এক তরফা ভালোবাসার গল্প এর কাহিনী

ভালোবাসার গল্প

ভালোবাসার গল্প

ভালোবাসা কথাটা খুব প্রবিত্র একটি শব্দ। দুটি মানুষের হৃদয়ের অনুভবের ভাষা। সত্যিকারের ভালোবাসা হয়তো এখন খুব একটা দেখা যায় না। তবে এখনো পৃথিবীতে সত্যিকারের ভালোবাসা হয়তো কারো কারো ক্ষেত্রে বেঁচে রয়েছে। ভালোবাসা শুধু দুই তরফা হবে তা নয়, ভালোবাসা একতরফাও হতে পারে। আজকে আমরা আপনাদের সঙ্গে একটু আলাদা ধরনের নিবন্ধ ভালোবাসার গল্প নিয়ে আলোচনা করব। আজকে আমরা একতরফা ভালোবাসার একটি কাহানি আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করব। আশা করব এই এক তরফা ভালোবাসার গল্প আপনাদের ভালো লাগবে।

আরও পড়ুনঃ বড়দিন উদযাপনঃ বিশ্বব্যাপী বড়দিন উদযাপন

ভালোবাসার গল্প:

ভালোবাসার গল্প

বর্ষা এবং আকাশ একই কলেজে পড়াশুনো করে। তারা প্রথম বর্ষের ছাত্রছাত্রী। কলেজের প্রথম দিন থেকেই আকাশ বর্ষার প্রতি দুর্বল ছিল। পড়াশুনো চলাকালীন তারা একে অপেরের বন্ধু হয়। এবং বন্ধু থেকে আকাশ ধীরে ধীরে বর্ষার প্রেমে পরে এবং যত দিন যায় তাকে ভালবাসতে শুরু করে। কথায় বলাই যায় প্রথম দেখাতেই ভালোবাসা। তবে, বর্ষা হয়তো আকাশের মনের কথা কোনদিন বুঝে উঠতে পারে নিন অথবা বলা যায় হয়তো কোনদিন বুঝে উঠতে চায়নি। তবে বর্ষার প্রতি আকাশের এই গভীর ভালোবাসার অনুভূতি পুরো কলেজ জেনে যায়। এইভাবেই দিনের পর দিন আকাশের মনে বর্ষার জন্য ভালোবাসা আরও বাড়তে থাকে।

আরও পড়ুনঃ প্রেমিকাদের পাঠানোর জন্য রোম্যান্টিক ম্যাসেজ

আকাশ পড়াশুনোয় খুব ভালো এবং খুব শান্ত ছেলে। তার কলেজে একটি খুব ভালো বন্ধু ছিল রাজ। রাজ অবশ্যই আকাশের মনের কথা সব জানাত। তবে আকাশের বারণে কোনও দিন বর্ষাকে বলতে পারে নি।

এই ভাবেই বন্ধুত্বে তিন বছর পার হয়ে যায়। আজ আকাশ এবং বর্ষা তৃতীয় বর্ষের ছাত্রছাত্রী। তাদের কলেজের গণ্ডি পার করার সময় হয়ে এলো। কলেজের শেষে দিনে দাঁড়িয়ে রাজ তার বন্ধু আকাশকে বলে ভাই আজ তো বর্ষাকে তোর মনের কথাটা জানা। তুই যদি আজ তোর মনের কথা বর্ষার সামনে প্রকাশ না করিস তাহলে হয়তো জীবনে এই সুযোগটা আর কোনদিনও ফিরে পাবি না। রাজের এই কথা শুনে আকাশ নিজের মনকে বোঝাল এবং মনে সাহস জাগিয়ে গুটি গুটি পায়ে বর্ষার দিকে এগিয়ে গেলে নিজের প্রেম নিবেদন করতে।

আরও পড়ুনঃ ১৪ ফেব্রুয়ারি ভ্যালেন্টাইন’স ডে, বিশ্ব ভালোবাসা দিবস

আকাশ – বর্ষা আমি তোকে কিছু বলতে চাই।

বর্ষা (উচ্চ কণ্ঠে) – হ্যাঁ, আকাশ বল।

আকাশ (মৃদু স্বরে) – বর্ষা হয়তো তোকে কোনদিন বলতে পারি নি। তবে কলেজের সেই প্রথম দিন থেকে আমি তোকে ভালোবাসি।

বর্ষা (অবাক হয়ে) – কি?

আকাশ (আবেগে) – হ্যাঁ, বর্ষা আমি তোকে সত্যিই খুব ভালোবাসি। হয়তো কোনদিন তোর কাছে প্রকাশ করার সাহস পাইনি। তবে যখন থেকে তোর সঙ্গে মিশেছি, তোর সঙ্গে সময় কাটিয়েছি। তুই আমার কাছে আমার পুরো বিশ্ব হয়ে উঠেছিস। তোকে কবে থেকে এতো থেকে ভালোবেসে ফেলেছি তা হয়তো নিজেই জানি না।

আরও পড়ুনঃ হোলির শুভেচ্ছা : হোলি শুভেচ্ছার ম্যাসেজ

বর্ষা (রেগে গিয়ে) – আমার মনে হয় তোর মাথা খারাপ হয়ে গেছে, তাই এরকম ভুলভাল বকছিস। তুই জানিস তুই কীসব বলছিস?

আকাশ – হ্যাঁ, জানি আমি তোকে আমার মনের কথা বলছি, যে আমি তোকে খুব ভালোবাসি।

বর্ষা – আমি শুধু তোর সাথে বন্ধুত্ব করেছি বলে তুই এই চালাকি তা করলি। আমি তোকে খুব ভালো ছেলে ভেবেছিলাম কিন্তু আমার সেটা ভুল ধারনা ছিল। আমি তোকে ভালোবাসি না আর আজকের পর থেকে ভালোবাসা তো দূরের কথা আমাদের মধ্যে বন্ধুত্ব শেষ হয়ে গেল।

আরও পড়ুনঃ শুভ জন্মদিনের শুভেচ্ছা: জন্মদিনের শুভেচ্ছা ম্যাসেজ

সেদিনের পর থেকে কলেজের জীবন তো শেষই বরং আকাশ ও বর্ষার কোন দেখা সাক্ষাৎ হয়নি। বর্ষা পড়াশুনোর জন্য বিদেশে চলে যায়। আর আকাশ একইভাবে বর্ষাকে ভালোবেসে যায়। আজও আকাশ বর্ষাকে ভালোবাসে। তার বন্ধু রাজ তাকে অনেক বোঝানোর চেষ্টা করছে বর্ষা তো তাকে কোনদিন ভালোবাসেনি। তাহলে আকাশ কেন বর্ষাকে ভালোবাসে।

উত্তরে আকাশ জানিয়েছিল ভালোবাসা অর্জনের পর তো ভালবাসতে সবাই পারে। তবে হারিয়ে যাওয়ার পরও একতরফা ভালোবাসা টিকিয়ে রাখতে কয়জন পারে। ভালোবাসা মানে শুধু অর্জন করাই নয় ত্যাগ করাও একধরণের ভালোবাসা। আমি বর্ষাকে ভালোবাসি আর এই ভালোবাসা অব্যাহত থাকবে।

আরও পড়ুনঃ জন্মদিনের কেকের ডিজাইনঃ জন্মদিনের কেকের ভিন্ন ডিজাইন

তাহলে দেখলেন তো সত্যিকারের ভালোবাসার গল্প মানে শুধু পাওয়া নয় হারানোও। আমাদের দেশে এরকম অনেক আকাশের মতো ব্যক্তিত্ব রয়েছে যারা কোন স্বার্থ ছাড়াই ভালোবেসে গেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here