১৮৫৭ সাল সিপাহী বিদ্রোহ এর কারণ ও ফলাফল

sipaho bidroho

সূত্রঃ- i . ytimg . com

১৮৫৭ সালে একটি শক্তিশালী বিদ্রোহ হয়েছিল যা সিপাহী বিদ্রোহ নামে পরিচিত। ১৮৫৭ সালের সিপাহী বিদ্রোহকে ভারতীয় বিদ্রোহও বলা হয়। ব্রিটিশ শাসন যা বছরের পর বছর ভারতকে দাসত্ব করে রেখেছিল, এই সিপাহী বিদ্রোহ সেই শক্তিশালী ব্রিটিশ শাসনকে নাড়িয়ে দিয়েছিল। প্রথমদিকে এই বিদ্রোহ কোম্পানি সৈন্য ভারতীয় সেনাদের দ্বারা শুরু করা হয়েছিল তবে শীঘ্রই সাধারণ মানুষও যোগদান করেছিলেন।

লক্ষ লক্ষ কৃষক, কারিগর এবং বিশেষ করে সৈনিকরা এক বছরের বেশি সময় ধরে তাদের সাহসিকতার সঙ্গে লড়াই চালিয়ে গেছেন এবং তাদের ত্যাগ ও বীরত্ব ভারতের ইতিহাসে এক চমকপ্রদ অধ্যায় সৃষ্টি  করে। সেই ইতিহাসের কাহিনী আজ আপনাদের আরও একবার স্মরণ করাতে আজকে আমাদের এই পোস্ট। আমরা আজকের নিবন্ধে ১৮৫৭ সালে ঘটে যাওয়া সিপাহী বিদ্রোহের কারন আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করব। এছাড়াও আপনারা এই পোস্টে সিপাহী বিদ্রোহের কিছু ঘটনা জানতে পারবেন।

আরও পড়ুন >> খিলাফত আন্দোলন ইতিহাস ও ফলাফল

সিপাহী বিদ্রোহ বা ভারতীয় বিদ্রোহঃ  

sipaho

সূত্রঃ- qph . fs . quoracdn . net

ভারতের ইতিহাসে ভারতীয় বিদ্রোহ অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা। এটি ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির বিরুদ্ধে প্রথম বিদ্রোহ যা একটি বিশাল রূপ ধারণ করেছিল। এই বিদ্রোহের পিছনে মূল ব্যক্তি ছিলেন সৈন্যরা। এ কারণেই এটিকে সিপাহী বিদ্রোহও বলা হয়। যদিও এই বিদ্রোহ পরে শুধুমাত্র সেনাদের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল না বরং পরে এটি বিশাল রুপ ধারণ করে। আর অনেকেই বলে থাকেন এটি ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামের প্রথম বিদ্রোহ।

১০ মে ১৮৫৭ সালে এই বিদ্রোহ প্রথম শুরু হয়েছিল। তিনি ১৮৫৭ সালের ২৯ মার্চ ব্যারাকপুরে ব্রিটিশ সার্জেন্টকে আক্রমণ করেছিলেন। এই বিদ্রোহের নেতাদের মধ্যে ঝাঁসির রানী লক্ষ্মীবাই, বাহাদুর শাহ, নানা সাহেব এছাড়াও আরও অনেকে।

আরও পড়ুন >> জেনে নিন ভারতের স্বাধীনতা দিবস এর কাহিনী

সিপাহী বিদ্রোহের সূত্রপাতঃ

history of sipaho bidroho

সূত্রঃ- 1hindi . com

স্বাধীনতা অর্জনের অনেক বিপ্লবগুলির মধ্যে একটি সিপাহী বিদ্রোহ। ১৮৫৭ সালে  ভারত ব্রিটিশদের পুরো নিয়ন্ত্রণে চলে আসে এবং ভারতের স্বাধীনতার জন্য অনুভূতি গড়ে উঠতে শুরু করে। আর সেই স্বাধীনতার তাগিদে প্রথম সুত্রপাত হয় সিপাহী বিদ্রোহের। তাই ব্রিটিশদের বিরুদ্ধে শুরু হওয়া সৈনিক বিদ্রোহকে স্বাধীনতার প্রথম যুদ্ধ বলা হয়। সিপাহী বিদ্রোহ একটি বিস্তৃত আন্দোলন হলেও চূড়ান্তভাবে এটি ব্যর্থ হয়েছিল এবং ১৮৫৮ সালে এটি শেষ হয়। এটি শুরু হয়ে শেষ পর্যন্ত দিল্লি, আগ্রা, কানপুর এবং লখনউতে ছড়িয়ে পড়ে।

আরও পড়ুন >> বড়দিনের ইতিহাস এর পিছনে অজানা গল্প জেনে নিন

সিপাহী বিদ্রোহের কারণঃ

1857

সূত্রঃ- i . ytimg . com

ইংরেজ আগ্রাসনের কারণে ভারতীয় দৈনন্দিন জীবনযাত্রার ভবিষ্যতের দৃষ্টিভঙ্গি ধারাবাহিকভাবে ধীরে ধীরে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছিল। ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি প্রথমদিকে ভারতে এসেছিল একটি ভিন্নতর তীব্রতা নিয়ে, তবে তা যথাযথভাবে পরিবর্তিত হয়েছিল। ১৮৫৭ সালে প্রথম বিদ্রোহগুলি এইভাবে দক্ষতার সাথে ন্যায়সঙ্গত হয়েছিল। বহু রাজনৈতিক, সামাজিক, অর্থনৈতিক, ধর্মীয় এবং সর্বোপরি সামরিক কারণে, সিপাহী বিদ্রোহের বীরত্বপূর্ণ প্রচেষ্টা সংগঠিত হয়েছিল।

নীচে সিপাহী বিদ্রোহের রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, সামাজিক ও সামরিক কারন দেওয়া হল-

সিপাহী বিদ্রোহের রাজনৈতিক কারনঃ

সিপাহী বিদ্রোহের রাজনৈতিক কারনও গুরুত্বপূর্ণ বলা যেতে পারে। রাজনৈতিক কারনগুলি হল-

  • সহায়ক চুক্তি
  • দেশীয় রাজপরিবারের পতন
  • ল্যাপস নীতি

সিপাহী বিদ্রোহের অর্থনৈতিক কারনঃ

  • ব্রিটিশ জাতীয় নীতি ও শোষণ
  • দারিদ্র্য, বেকারত্ব ও দুর্ভিক্ষ
  • হস্তশিল্প পতন, ঐতিহ্যবাহী অর্থনৈতিক কাঠামো ধ্বংস
  • ব্রিটিশদের বৈদেশিক প্রবণতা
  • কৃষির বাণিজ্যিকীকরন

সিপাহী বিদ্রোহের সামাজিক কারনঃ

  • ব্রিটিশদের সামাজিক সংস্কার, সামাজিক কুপ্রথা এবং কুসংস্কার
  • ইংরেজদের উদ্দেশ্যে সন্দেহ
  • ভারতবর্ষকে ধর্মান্তরিত করার জন্য ইংরেজদের তোড়জোড়
  • আইন- ধর্ম পরিবর্তন

সিপাহী বিদ্রোহের সামরিক কারনঃ

  • কার্তুজে গুরু ও শূকরের ফ্যাট ব্যবহার
  • সেনাবাহিনীতে বৈষম্য
  • সমাজের সঙ্গে অবিচ্ছেদ্য যোগাযোগ
  • সৈন্যদের ধর্মীয় ও বর্ণগত সমস্যা
  • সৈন্যদের অসন্তুষ্টির কারণ

লক্ষ্মী বাই ব্রিটিশদের বিরুদ্ধে এই বিদ্রোহের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। তবে শক্তিশালী নেতৃত্ব এবং সঠিক সমন্বয়ের অভাবে বিদ্রোহটি ব্যর্থ হয়েছিল।

আরও পড়ুন >> আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবস কেন পালন করা হয়?

সিপাহী বিদ্রোহের ব্যর্থতার কারণঃ

1857 andolon

সূত্রঃ- 1 . bp . blogspot . com

সিপাহী বিদ্রোহ বিশালভাবে ছড়িয়ে পড়লেও শেষ অবধি তা ব্যর্থ ছিল। এই ব্যর্থতার প্রধান কারণগুলি হল-

  • কোনও কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব ছিল না এবং বিদ্রোহ কেবল ভারতের অংশগুলিতে সীমাবদ্ধ ছিল।
  • বিদ্রোহীদের পরিকল্পনা ও শৃঙ্খলার অভাব ছিল।
  • ভারতের বিভিন্ন অঞ্চলের নেতাদের মধ্যে মতামতের মধ্যে মতভেদ ছিল।
  • বিদ্রোহীদের কাছে পর্যাপ্ত অস্ত্র ও আর্থিক ছিল না যেখানে ব্রিটিশ জনগণের কাছে উন্নত অস্ত্র এবং পর্যাপ্ত অর্থ ছিল।

আরও পড়ুন >> ভীমরাও রামজি আম্বেদকর জয়ন্তী দিবস

সিপাহী বিদ্রোহের ফলাফল বা প্রভাবঃ

revolt 1857

সূত্রঃ- m . jagranjosh . com

সিপাহী বিদ্রোহ ইংল্যান্ডে বসবাসরত ব্রিটিশদের সহ বিভিন্ন উপায়ে প্রতিটি ভারতীয়কে প্রভাবিত করেছিল। অনেকে ব্রিটিশবিরোধী এবং ব্রিটিশ বিরোধী দল ও গোষ্ঠীগুলিতে বিভক্ত ছিল। নির্মম প্রাথমিক প্রভাবটি ছিল যে কয়েক হাজার দেশীয় সেনা-পুরুষ নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছিল। এছাড়াও আরও সিপাহী বিদ্রোহের ফলে আরও কিছু প্রভাব পড়েছিল সেগুলি হল-

  • ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির শাসন ভারতে শেষ হয়েছিল এবং এই নিয়ম রানী ভিক্টোরিয়ার হাতে তুলে দেওয়া হয়েছিল।
  • ঘোষণা করা হয়েছিল যে কোনও বৈষম্য হবে না এবং লোকেরা একে অপরের প্রতি আরও ঐক্য, শক্তি এবং সম্মান অর্জন করবে।
  • সেনাবাহিনীতে সংস্কার চালু করা হয়েছিল এবং নতুন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছিল যাতে ভবিষ্যতে এ জাতীয় ঘটনা না ঘটে।

আরও পড়ুন >>  ছত্রপতি শিবাজী জয়ন্তী দিবস উদযাপন

সিপাহী বিদ্রোহের সময় লর্ড ক্যানিং তখনকার গভর্নর জেনারেল ছিলেন। এই বিদ্রোহ ভারতবর্ষে ছড়িয়ে দিতে ব্যর্থ হলেও বলাই যায় এই বিদ্রোহ দিয়েই স্বাধীনতা আন্দোলনের সূত্রপাত হয়।

সারকথাঃ

১৮৫৭ সালে বিদ্রোহ ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের বিরুদ্ধে ভারতের মূল পাদদেশ সৈন্যদের বিদ্রোহ ছিল।

সচরাচর জিজ্ঞাস্য প্রশ্ন উত্তরঃ

প্রঃ সিপাহী বিদ্রোহ কবে শুরু হয়?

উঃ সিপাহী বিদ্রোহ ১৮৫৭ সালে ১০ মে শুরু হয়।

প্রঃ সিপাহী বিদ্রোহে কারা নেতৃত্ব দিয়েছিলেন?

উঃ ঝাঁসির রানী লক্ষ্মীবাই, বাহাদুর শাহ, নানা সাহেব।

প্রঃ সিপাহী বিদ্রোহ কোথায় কোথায় হয়েছিল?

উঃ দিল্লি, আগ্রা, কানপুর এবং লখনউতে সিপাহী বিদ্রোহ ছড়িয়ে পড়ে।

প্রঃ সিপাহী বিদ্রোহ কি সফল ছিল?

উঃ না, সিপাহী বিদ্রোহ ব্যর্থ ছিল।

প্রঃ সিপাহী বিদ্রোহ কবে শেষ হয়? 

উঃ ১৮৫৮ সালে এটি শেষ হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here