আলিয়া ভাটের বায়োগ্রাফিঃ অভিনয় জগতে আলিয়া ভাটের জীবনের গল্প

আলিয়া ভাটের বায়োগ্রাফি (BIOGRAPHY)

আলিয়া ভাটের বায়োগ্রাফি (BIOGRAPHY)

আলিয়া ভাটের বায়োগ্রাফি (BIOGRAPHY)

পুরো নাম

আলিয়া ভাট

পেশা

অভিনেত্রী

জন্ম তারিখ

১৯৯৩ সালে, ১৫ ই মার্চ

জন্ম স্থান

মুম্বাই, মহারাষ্ট্র

বয়স

২৬ বছর

শহর

মুম্বাই

জাতীয়তা

ভারতীয়

পিতা

মহেশ ভাট

মাতা

সনি রাজদান

ভাই/বোন

শাহীন ভাট, পূজা ভাট, রাহুল ভাট

স্কুল

মুম্বাইয়ে জামাবাই নার্সী বিদ্যালয়

উচ্চতা

৫ ফুট ৩ ইঞ্চি

ওজন

৫৪ কেজি

রাশি

মীনরাশি

চোখের রঙ

হালকা বাদামী

চুলের রঙ

কালো

প্রিয় অভিনেত্রী

কঙ্গনা রানাওয়াত, করিনা কাপুর

প্রিয় অভিনেতা

শাহরুখ খান, গোভিন্দা, রনবীর কাপুর

প্রিয় রং

লাল

দেবিউ (প্রথম সিনেমা)

সংঘর্ষ, স্টুডেন্ট অব দ্য ইয়ার

শখ

গান করা, গান শোনা, ব্যায়াম করা, ভ্রমণ

আলিয়া ভাট একজন চমৎকার, গ্ল্যামারস ভারতীয় অভিনেত্রী যিনি বলিউড ফিল্মে কাজ করে। শুধু দারুন অভিনয়ই নয় করেন না বরং রয়েছে ভালো গানের প্রতিভা। বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে খুব অল্প সময়ের মধ্যেই তার প্রতিভা এবং সরল চরিত্রের জন্য বিখ্যাত তিনি। আর তারও একটি পরিচয় রয়েছে, সে খ্যাতনামা ডিরেক্টর মহেশ ভাটের কন্যা । কিন্তু অল্প সময়ের মধ্যে কীভাবে এতো নামডাক অর্জন করলেন এই নবগত নায়িকা। শোনাব আজ তারই কাহিনী। তাই আজকের নিবন্ধে আলিয়া ভাটের বায়োগ্রাফি রইল।

আলিয়া ভাটের বায়োগ্রাফি  জন্ম পরিচয় এবং পরিবারঃ

আলিয়া ভাটের বায়োগ্রাফি – জন্ম পরিচয় এবং পরিবারঃ

১৯৯৩ সালে ১৫ ই মার্চ মুম্বাই, মহারাষ্ট্র, আলিয়া ভাট জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা একজন বিখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক মহেশ ভাট। তার মা সনি রাজদান। তিনি একজন অভিনেত্রী ছিলেন । তার দুই বোন শাহীন ভাট এবং পূজা ভাট এবং ভাই রাহুল ভাট। রাহুল এবং পূজা উভয়ই সৎ ভাইবোন।

আলিয়া ভাটের বায়োগ্রাফি – শিক্ষাজীবনঃ

আলিয়া ভাটের বায়োগ্রাফি – শিক্ষাজীবনঃ

আলিয়া ভাট ২০১১ সালে মুম্বাইয়ে জামাবাই নার্সী বিদ্যালয়ে তার শিক্ষাজীবন সম্পন্ন করে। চলচ্চিত্র জগতে তার প্রথম অভিনয় ছিল শিশু শিল্পী হিসাবে। ১৯৯৯ সালে “সংঘর্ষ ” চলচ্চিত্রে তিনি শিশুর চরিত্রে অভিনয় করেন।

আলিয়া ভাটের বায়োগ্রাফি – ক্যারিয়ার জীবনঃ

আলিয়া ভাটের বায়োগ্রাফি – ক্যারিয়ার জীবনঃ

২০১২ সালে আলিয়া ভাটকে রোম্যান্টিক কমেডি চরিত্রে করণ জোহরের ” স্টুডেন্ট অব দ্য ইয়ার” সিনেমায় তাকে বলিউড ইন্ডাস্ট্রির নবগত তারকা বরুণ ধাওয়ান এবং সিদ্ধার্থ মালহোত্রা সঙ্গে মুখ্য ভুমিকায় দেখা যায় । সিনেমাটি ত্রিকোণ প্রেম কাহিনী বলা যেতে পারে। সিনেমাটি বাণিজ্যিকভাবে বিশাল সাফল্য ছিল। বক্স অফিসে “স্টুডেন্ট অফ দ্যা ইয়ার” ₹ ৯৬০ মিলিয়ন অর্জন করেছিলেন। এই সিনেমায় অভিনয়ের জন্য তিনি প্রচুর প্রশংসা অর্জন করেছিল এবং আলিয়া ভাটের অভিনয় জন্য শ্রেষ্ঠ মহিলা ডেবিউ জন্য ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ডস মনোনয়ন পান এবং আগামী দিনের মহাতারকা পুরস্কার লাভ করেন।

২০১৪ সালে তাকে ইমতিয়াজ আলি পরিচালিত “হাইওয়ে” সিনেমায় দেখা গিয়েছিল। এই সিনেমাটি বক্স অফিসে ভালো সাফল্য অর্জন করেছিল। “হাইওয়ে” রণদীপ হুদার বিপরীতে একজন ধনী মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা গেছে। ফিল্মটি একটি ধনী মেয়ের কিডন্যাপ হয়ে যাওয়ার কাহিনী নিয়ে তৈরি করা হয়েছিল। সিনেমায় তার অভিনয় ছিল অসাধারণ। যার জন্য আবার তিনি প্রশংসা অর্জন করেছিল এবং তাকে সেরা অভিনেত্রির হিসাবে তাকে ফিল্ম ফেয়ারে মনোনয়ন করা হয়।

আলিয়া ভাটের বায়োগ্রাফি

২০১৪ সালে আলিয়া ভাটের মুক্তি প্রাপ্ত আরেকটি ছবি করন জোহর ও সাজিদ নাদিরওয়ালার উভয়ের পরিচালনায় “২ স্টেটস”, যেখানে তাকে অর্জুন কাপুরের সঙ্গে অভিনয় করতে দেখা যায় । এই সিনেমায় তিনি তামিল মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করেন। যার জন্য আলিয়া ভাটকে তামিল ভাষা শিখতে হয়েছিল। এই ছবিটির অভিনয়ের জন্য সমালোচকদের কাছ থেকে কৃতজ্ঞতা অর্জন করে। এই চলচ্চিত্রটি বিশাল বাণিজ্যিক সাফল্য অর্জন করে।

২০১৪ সালের অভিনেত্রী আলিয়া ভাটকে আরও একটি সিনেমা “হাম্পটি শার্মা কি দুলহানিয়া” দেখা যায়। তার বিপরীতে দ্বিতীয়বারের মতো পর্দা ভাগ করে নেয় বরুণ ধাওয়ান। এই ছবিটি বাজেটের তিনগুন বেশি অর্থ উপার্জন করেন। এই সিনেমাটির জন্য আলিয়া ভাট আবারও শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর পুরস্কার অর্জন করে নেয়। এই অল্প বয়েসে তার সাফল্যের জন্য তাকে বছরের শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী হিসাবে আখ্যা দেওয়া হয়।

২০১৫ সালে শাহিদ কাপুরের বিপরীতে “শানদার” সিনেমায় তাকে দেখা যায়। দুর্ভাগ্যবশত সিনেমাটি ফ্লপ হয়েছিল। তার পরে ২০১৬ সালে অভিষেক চৌবে পরিচালিত থ্রিলার চলচ্চিত্র “উড়তা পাঞ্জাব” সিনেমায় কাজ করেছেন । এই ছবিটি মূলত ভারতের পাঞ্জাব রাজ্যের মাদকদ্রব্যের অপব্যবহারের সমস্যা মোকাবিলার কাহিনী নিয়ে তৈরি করা। আবারও বক্স অফিসে অসাধারণ সাফল্য পায় এবং অভিনেত্রী আলিয়া ভাট তার অভিনয়ের জন্য সেরা অভিনেত্রী অ্যাওয়ার্ডস অর্জন করেন। এই সিনেমা থেকে বোঝা যায়, আলিয়া ভাট সবরকম অভিনয়ের জন্য সক্ষম।

২০১৬ সালে আলিয়া ভাটের মুক্তি প্রাপ্ত “কাপুর অ্যান্ড সন্স” সিনেমা তাকে সিদ্ধার্থ মালহোত্রা এবং ফাওয়াদ খানের বিপরীতে অভিনয় করতে দেখা যায় এবং এটিও একটি বাণিজ্যিকভাবে সফল ছবি এবং তার অভিনয়ের জন্য অনেক প্রশংসিত হয়েছেন।

আলিয়া ভাটের বায়োগ্রাফি

২০১৬ সালে মুক্তি প্রাপ্ত ছবি ” ডিয়ার জিন্দেগি”। এই ছবিতে অভিনেত্রী আলিয়া ভাটকে বলিউডের কিং খানের সঙ্গে দেখা যায়। এই সিনেমাটি বক্স অফিসে বিশাল সাফল্য পায়। এই সিনেমাটি ফিল্মফেয়ার পুরস্কার অর্জন করে এবং আলিয়া ভাট শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর পুরস্কার অর্জন করে।

২০১৭ সালে তাকে বরুণ ধাওয়ানের বিপরীতে “বদ্রিনাথ কি দুলহানিয়া” রোমান্টিক কমেডি সিনেমায় দেখা যায়। এই সিনেমাটি ইয়ং জেনারেশন মন ছুঁয়ে যায়। বক্স অফিসেও ভালো সাফল্যে অর্জন করে।

২০১৮ সালে শুরুর দিকে “ওয়েলকাম টু নিউ ইয়র্ক” সিনেমায় স্বভূমিকায় তাকে দেখা যায় । ২০১৮ সালে আলিয়া ভাটের মুক্তি প্রাপ্ত থ্রিলার ফিল্ম ‘রাজি’। ১৯৭১ সালের ইন্দো-পাক যুদ্ধের সময় পাকিস্তানি সেনা কর্মকর্তার সাথে বিবাহিত একজন ভারতীয় গুপ্তচরের গল্প নিয়ে তৈরি। এটি বাণিজ্যিকভাবে হিট সিনেমা মধ্যে অন্যতম। তার অভিনয় আরও একবার মানুষের মন জয় করে নেয়। ২০১৯ তার মুক্তি প্রাপ্ত সিনেমা “গালি বয়”। তার বিপরীতে রয়েছেন অভিনেতা রণবীর সিং।

আলিয়া ভাটের বায়োগ্রাফি – ব্যক্তিগত জীবনঃ

আলিয়া ভাটের বায়োগ্রাফি – ব্যক্তিগত জীবনঃ

স্কুলে পড়ার সময় ষষ্ঠ শ্রেণীতে রমেশ দুবাই এবং অষ্টম শ্রেণীতে পড়ার সময় তার খুব কাছের বন্ধু আলি দাদকারের সঙ্গে তার সম্পর্ক হয়।

শোনা যায় স্টুডেন্ট অফ দ্যা ইয়ার সিনেমার পর তার সহ অভিনেতা বরুণ ধাওয়ানের সঙ্গে সম্পর্ক হয়। যদিও তা বিচ্ছেদ হয়ে যা স্বল্পদিনের মধ্যে এবং তারা এখন ভালো বন্ধু।

বিভিন্ন ওয়েব সাইট থেকে জানা যায়, একজন ব্যবসায়ী কাভিন মিত্তাল সঙ্গে আলিয়া ভাট ডেটিং করেন । কিন্তু সেই সম্পর্কও বেশিদিন স্থায়ী হয় না। তারপর তার সহ অভিনেতা সিদ্ধার্থ মালহোত্রার সঙ্গে তার সম্পর্ক শুরু হয়।

২০১৮ সালে রণবীর কাপুরের সঙ্গে আলিয়া ভাটের ডেটিংয়ের খবর প্রকাশ্যে আসে। যদিও তারা সরাসরি সে কথা মুখে প্রকাশ করেনি।

তিনি রাস্তার প্রাণীদের মুখোমুখি হওয়া সমস্যার বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য ‘কোয়েক্সিস্ট’ নামে একটি পরিবেশগত উদ্যোগ শুরু করেছেন।

আলিয়া ভাটের বায়োগ্রাফি – অ্যাওয়ার্ডস

আলিয়া ভাটের বায়োগ্রাফি – অ্যাওয়ার্ডস

ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ডস (২০১৩, ২০১৫, ২০১৭), সেরা অভিনেত্রী অ্যাওয়ার্ডস (২০১৫,২০১৭), স্ক্রিন অ্যাওয়ার্ডস (২০১৩, ২০১৫, ২০১৭), আন্তর্জাতিক ভারতীয় চলচ্চিত্র অ্যাকাডেমি পুরস্কার (২০১৫, ২০১৬)।

এই ছিল আলিয়া ভাটের জীবনে সফলতার কাহিনী।

সচরাচর জিজ্ঞাস্য প্রশ্ন উত্তরঃ

প্রঃ আলিয়া ভাটের জন্মদিন কবে?

উঃ ১৫ ই মার্চ আলিয়া ভাটের জন্মদিন।

প্রঃ আলিয়া ভাট কোথায় থাকেন?

উঃ মুম্বাই শহরে।

প্রঃ আলিয়া ভাটের আয় কত?

উঃ আলিয়া ভাটের বার্ষিক আয় ৯.৬ কোটি টাকা।

প্রঃ আলিয়া ভাটের বর্তমান প্রেমিক কে?

উঃ রণবীর কাপুর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here