15 টি বাস্তু টিপস ঘরের সুখ শান্তি বজায় রাখবে চিরকাল

বাস্তু টিপস

এই নতুন বছরটি  আপনাদের প্রিয়জনদের সুখ- শান্তি, অভিনন্দন বার্তা, সমৃদ্ধি প্রেরণ করে। তবে সবার জন্য হয়তো নতুন বছর সুখ-শান্তি বয়ে আনে না। কারণ সমৃদ্ধি হয়তো আপনার কঠোর পরিশ্রমের উপর নির্ভর করে তবে, আপনার সুখ- শান্তি কিন্তু আপনার গৃহের কিছু ভালো-মন্দের উপর নির্ভর করে। আপনার গৃহের বাস্তুর সমস্যা আপনার বাড়ির সুখ- শান্তি নষ্ট করতে পারে। এক্ষেত্রে আপনি যদি কয়েকটি বাস্তু টিপস মেনে চলেন, তাহেল হয়তো জীবনে সুখ- শান্তি বজায় রাখতে পারেন।

বাস্তু শাস্ত্র

আমরা অনেকেই এই সমস্ত বিষয়ের উপর বিশ্বাস করি, অনেকেই ভাবেই এইগুলি বিজ্ঞানের সঙ্গে সংযুক্ত নয়। তবে আপনি কি জানেন বিজ্ঞানের সঙ্গে বাস্তু শাস্ত্রের সম্পর্ক রয়েছে। আসুন সবকিছু ভাগ্যের উপর ছেড়ে না দিয়ে এই বাস্তু শাস্ত্র মেনে দেখাই যাক ঘরের সুখ শান্তি বজায় রাখতে পারি কিনা? এখানে আপনাদের জন্য ১৫ টি বাস্তু টিপস রইল যা বাড়ির সুখ, সমৃদ্ধি এবং সুস্বাস্থ্য বজায় রাখবে।

আরও পড়ুনঃ মকর সংক্রান্তি 2020 শেষ দিনে কি করা উচিত আর কি নয়

বাস্তু শাস্ত্র গুরুত্বপূর্ণ কেন?

বাস্তু শাস্ত্র গুরুত্বপূর্ণ কেন?

বাস্তুশাস্ত্র ব্যাখ্যা করেন যে মহাবিশ্বের সমস্ত জিনিসের একটি স্তরের শক্তি রয়েছে এবং প্রতিটি বিল্ডিং বা জমি এর সাথে এই শক্তির যুক্ত থাকে। মহাবিশ্বটি ইতিবাচক এবং নেতিবাচক শক্তি দ্বারা নির্মিত। বাস্তু লক্ষ্য হল নেতিবাচক শক্তি দূর করা এবং ইতিবাচক শক্তি বাড়ানো।

আরও পড়ুনঃ ক্রিসমাসে ঘর সাজানোর জন্য বড়দিনের সাজসরঞ্জাম

পরিবারের সুখ শান্তি ও সমৃদ্ধি বজায় রাখতে বাস্তু  টিপসঃ 

পরিবারের সুখ শান্তি ও সমৃদ্ধি বজায় রাখতে বাস্তু  টিপসঃ 

১. বাড়ির প্রধান প্রবেশদ্বারঃ

বাড়ির প্রধান প্রবেশদ্বারঃ

বাড়ির প্রধান প্রবেশদ্বারটি দক্ষিণমুখী হওয়া উচিত নয়। এটি পূর্ব বা উত্তর দিকে থাকা উচিত। মুখ্য দরজাটি দক্ষিণমুখী হলে গৃহে নেতিবাচক শক্তি বৃদ্ধি পায় তবে আপনার যদি  অন্য বিকল্প না থাকে তবে দরজার ঠিক সামনে একটি বড় আয়না রাখুন, যাতে দরজা থেকেই নেতিবাচক শক্তি ফিরে যায়।

২. কলসি রাখুনঃ

বাস্তু টিপস

বাড়ির উত্তর-পূর্ব দিকের জলের কলসি রাখবেন। এতে আপনার বাড়ির সমৃদ্ধি বয়ে আসবে।

৩. মুখ্য দরজায় স্বস্তিক চিহ্ন ব্যবহারঃ

মুখ্য দরজায় স্বস্তিক চিহ্ন ব্যবহারঃ

মুখ্য দরজায় স্বস্তিক চিহ্ন ব্যবহার করুন। এটি পরিবারে সুখ এবং শান্তির বজায় রাখতে সহায়তা করে।

৪. বাড়ির দরজা ও জানালাঃ

বাড়ির দরজা ও জানালাঃ

বাড়ির দরজা এবং জানালা এমন হওয়া উচিত যাতে সূর্যলোক বেশি করে ঘরে প্রবেশ করতে পারে। এতে  রোগ ব্যাধি দূর হয়।

আরও পড়ুনঃ  মহালয়ায় তর্পণ করতে কি কি প্রয়োজন এবং কীভাবে করবেন

৫. ড্রয়িং রুমঃ

ড্রয়িং রুমঃ

ড্রয়িং রুম যখন সাজাবেন ফুলের তোড়া রাখতে ভুলবেন না। বলা হয় ড্রয়িং রুমে ফুলের তোড়া রাখলে বাড়ির ঝগড়া অশান্তি দূর হয়। বসার ঘরটি পূর্ব, উত্তর বা উত্তর-পূর্ব দিকে মুখ করা উচিত। ভারী আসবাব বসার ঘরের পশ্চিম বা দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে রাখতে হবে এবং সমস্ত ইলেকট্রনিক্স এবং সরঞ্জাম বসার ঘরের দক্ষিণ-পূর্ব অংশে রাখতে হবে। ঘরে যদি কোনও আয়না থাকে তবে তা উত্তর দেওয়ালের দিকে মুখ করে বসান।

৬. বেডরুম অথবা শোয়ার ঘরঃ

বেডরুম অথবা শোয়ার ঘরঃ

কখনও কখনও, ছোট জিনিস আপনার ভাগ্যকে ঘুরিয়ে দিতে পারে। বাস্তু শাস্ত্র আপনাকে দেখায় যে কীভাবে আপনার বেডরুমে কোথায় কোন জিনিস রাখলে তার ইতিবাচক প্রভাব পড়ে।

যেমন বেডরুমে কখনো ঈশ্বরের ছবি বা ঈশ্বরের ছবি দেওয়া ক্যালেন্ডার রাখবেন না। পারলে শোয়ার ঘরে ছবি না রাখাই ভালো। তবে আপনি এর পরিবর্তে চাইলে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের কোনও চিত্র রাখতে পারেন। এতে মানসিক শান্তি বজায় থাকে এবং স্বামী- স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া- কলহ দূর হয়।  বেডরুমে হালকা আলো ব্যবহার করা উচিত।

৭. পূজার ঘরঃ

পূজার ঘরঃ

পূজার স্থান কখনো বাথরুমের পাশাপাশি হবে না। বাড়ির উত্তর- পূর্ব দিক করে ঠাকুর ঘর করবেন এবং ঠাকুরের মুখ থাকবে উত্তর দিকে।

৮. রান্নাঘরঃ

রান্নাঘরঃ

দক্ষিণ- পূর্ব দিকে বাড়ির রান্নাঘর বানাবেন না। এতে ঘরে অশান্তি হতে পারে। সুখ- শান্তি বজায় নাও থাকতে পারে।

আরও পড়ুনঃ  কম খরচে ইউনিক ঘর সাজানোর টিপস জেনে রাখুন

৯. বিছানাঃ

বিছানাঃ

বিছানা দক্ষিণ- পশ্চিম দিক করে রাখা শুভ বলে মানা হয়। উত্তর- পূর্ব দিকে বিছনা রাখতে নেই। বিছানার সোজাসুজি আয়না রাখতে নেই। এতে কলহ বৃদ্ধি পায়।

১০. বাথরুমঃ

বাথরুমঃ

ঘরে প্রবেশ পথে বাথরুম থাকা উচিত নয়।

১১. লাফিং বুদ্ধার মূর্তি স্থানঃ

লাফিং বুদ্ধার মূর্তি স্থানঃ

বাড়ির সদর দরজার দিকে মুখ করে ৩০ ইঞ্চি উচ্চতায় লাফিং বুদ্ধার মূর্তি রাখলে সুখ শান্তি বজায় থাকে এবং পরিবারের মঙ্গল হয়।

আরও পড়ুনঃ  বাচ্চাদের জন্মদিনের উপহার দেওয়ার আইডিয়া

স্বাস্থ্য ভালো রাখতে বাস্তু টিপসঃ 

স্বাস্থ্য ভালো রাখতে বাস্তু টিপসঃ 

১২. ভালো ঘুমঃ

ভালো ঘুমঃ

শরীর সুস্থ রাখতে ভালো ঘুমের প্রয়োজন আর তার জন্য আপনাকে দক্ষিণের দিকে মাথা রেখে ঘুমাতে হবে।

১৩. অসুস্থতাঃ

অসুস্থতাঃ

বাড়ির কেউ যদি সামান্য অসুস্থ বোধ করে তাহলে মোমবাতি জ্বালিয়ে রাখুন তাড়াতাড়ি সুস্থ হতে সহায়তা করবে।

১৪. হনুমানজি ছবি 

হনুমানজি ছবি 

পরিবারের লোকজনদের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে ভগবান হনুমানের ছবি বাড়ির দক্ষিণ দিকে মুখ করে রাখুন। তিনি আমাদের স্বাস্থ্যের রক্ষক।

আরও পড়ুনঃ  নতুন বছরের শুভেচ্ছা বার্তা ম্যাসেজ ২০২০

১৫. সুস্বাস্থ্যের জন্যঃ

সুস্বাস্থ্যের জন্যঃ

সুস্বাস্থ্যের জন্য, জল খাওয়ার সময় আপনার মুখ উত্তর-পূর্ব বা পূর্ব দিকে রাখুন। সাইট্রাস ফলের গাছগুলি বাড়ির প্রবেশদ্বারে রাখলে ঘরে সুস্বাস্থ্যের আমন্ত্রণ হয়।

আশাকরি এই ১৫ টি বাস্তু টিপস আপনাদের ভালো লাগবে। এই ১৫ বাস্তু টিপস আপনারা যদি মেনে চলেন পরিবারে সুখ শান্তি, সমৃদ্ধি, সুস্বাস্থ্য বজায় থাকবে এবং নেতিবাচক শক্তি হ্রাস হবে।

Key point

বাস্তু শাস্ত্র একটি প্রাচীন ভারতীয় স্থাপত্য বিজ্ঞান।

 সচরাচর জিজ্ঞাস্য প্রশ্ন উত্তরঃ

প্রঃ বাস্তু কি বাচ্চাদেরও প্রভাবিত করে?

উঃ হ্যাঁ, বাস্তু সবাইকে প্রভাবিত করে।

প্রঃ কেন বাস্তু শাস্ত্র অনুসরণ করা উচিত?

উঃ বাস্তু শাস্ত্র অনুসরণ করলে ইতিবাচক শক্তি বৃদ্ধি পাবে এবং নেতিবাচক শক্তি হ্রাস পাবে।

প্রঃ বাস্তু শাস্ত্রের ৫ টি উপাদান কি কি?

উঃ জল, পৃথিবী, বায়ু, অগ্নি এবং স্থান।

প্রঃ নিজের বাড়ি না থাকলেও কি বাস্তু শাস্ত্র অনুসরণ করতে হবে?

উঃ হ্যাঁ।

প্রঃ বাস্তু শাস্ত্রের নির্দেশ অনুযায়ী বাড়িতে কতগুলি দরজা রাখা উচিত?

উঃ একটি বাড়িতে অনেকগুলি দরজা রাখার চেষ্টা করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here