত তথ্য

জীবন বীমা কভারেজ সময়কাল বলতে কি বোঝায়?

Source

জীবন বীমা কভারেজ সময়কাল বলতে কি বোঝায়?

কভারেজ পিরিয়ড বা নীতি মেয়াদ হ’ল সময়কাল। এই সময়কাল হল যা আপনি কভার করেন পলিসিতে। প্রিমিয়াম প্রদানের মেয়াদ কভারেজ পিরিয়ডের চেয়ে আলাদা। প্রিমিয়াম প্রদানের মেয়াদ এমন সময়কাল যার জন্য আপনি জীবন বীমা প্রিমিয়াম প্রদান করবেন।

ভারতে সেরা জীবন বীমা কোম্পানি কোনগুলি? 

Source

ভারতে সেরা জীবন বীমা কোম্পানি কোনগুলি? 

  • লাইফ ইনস্যুরেন্স কর্পোরেশন
  •  এস.বি.আই লাইফ ইন্সুরেন্স
  •  আই.সি.আই.সি
  •  বাজাজ আলিয়ানজ লাইফ ইন্সুরেন্স
  •  ম্যাক্স লাইফ ইন্সুরেন্স
  •  বিড়লা সান লাইফ ইন্সুরেন্স
  • কোটাক লাইফ ইন্সুরেন্স
  • এইচডিএফসি স্ট্যান্ডার্ড লাইফ ইন্স্যুরেন্সের

সারকথাঃ
জীবন বীমা মানুষের জীবনের ঝুঁকি বহন করে।

সচরাচর জিজ্ঞাস্য প্রশ্ন উত্তরঃ-  

Q. জীবন বীমা কি?

A.  মানুষের জীবনের ঝুঁকি ও অনিশ্চয়তা হ্রাস করতে যে বীমা করা হয় তাকে জীবন বীমা বলে।

Q. জীবন বীমা পলিসি কত প্রকারের রয়েছে।

A. জীবন বীমা পলিসি বিভিন্ন প্রকারের রয়েছে। যেমন- মেয়াদী বীমা পরিকল্পনা, আজীবন বীমা পরিকল্পনা, এন্ডোমেন্ট পলিসি, অর্থ ফেরত পলিসি, রিটারমেণ্ট পলিসি, ইউপিএল ইত্যাদি।

Q. জীবন বীমা পলিসি কত বছর বয়সের ব্যক্তিরা করতে পারেব?

A.  ১৮ থেকে ৬৫ বছরের মধ্যে যেকোনো ব্যক্তি করতে পারবে।

Q. জীবন বীমা পলিসি নমিনি কাদের  করা যায়? 

A. জীবন বীমা পলিসি পরিবারের বাবা, মা, স্ত্রী, সন্তান যেকোনো কাউকে নমিনি করতে পারেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here